কচুয়ায় কৃষকের ধান কেটে দিলেন যুবলীগ নেতাকর্মীরা

কচুয়া প্রতিনিধি :
দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় পুরোদমে শুরু হয়েছে বোরো ধান কাটা। তবে চলমান করোনা পরিস্থিতিতে ধান কাটা নিয়ে যখন শঙ্কায় ছিলেন কৃষক, তখন তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার যুবলীগের নেতা-কর্মীরা। গতকাল সোমবার দিনভর কচুয়া উপজেলার কাদলা ইউনিয়ন শাপুর গ্রামের কৃষক মো. আলী আশসাদ মিয়ার ৬০শতক জমির ধান কেটে দেয় উপজেলা যুবলীগ ।
কচুয়া উপজেলার সভাপতি ও পৌর মেয়র মো. নাজমুল আলম স্বপন, সাধারন সম্পাদক মো.শাহ জালাল উদ্দিন প্রধান, কাদলা ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক মো. সফি উল্লাহ সফি , যুগ্ম-আহবায়ক মো. কামাল হোসেন মজুমদার নেতৃত্বে স্থানীয় যুবলীগের নেতাকর্মীরা কৃষকের ৬০শতক পাকা ধান কেটে দেওয়া হয়েছে। পরে কৃষকের বাড়ির উঠানেও পৌঁছে দেওয়া হয়।
কচুয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র মো.নাজমুল আলম স্বপন বলেন,সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড.মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের নির্দেশে মোতাবেক শ্রমিক সংকট দূর করতে কৃষকের পাশে দাঁড়িয়েছে কচুয়া উপজেলা যুবলীগের নেতাকর্মীরা। আমরা সারা দিন কৃষকের ধান কেটে কৃষকের বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছি। কচুয়া উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নের প্রতিটি ইউনিয়নে কেন্দ্রীয় যুবলীগের নির্দেশ দেয়া হবে কৃষকদের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিবে। যুবলীগের নেতাকর্মীরা সে কাজ করে যাচ্ছে, যতক্ষন পর্যন্ত আমাদের দেশের প্রানঘাতি করোনা ভাইরাস স্বাভাবিক না হবে আমাদের সেবা মূলক সকল কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।
উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মো.শাহ জালাল প্রধান জালাল বলেন,কৃষকের দুঃসময়ে যুবলীগের নেতাকর্মীরা তাদের পাশে আছে। তাই চলতি মৌসুমে বোরো ধান নিয়ে বিপাকে পড়া কৃষকের পাকা ধান কেটে ঘরে তুলে দিবে যুবলীগ। এছাড়া কৃষকদের যে কোন ধরণের সহযোগিতা করার চেষ্টা করবে যুবলীগের নেতাকর্মীরা। আর করোনা সংকটে থাকা কর্মহীন, অহসায় মানুষদেরও সহযোগীতা করা অব্যাহত রেখেছে যুবলীগের।
কৃষক আলী আশসাদ বলেন, এবার ধানের ভালো ফলন হয়েছে। আমি গরিব মানুষ। আয় রোজগারও কম। একদিকে করোনাভাইরাসের ভয়। অন্যদিকে বন্যার ভয়ও ছিল। যার কারণে দ্রæত ধান কেটে ঘরে তুলতে পারব কিনা তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলাম। পরে এই বিষয়টি আমি আমার এলাকার সন্তান কচুয়া কাদলা ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক মো. সফি উল্লাহ সফিকে জানাই। পরে তিনি আমার ধান কেটে দেওয়ার কথা বলেন। সকালে এসে কচুয়া উপজেলার যুবলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র মো. নাজমুল আলম স্বপন, সাধারন সম্পাদক মো.শাহ জালাল উদ্দিন প্রধান, কাদলা ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক মো. সফি উল্লাহ সফি, যুগ্ন-আহবায়ক মো. কামাল হোসেন মজুমদার কয়েকজন নেতা মিলে আমার ধান কাটা শুরু করেন। বিপদের সময় তারা ধান কেটে আমার যে উপকার করেছেন, এজন্য আমি তাদের কাছে আজীবন কৃতজ্ঞ থাকব।
এ সময় সামিজ দূরুত্বে বজায় রেখে কচুয়া উপজেলার সভাপতি ও পৌর মেয়র মো. নাজমুল আলম স্বপন, সাধারন সম্পাদক মো.শাহ জালাল উদ্দিন প্রধান, দপ্তর সম্পাদক মাইনদ্দিন সবুজ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক মো. মোফাচ্ছেল খান, কাদলা ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক মো. সফি উল্লাহ সফি, যুগ্ন-আহবায়ক মো. কামাল হোসেন মজুমদার, মো. আমির হোসেন, সদস্য সবুজ ফরাজী, গিয়াস উদ্দিন, সাইদ বেপারী, ফারুকুল ইসলামসহ স্থানীয় যুবলীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.