কর্তব্যরত অবস্থায় জীবন উৎসর্গকারী ২১ পুলিশকে সম্মাননা

কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত পুলিশ সদস্যদের পরিবারের ছেলে-মেয়েদের কর্মসংস্থান নিশ্চিতে কাজ করছি : পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান পিপিএম বার

নিজস্ব প্রতিবেদক :
পুলিশ মেমোরিয়াল ডে ২০২১ উপলক্ষে কর্তব্যরত অবস্থায় জীবন উৎসর্গকারী পুলিশ সদস্যদের সম্মাননা প্রধান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গতকাল সোমবার সকালে জেলা পুলিশের আয়োজনে চাঁদপুর পুলিশ লাইন্স হলরুমে এ সম্মাননা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পুলিশ সুপার (সদ্য পদোন্নতি প্রাপ্ত অতিরিক্ত ডিআইজি) মাহবুবুর রহমান পিপিএম বার।


তিনি তার বক্তব্যে বলেন, চাঁদপুরের রাস্তাগুলোয় পড়ে আছে একুশটি টকটকে লাল শিমুল ফুল বাতাসে মিষ্টি গন্ধ। আজ আমরা একটি আবেগপ্রবণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পেরে মহান আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া জানাচ্ছি। যে ২১ জন পুলিশ মারা গিয়েছে তাদেরকে মৃত বলা যাবেনা, তারা সর্বদা আমাদের মাঝে রয়েছে। পুলিশ যখন ইউনিফর্ম পরে এই ব্রত নিয়ে কাজ করে যে, আপামর জনসাধারণের জন্য নিজেদের চেতনাকে বিলিয়ে দিয়ে সকল বিষয়কে সমন্বিত রাখার চেষ্টা করবে। মানুষ বাঁচে ভালোবাসা ও আশা নিয়ে, এই চিন্তা জীবনকে অনেকটা এগিয়ে নিয়ে যায়। মহান মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারী ব্যক্তিদের তালিকায় পুলিশ সদস্যদের নাম রয়েছে। আত্মদান শুধুমাত্র বীর সন্তানদের দ্বারাই সম্ভব।
তিনি বলেন, যতদিন আমরা বেঁচে আছি নিহত পুলিশ সদস্যদের পরিবারের পাশে থাকবো। আমরা নিহত পুলিশ সদস্যদের পরিবারের ছেলেমেয়েদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে কাজ করছি এবং করে যাবো। কারণ, আমরা জানি একটি কর্মসংস্থানই পরিবারে সুখ শান্তি এনে দিতে পারে। প্রকৃতপক্ষে আমরা যদি নিহত পুলিশ সদস্যদের পরিবার কে সহযোগিতা করতে চাই। তাহলে তাদের ছেলেমেয়েদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিতে হবে।
বর্তমানে বাংলাদেশে চিকিৎসক, সাংবাদিক ও পুলিশ ওতপ্রোত ভাবে মানুষের পাশে এসে তাদের দায়িত্ব পালন করে থাকে। আমরা আমাদের দায়িত্ববোধ থেকে কাজ করে গেলে এদের সোনার বাংলায় পরিণত হবে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে যেদিন থেকে পোশাক পড়েছি, সে দিন থেকে ব্রত করেছি মানুষের সেবা করে যাবো। দেশের মানুষের জন্য যারা কাজ করতে গিয়ে জীবন দিয়েছেন, আমরা সেই সকল পুলিশ সদস্যদের পরিবারের অশ্রুশিক্ত কষ্টের কথা জানতে পারেছি। পুলিশ মেমোরিয়াল ডে এর অনুষ্ঠানে চাঁদপুরের ২১ জন পুলিশ পরিবারের সদস্যের সম্মান দেওয়ার চেষ্টা করেছি। আমরা সেই সকল পুলিশ সদস্যদের স্মরণ করে সম্মান জানিয়েছি।
তিনি আরো বলেন, করোনাকালীন সময়েও আমাদের ৪৮ জন পুলিশ সদস্য আত্মদান করেছেন। যারা দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে জীবন উৎসর্গ করেছেন- তাদের পরিবারের জন্য আমরা কিছু করতে চাই। পুলিশ, সাংবাদিক আর চিকিৎসকরা সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করে। কাজের উপরই কিন্তু জীবন বড় একটি সাফল্য কাজ করে। আমরা চেষ্টা করবো ওই সকল পরিবারের সদস্যদের জন্য একটি নির্দিষ্ট কার্ড করে দেওয়ার জন্য। যার দ্ধারা চিকিৎসার সকল বিষয়সহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা ভোগ করবে। এছাড়া পরিবারের সন্তানদের কিভাবে সহযোগিতা করে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়, তার চিন্তাও আমাদের রয়েছে। সব কিছুর মধ্যে বিশ্বাস স্থাপন করে এগিয়ে যেতে হবে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার) মো. আসাদুজ্জামানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা, জেলা কমিউনিটি পুলিশিং এর সভাপতি ডা. মো. শহীদ উল্লাহ, জেলা কমিউনিটি পুলিশং এর সাধারণ সম্পাদক সুফি খায়রুল আলম খোকন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিলন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এএইচএম আহসান উল্লাহ, পৌর কমিউনিটি পুলিশিং এর সভাপতি শেখ মনির হোসেন বাবুল, সাধারণ সম্পাদক জামাল হোসেন।
এ সময় বিভিন্ন উপজেলার সাংবাদিকের মধ্যে বক্তব্য রাখেন হাজীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি খালেকুজ্জামান শামিম, কচুয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি মানিক ভৌমিক, শাহরাস্তি প্রেসক্লাবের সভাপতি হুমায়ুন কবির, ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি কামরুজ্জামানসহ বিভিন্ন পর্যায়ের সাংবাদিকবৃন্দ।
পুলিশ মেমোরিয়াল ডে ২০২১ উপলক্ষে আলোচনা সভা শেষে কর্তব্যরত অবস্থায় জীবন উৎসর্গকারী পুলিশ সদস্যদের পরিবারের মাঝে সম্মাননা ক্রেস্ট ও উপহার সামগ্রী বিতরণ করেন পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান পিপিএম বার ও অতিথিবৃন্দ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *