গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে চাঁদপুর জেলা আ.লীগের আলোচনা

আশিক বিন রহিম :
একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। ২১ আগস্ট শনিবার সকালে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা, দলীয় পতাকা ও কালাে পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়। পতাকা উত্তোলন শেষে গভীর শ্রদ্ধায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করেন দলীয় নেতা কর্মীরা।
এরপর দলীয় কার্যালয়ে আলােচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদের সভাপ্রতিত্বে বক্তব্য রাখেন, সাবেক সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ড. মােহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল।


নাছির উদ্দিন আহমেদ তার বক্তব্যে বলেন, স্বাধীনতা বিরােধীরা এখনও নানাভাবে ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। তারা দেশের উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করার জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে। শুধু তাই নয়, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করার জন্য এখনাে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। স্বাধীনতা বিরােধী এই প্রেতাত্বারা আগস্ট মাসেই নির্মমভাবে হত্যা করেন
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারবর্গকে। সে দিন ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান তার দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও রেহানা।

তিনি আরো বলেন, ঘাতক চক্র জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করার জন্য একের পর এক হত্যা চেস্টা চালিয়ে আসছে। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট তৎকালীন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের প্রত্যক্ষ সহযােগিতায় জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করার জন্য বর্বরােচিত গ্রেনেড হামলা করা হয়। সেদিনের হামলায় মহিলা আওয়ামী লীগ
নেত্রী আইভি রহমানসহ ২৪ জন নেতা-কর্মী শহীদ হন। হাজার হাজার নেতা কর্মী আহত হন। আল্লাহর রহমতে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রাণে বেঁচে যান।
তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর কন্যা আজ এদেশের রাষ্ট্র প্রধান। তিনি রাষ্ট্র ক্ষমতায় অংগছেন বলেই
আমরা নেতা হতে পেরেছি। তাই অনুরােধ থাকবে নিজের স্বার্থের চিন্তা না করে, দলকে ভালােবাসেন, ত্যাগী নেতা-কর্মীদের মূল্যায়ন করেন। তাহলেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন হবে।
জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. জহিরুল ইসলামের পরিচালনায় আরাে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মােঃ শাহ আলম মিয়া, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডঃ রুহুল আমিন সরকার, আওয়ামী লীগ নেতি রফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া, অ্যাডঃ জসিম পাটওয়ারী, জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মিজানুর রহমান ভূঁইয়া কালু, যুগ্ম আহ্বায়ক মােঃ আবু পাটওয়ারী, জেলা মৎসজীবী লীগের সভাাতি আব্দুল মালেক দেওয়ান, পৌর আওয়ামি লীগের সহ-সভাপতি ছিদ্দিকুর রহমান ঢালী, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস মাের্শেদ জুয়েল, সহ-সভাপতি ফারুক আহমেদ ভূঁইয়া, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক পারভেজ করিম বাবু, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী রেনু বেগম প্রমুখ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *