কচুয়ায় বাদী ও সালিশিদের উপর আসামীদের হামলা, আহত ৪

মানিক ভৌমিক :
কচুয়ায় বাড়ির উপর দিয়ে যাতায়াতের জের ধরে অতর্কিত হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছেন ৪ জন। আহতরা হলেন : বাদী মোঃ মিজান (৫০), মাওলানা মুফতি রহমত উল্লাহ (৪২), এনামুল হক (৪৫), ইয়াহিয়া খান মানিক (২২)।
ভুক্তেভাগীদের অভিযোগ, করইশ উত্তর পাড়া মজুমদার বাড়ির ইসলামী কমপ্লেক্স জামে মসজিদের পাশের বাড়ির উপর দিয়ে যাতায়াতের পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একই বাড়ির ১. রুহুল আমিন (৪২), ২. দেলোয়ার (৪৫), ৩. জাহিদ (৩০), ৪. আলম (২৮), ৫. সাফারুল্লাহ (৪০), ৬. মহিন (২৩), ৭. ইমন (১৯), ৮. হাসান (১৮) লাঠি-সোঠা ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মিজান ও তার পরিবারের উপর অর্তকিত হামলা চালায়।
এ ঘটনায় মিজান বাদী হয়ে কচুয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
এজহারে বলা হয়, হামলাকারীরা প্রতিনিয়ত নিজের মনগড়া ভাবে এলাকার বিভিন্ন মানুষের ক্ষয়-ক্ষতি ও ভয়-ভীতি এবং হুমকি-ধমকি প্রদান করে আসছে। আমার বাড়ির উপর দিয়ে যাতায়াতকে কেন্দ্র করে বিবাদীদের সাথে আমার পরিবারের পূর্ব থেকে বিরোধ চলে আসছে। বিবাদীরা কথায় কথায় বিভিন্ন অজুহাত দিয়ে আমাদের সাথে ঝগড়ায় লিপ্ত হয়। তারই সুত্র ধরে গত ২৫/০৪/২০ ইং সকাল ৯টায় ১,২,৩,৪,৬ ও ৭ নং বিবাদীরা আমার বাড়ি সহ আমাকে ও আমার পরিবারের লোকজনের উপর হামলা চালায় এবং দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মারধর করে। উক্ত ঘটনার সংক্রান্তে আমি স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিদের নিকট বিচার প্রার্থী হলে স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ গত ২৭/০৪/২০ইং রাত ০৯টায় ঘটনাস্থলে গিয়ে সালিশে বসে। সালিশ চলাকালীন সময়ে বিচার না মেনে রাত ১১টায় ১ ও ২ নং আসামী উত্তেজিত হয়ে আমাকে গাল-মন্দ করা শুরু করে। এতে উপস্থিত সালিশীগণ উক্ত আসামীদের চুপ থাকতে বললে তারা আরো বেশি উত্তেজিত হয়ে আমাকে আরো অকর্থ্য ভাষায় গাল মন্দ করার সাথে সাথে আমার উপর আক্রমণ করে। এতে সালিশীগণ ও ১নং স্বাক্ষী আমার ছোট ভাই মুফতি রহমত উল্লাহ আমাকে রক্ষা করতে আসলে ১নং আসামী রুহুল আমিন সহ উল্লেখিত সকল আসামী তাদের হাতে থাকা কালো স্টিলের টর্চলাইট দিয়ে আমার ছোট ভাইয়ের মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে এবং সালিশীদের উপর অর্তকিত হামলা চালায়। ২, ৩ ও ৪ নং স্বাক্ষী আমাকে, আমার ছোট ভাই ও সালিশীদের রক্ষা করতে আসলে ১নং আসামী সহ অন্যান্য আসামীরা বেআইনি জনতাবদ্ধ হয়ে লাঠি, সোঠা, দা ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে হামলা চালিয়ে গুরতর নীলাফুলা জখম করে। এমতাবস্থায় উপস্থিত সালিশীগণ ১, ২, ৩ ও ৪নং স্বাক্ষীদেরকে আহত অবস্থায় কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করায়।
এছাড়াও বিবাদী ও তার অন্যান্য সহযোগীরা মামলা মোকাদ্দমা করলে আমাদের প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে। আমরা উক্ত বিষয়টি স্থানীয় সকল গন্যমান্য ব্যক্তিদের সাথে পরামর্শ করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করছি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.