কচুয়ায় ৬ কোটি টাকার স্কুল ভবন নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ, প্রকৌশলীকে প্রত্যাহার দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুরের কচুয়ায় ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে শহীদ স্মৃতি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ তলা ভবন নির্মাণ কাজে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ভবনে নির্মাণ কাজে চালনি ছাড়াই বালু ও মাটি মিশ্রিত নিন্মমানের পাথর ব্যবহার, রড কম দেয়া, শিডিউল অনুযায়ী কাজ না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা। আর এ স্থানীয়দের মধ্যে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও সমর্থকরাই বেশি। তারা বলছেন, ঘটনার প্রতিবাদ করায় উপজেলা চেয়ারম্যানসহ স্থানীয়দের মামলা দিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন তারা। মানববন্ধনে তারা অবিলম্বে হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহার ও শিক্ষা প্রকৌশলের প্রকৌশলী নূর আলমের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন।
মানববন্ধনে স্থানীয়রা বলেন, ভবনের ফাউন্ডেশন কাজেই অনেক অনিয়ম হয়েছে। রডও কম দেয়া হয়েছে। নির্মাণ কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে মাটি মিশ্রিত নিন্মমানের পাথর। এসব অনিয়ম স্থানীয়দের কাছ থেকে আড়াল করার জন্য ভবনের ঢালাই কাজ করা হয় রাতের অন্ধকারে। আমরা বিষয়টি সম্পর্কে একাধিকবার উপজেলায় অভিযোগ করেছি। কিন্তু তাতে কোন লাভ হয়নি।
মানববন্ধনে তারা অভিযোগ করে বলেন, ঠিকাদার ও ইঞ্জিনিয়ারের যোগসাজসে স্কুল ভবনের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা নির্মাণে এ ধরনের অনিয়ম মেনে নেয়া যায় না। আমরা ভবন নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার পর থেকেই অনিয়ম দেখে আসছি। বিষয়টি সম্পর্কে ব্যবস্থা নিতে একাধিকবার উপজেলা চেয়ারম্যানসহ স্থানীয় প্রশাসনকে অনুরোধ করি। কিন্তু তাতেও কাজে অনিয়ম বন্ধ হয়নি। এতে করে বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে স্থানীয়রা। সবশেষ স্থানীয়দের চাপে পড়ে ভবন নির্মাণে অনিয়ম বন্ধ করার আহ্বান জানান উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির। অনিয়ম বন্ধে ব্যবস্থা নিতে শিক্ষা প্রকৌশলের ইঞ্জিনিয়রকে আহ্বান জানান। কিন্তু তাতেও কাজ না হওয়ায় আরও ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে স্থানীয় লোকজন। পরে উপজেলা চেয়ারম্যান সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী ও ঠিকাদারের দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলায় তার বিরুদ্ধে স্বড়যন্ত্রমূলকভাবে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আমরা এই মিথ্যা মামলায় উপজেলা চেয়ারম্যানের নিঃস্বর্থ মুক্তি চাই।
মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজালাল প্রধান, কচুয়া পৌরসভার প্যানেল চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোফাচ্ছের খান, সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি ইঞ্জি. ইব্রাহীম খলিল, কচুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন সবুজসহ উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা লীগের নেতাকর্মীরা। উল্লেখ্য, গত — তারিখে এ বিষয়ে বাক বিতন্ডতায় উপজেলা চেয়ারম্যান সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীকে ইউনিয়নের সাননেই মারধর করেন। পরে প্রকোশলী তার উর্ধ্বতনের নিদর্শে উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ে করেন।
এ বিষয়ে শিক্ষা প্রকৌশলের উপসহকারী প্রকৌশলী নূর আলম বলেন, মাটি মিশ্রিত যে পাথরের অভিযোগ এসেছে তা আমরা দেখেছি। সেগুলো সাইটে আনার পর আমরা তা ব্যবহার না করার নির্দেশনা দিয়েছি। তাছাড়া যেসব অনিয়মের অভিযোগ আনা হয়েছে তা সঠিক নয়।
উল্লেখ্য, ৬ কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে ৬ তলা ভিত বিশিষ্ট কচুয়া শহীদ স্মৃতি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের নির্মাণ কাজ দরপত্রের মাধ্যমে পায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান অনন্ত ট্রেডার্স (জেবি)। এ কাজের তত্ত্বাবধান করে আসছেন ঠিকাদারের লোক আশরাফুল আলম।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *