আওয়ামী লীগ দেশকে সঠিক নেতৃত্ব দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে : শিক্ষামন্ত্রী

আশিক বিন রহিম :

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে চাঁদপুর পৌর আওয়ামী লীগের আয়োজনে আলোচনা সভা ও কেককাটা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ২৩ জুন বুধবার বিকেলে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে মিলনায়তনে এ আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়। এতে দুপুর ২টার পর থেকে চাঁদপুর জেলা, পৌর ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষক লীগ ও মহিলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের অগণিত নেতাকর্মীরা অংশগ্রহণ করেন।
অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি।
তিনি বলেন, বাংলার মানুষের অধিকার আদায়ের গৌরবময় আন্দোলনের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে। আমরা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আমরা ভাষার অধিকার, মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতা এবং স্বাধীনতা পরবর্তী উন্নয়ন পেয়েছি। এদেশের সকল গৌরবময় অর্জন এসেছে আওয়ামী লীগের হাত ধরে।
তিনি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার রাজনৈতিক জীবনে অসংখ্যবার কারাবরণ করেছেন, কিন্তু অন্যায়ের কাছে কখনও মাথা নত করেননি। বঙ্গবন্ধু আমাদের মুক্তির স্বপ্ন দেখিয়েছেন এবং সেটি বাস্তবায়নের জন্য প্রস্তুত করেছেন। বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন। শুধু তাই নয় স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে তিনি আমাদের সামাজিক, অর্থনৈতিক মুক্তির পথ দেখিয়ে দিয়েছেন।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ যখন ঘুরে দাঁড়িয়েছিল, তখন স্বাধীনতার পরাজিত অপশক্তি তাকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করে। কিন্তু তারা জানত না মানুষের মৃত্যু হলেও আদর্শের মৃত্যু নেই। তারা ব্যক্তি শেখ মুজিবকে হত্যা করতে পেরেছে, কিন্তু তার আদর্শকে হত্যা করতে পারেনি। সেদিন মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কৃপায় বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা প্রাণে বেঁচে যান। এরপর বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের হাল ধরে, হাল ধরে বাংলাদেশের। আজকে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সকল ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে। সারা পৃথিবীতে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। মুজিববর্ষে তিনি হাজার হাজান গৃহহীন পরিবারকে গৃহ নির্মাণ করে দিয়েছেন।
ডা. দীপু মনি আরো বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা শুধু দেশটি এগিয়ে নেননি, তিনি জাতির পিতার হত্যাকারীদের বিচার করেছেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছেন, আইনের শাসন, গণতন্ত্রকে বাস্তবায়ন করেছেন। এদেশে এখন আর আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন নেই। সংসদে বিরোধী দলের মাইক কেউ কেড়ে নেয় না। দুর্নীতি দমন কমিশন, মানবাধিকার কমিশন, তথ্য কমিশনকে শক্তিশালী করেছেন। শেখ হাসিনা সরকার দুর্নীতি ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছে। সকল ক্ষেত্রে নারীরা এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি সকলের অধিকার সুরক্ষার জন্য কাজ করে চলেছেন।
তিনি বলেন, নানা প্রতিকূলতা ও ষড়যন্ত্রকে প্রতিহত করে আওয়ামী লীগ দেশকে সঠিক নেতৃত্ব দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তাই আমরা একথা গর্বের সাথে বলতে পারি, বাংলাদেশ মানেই আওয়ামী লীগ।
চাঁদপুর পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাধা গেবিন্দদ গোপের সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম সম্পাদক মাহমুদ আহমেদ মিঠু ও দপ্তর সম্পাদক ইমরান হোসেন সেলিমের যৌথ পরিচালনায় আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ- সভাপতি আলহাজ্ব ইউছুফ গাজী, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক এবং পৌরসভার মেয়র মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটোয়ারী, অ্যাড. মজিবুর রহমান ভূইয়া, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. জাহিদুল ইসলাম রোমান, জেলা আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক অজয় কুমার ভৌমিক, সহ দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. রনজিৎ রায় চৌধুরী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাড. বিনয় ভুষণ মজুমদার, সহ প্রচার সম্পাদক হাসান ইমাম বাদশা, সদর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী এরশাদ মিয়াজী, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য, অ্যাড. বদিউজ্জামান কিরন, অ্যাড. সাইদুল ইসলাম বাবু প্রমুখ।
আলোচনা সভা শেষে নেতাকর্মীরা কেক কেটে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭২ তম জন্মদিন পালন করে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *