কচুয়ায় ডুুমুরিয়া ও দরিয়া হয়াতপুর গ্রামের রাস্তার বেহাল দশা

কচুয়া প্রতিনিধি :
কচুয়া উপজেলার ৯নং কড়ইয়া ইউনিয়নের প্রায় ১-২ গ্রামের মানুষ চলাচলের রাস্তাটি দিন দিন নিঃশেষ হয়ে যাচ্ছে দেখার যেন কেউই নেই। এলাকাবাসীরা চরম দুর্ভোগের শিকার।
দেখা যায়, রাস্তাটিতে একেবারেই চলাচলের অযোগ্য অবস্থায় পড়ে রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে রাস্তায় জমা কাঁদা পানির মধ্যে ছোট বড় যানবাহন চলাচল করতে গিয়ে ছোট বড় বিভিন্ন দুর্ঘটনা ঘটছে।
দেশ যখন উন্নয়নের মহাসড়েকে চলছে, তখন উপজেলার কড়ইয়া ইউনিয়নের ডুুমুরিয়া ও দরিয়া হয়াতপুর এই ২ গ্রামের মানুষের জেন ভোগান্তির শেষ নেই। যেন মনে হচ্ছে এই এলাকার গ্রামবাসীরা অন্য দেশে বসবাস করে। উন্নয়নের মহাসড়ক থেকে যেন এলাকাবাসী ছিটকে পড়ছে নাম না জানা অন্য আরেক দেশে। ডুুমুরিয়া উওর পাড়া জাহাঙ্গীর (মেম্বার) বাড়ি থেকে দরিয়া হয়াতপুর বাজার এবং দরিয়া হয়াতপুর বাজার থেকে এমরান মিয়ার বাড়ি পর্যন্ত ১ কি.মি. কাঁচা রাস্তার সংস্কার নেই দীর্ঘদিন ধরে।
ফলে রাস্তার বড় বড় গর্তগুলো এখন এক একটি বিষপোঁড়া। একটু বৃষ্টি হলেই জমে যায় পানি, হয়ে যায় কর্দমাক্ত ফসলের মাঠের মত। এলাকাবাসীর এই রাস্তা ধরেই যাতায়াত করতে হয় উপজেলা সদরে।
উপজেলার কড়ইয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ও ৯নং ওয়ার্ডের দরিয়া হয়াতপুর এবং ডুুমুরিয়া গ্রামের রাস্তা। কিন্তু বর্তমানে এই রাস্তাটি গাড়ি (রিক্সা, সিএনজি, ইজিবাইক) চলাচলের জন্য সম্পুর্ণভাবে অনুপযোগী। বৃষ্টি হলে কাঁদায় সাধারণ মানুষ পায়ে হেঁটেও এই রাস্তা ব্যবহার করতে পারছেনা।
কচুয়া উপজেলার মধ্যে কড়ইয়া ইউনিয়নের ডুুমুরিয়া ও দরিয়া হয়াতপুর গ্রামটি অবহেলিত। ভোটের সময় ভোট আর পরে তেমন খবর নেওয়ার সময় পায়না জনপ্রতিনিধিরা অভিযোগ এলাকাবাসির।
কচুয়া সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী মোঃ সোহাগ হোসেন বলেন,র্দীঘদিন থেকে দেখে আসছি রাস্তাটি শুধু মাপযোগ হচ্ছে কিন্তু রাস্তা করার কোন খবর নাই। রাস্তাটি পাঁকা হওয়া খুব জরুরি। কারণ জনপ্রতিনিধিদের বলে বলে হয়রান হয়েগেছি আর বলতে পারছি না।
ডুুমুরিয়া গাউছিয়া আলিম মাদ্রাসার শিক্ষার্থী মোঃ ইকবাল, মোঃ হাবিব, মোঃ বোরহান জানায়, বৃষ্টি হলে ওই রাস্তা দিয়ে ৩-৪ হাতও যাওয়া যায় না। তার পরেও রাস্তা বাদ দিয়ে অন্যের বাড়ি দিয়ে মাদ্রাসায় যেতে হয়। অনেক সময় অন্যের গালাগালিও খেতে হয়।
রিক্সাচালক ফারুক বলেন, এখনও বর্ষা শুরু হয়নি তাতেই এই অবস্থা। দেশে অনেক উন্নয়ন হয়েছে হচ্ছে আশা করি এই রাস্তাটি পাঁকা করার বিষয়ে সংশিষ্টরা দ্রুতসীদ্ধান্ত নিবেন।
দরিয়া হয়াতপুর গ্রামের ব্যবসায়ী মোঃ সোহেল রানা বলেন, দেশে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। কচুয়ায়ও অনেক এলাকার রাস্তা পাকা হয়েছে যে গুলো রাস্তায় মানুষ চলাচল করে না। অথচ দরিয়া হয়াতপুর ও ডুুমুরিয়া গ্রামের রাস্তাটি জনবহুল হওয়া সত্তেও পাঁকা হচ্ছে না। আমরা চাই রাস্তাটি দ্রুত পাকা হোক সাধারন মানুষের দূভোগ কমুক।
মোঃ সোহাগ বলেন, আমাদের এলাকায় ডজনে ডজনে নেতা থাকার পরও কোন নেতা রাস্তাটির সমস্যা সঠিক জায়গাতে না যাওয়ায় পাঁকা হচ্ছে না। ফলে এলাবাসির দূর্ভোগের যেন শেষ নেই। সামান্য বৃষ্টিতে রাস্তাটি চলাচলে অনুপযোগি হওয়ায় বিশেষ করে মাদ্রাসা, বিদ্যালয়, কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা পড়েন বিপাকে।
স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, উপজেলা চেয়ারম্যান এবং এমপি মহোদয়ের নিকট ভুক্তভোগী এলাকাবাসীর আকুল আবেদন অতি শীঘ্রই এই রাস্তাটির বাজেট প্রনয়ণ করে রাস্তাপাঁকা করনের জোর দাবি জানাচ্ছি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *