কচুয়ায় গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, স্বামী-ভাবী গ্রেফতার

কচুয়া প্রতিনিধি :
কচুয়ার করইশ গ্রামে বুধবার রাতে সীমা আক্তার (২২) নামের এক গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে স্বামী নাছির উদ্দিন ও ভাবী খালেদা আক্তারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সে একই উপজেলার কেশরকোট গ্রামের মিলন মিয়ার মেয়ে।
এ ঘটনায় সীমার মা বিলকিছ আক্তার প্রকাশ খুকি বাদী হয়ে কচুয়া থানায় অভিযোগ করলে অভিজ্ঞ অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মহিউদ্দিন হত্যা মামলা রুজু করেছে। যাহার মামলা নং-১৮ তারিখঃ ১৮/০২/২০২১ ইং।
মামলার অভিযোগে প্রকাশ বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সন্ধা সাড়ে ৬ টায় নাছির উদ্দিন ও তার বড় ভাইয়ে স্ত্রী খালেদা বেগম (৩০) তারা দু”জন পরকীয়া প্রেমের আসক্তিতে সীমা দেখতে পেয়ে প্রতিবাদ করলে তাকে মারধর,কিল-ঘুষিসহ শ্বাসরোধ করে মেরে গলায় রশি বেঁধে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রাখে। সীমার মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে মামলার বাদিনীর ছোট ভাই সফিক ঘটনাস্থলে ছুটে এসে দেখতে পায় ভাগ্নীর হাটু বাঁকা অবস্থায় ঝুলন্ত লাশ। সফিক এ অবস্থা দেখে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে সীমার মৃতদেহ উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুর মর্গে প্রেরন করে। অভিযোগে আরো উল্লেখ থাকে যে, ইসলামি সরিয়ামত প্রায় ২ বছর পূর্বে নাছির উদ্দিনের সাথে সীমার বিবাহ হয়। এর আগেও নাছির উদ্দিন আরেকটি বিয়ে করেছিলো। সীমার সাথে বিয়ের পর নাছির উদ্দিন ওই বড় ভাইয়ের স্ত্রীর সাথে পরকীয়া প্রেমে আসক্ত ছিলো। সীমা দফায় দফায় প্রতিবাদ করলে তাকে নির্যাতন করে আসছিলো। পুলিশ নাছির উদ্দিন ও তার বড় ভাইয়ের স্ত্রী খালেদা বেগমকে গ্রেফতার করে চাঁদপুর কোর্টে প্রেরন করে।
সরেজমিনে জানা গেছে, সীমা আক্তরের সাথে করইশ গ্রামের ইলিয়াস মিয়ার ছেলে নাছির উদ্দিনের সাথে দুই বছর পূর্বে সামাজিক ভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাদের উভয়ের মাঝে বিভিন্ন সময়ে পারিবারিক কলহ সৃষ্টি হয় । সোমবার রাতে নাছির উদ্দিন পরিকল্পিত ভাবে তার স্ত্রী সীমাকে হত্যা করে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রাখে বলে সীমা আক্তারের মা বিলকিছ বেগম ও মামা রফিকুল ইসলামসহ নিহত পরিবার দাবি করেন।
কচুয়ার থানা ওসি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গতকাল বৃহস্পতিবার চাঁদপুর মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলা দায়ের করা হয়েছে। আমরা মামলা নিয়েছি তদন্ত চলবে এবং ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে বলা যাবে একি হত্যা নাকী আত্মহত্যা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *