কচুয়ায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার নতুন ঘর পেয়ে খুশি ১৭ পরিবার

কচুয়া প্রতিনিধি :
সহায় সম্বলহীন কামাল হোসেন, পেশায় একজন কৃষক। স্ত্রী সন্তান নিয়ে যখন তার বসবাসের কোনো উপায়ান্ত ছিলো না। সে সময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার ঘর পেয়ে খুশিতে আত্মহারা সে। বর্তমানে স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে এখন আর অন্যকিছু চিন্তা করতে হয় না তার। পরিবার পরিজন নিয়ে এখন সুখে আছেন কামালের মতো কচুয়ায় ১৭টি পরিবার।
আশ্রয়নের অধিকার,শেখ হাসিনার উপহার এই স্লোগানে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার আশ্রায়ন প্রকল্পের আওতায় দেশের অন্যান্য উপজেলার ন্যায় ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে চাঁদপুরের কচুয়ার সীমান্তবর্তী এলাকা বজুরীখোলা গ্রামে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় প্রথম পর্যায়ে প্রতিটি ঘরে ১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা করে ১৫টি পরিবারকে ৩৫ শতাংশ ভূমির উপর নির্মাণ করেন এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে কাদলা ইউনিয়নে দেবীপুর গ্রামে ২টি ঘরে ১ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা করে দেয়া হয়। যা আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলতি বছরের ২০ জানুয়ারি ভাচুয়ালি পদ্ধতিতে শুভ উদ্বোধন করেন।
উপকারভোগী পরিবারগুলো হচ্ছে- কামাল হোসেন,মনি আক্তার,রহিমা বেগম,রাবেয়া বেগম,ইউসুফ মিয়া,রাজিয়া খাতুন,সফিক মিয়া,মকবুল হোসেন,বাদশা মিয়া,সুমি আক্তার,সুমি বেগম,আমির হোসেন,রুহুল আমিন,বিল্লাল হোসেন,শ্যামল চন্দ্র মন্ডল,দেবীপুরের পেয়ারা বেগম ও আনোয়ার হোসেন।
বজুরীখোলা গ্রামের কামাল হোসেন,সফিক মিয়া ও সুমি আক্তার সহ আরো কয়েকজন উপকারভোগী সদস্যরা জানান, আমরা খুবই অসহায় পরিবারের সদস্য ছিলাম। আমাদের স্বল্প ভূমি থাকলেও তাতে ঘর নির্মানের পরিবেশ কিংবা অর্থ ছিল না। কিন্তু মানণীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের যে আশ্রায়নের ঘর উপহার দিয়েছেন এতে আমরা খুবই উপকৃত হয়েছি। আমরা আশ্রয়নের পক্ষে থেকে মানণীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি’র আন্তরিক প্রচেষ্টায় ও জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ,কচুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) সুলতানা খানম,উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপায়ণ দাস শুভ,উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী মোহাম্মদ আশেকুর রহমান,কাদলা ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম লালু, সাচার ইউপি চেয়ারম্যান মনির হোসেন, ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মো. নুরুল ইসলাম সোহাগ ও ইউপি সদস্য মো. আব্দুল মতিন সহ সকলের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাই।
স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল মতিন বলেন, দীর্ঘ যাচাই-বাছাই শেষে বজুরীখোলা গ্রামে ১৫টি পরিবারকে ঘর উপহার দেয়ায় এলাকাবাসীর পক্ষে মানণীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও কচুয়ার উন্নয়নের রূপকার জননেতা ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপিকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।
কচুয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপায়ণ দাস শুভ জানান, ‘আশ্রয়ণের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার’ মুজিববর্ষে এই শ্লোগান বাস্তবায়নের লক্ষ্যে উপজেলার বজরীখোলা গ্রামে খাস জমিতে গৃহহীন, ভূমিহীন ও ছিন্নমূল পরিবারকে দুই শতক জমিসহ ঘর নির্মাণ করে দেয়া হচ্ছে। ঘরগুলো নির্মিত হচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায়। প্রথম পর্যায়ে ১৫টি পরিবারকে আবাসন ও দ্বিতীয় পর্যায়ে আরো ২টি সরকারি ঘর প্রদান করা হয়। এছাড়াও বজুরীখোলা গ্রামে নতুন করে ২৬টি পরিবারকে ঘর দেয়ার লক্ষে সকলের সহযোগিতা চাই।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *