চাঁদপুরে অক্সিজেন প্লান্টের জন্যে এসে গেছে লিকুইড অক্সিজেন

আশিক বিন রহিম :
অবশেষে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতাল উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন অক্সিজেন প্লান্টের জন্য লিকুইড অক্সিজেন চট্টগ্রাম থেকে এসে চাঁদপুরে পৌঁছেছে।
২ আগস্ট রাত ৮টায় চট্টগ্রাম থেকে ইস্পেক্ট্রার একটি বিশাল লরিতে করে ৮হাজার লিটার লিকুইট অক্সিজেন চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে পৌঁছায়। এরপর থেকেই দায়িত্বরত টেকনিশিয়ানরা লরির ট্রাংকি থেকে অক্সিজেন প্লান্টে লিকুইড অক্সিজেন ট্রান্সফার করে।

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. হাবিব উল করিম জানান, এটি খুবই আনন্দের খবর যে অবশেষে অক্সিজেন প্লান্টের জন্যে দীর্ঘ প্রতীক্ষার লিকুইড অক্সিজেন আমাদের হাসপাতালে পৌঁছেছে। এটি টান্সফার করার পর দুই ঘণ্টার মধ্যেই হাসপাতালে করনা ইউনিট এ অক্সিজেন সরবরাহ করা সম্ভব হবে।

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে গত ৩/৪ মাস পূর্বে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ৫১ লাখ ৬০ হাজার মিলিলিটারের লিকুইড অক্সিজেন প্ল্যান্টের কাজ শুরু করা হয়। শ্রমিকরা গত দুই আড়াই মাস ধরে টানা কাজ করেছেন। লিকুইড অক্সিজেন স্থাপনের ভবন এবং অক্সিজেন সংরক্ষন করার ট্যাংকির কাজও সম্পন্ন করা হয়। একই সাথে বেকওয়াম প্লান, কমরেষ্ট ইয়ার প্লান ও অটোমেটিক মেনিহোল কন্ট্রোল বোর্ডসহ অক্সিজেন প্লান্টের যত প্রকার কাজ রয়েছে তা এক দেড় মাস পূর্বেই সম্পন্ন করা হয়। মূল প্ল্যান্টটিতে তৈরি হবে ছয় হাজার লিটারের অক্সিজেন গ্যাস। যা অক্সিজেনে রূপান্তর হয়ে ৫১ লাখ ৬০ হাজার মিলিলিটারে দাঁড়াবে।‘

পূর্বে থেকে বর্তমানে সময়ে চাঁদপুরে করোনা ভাইরাসের উচ্চ সংক্রমণ ঝুঁকি থাকায়। এতে অক্সিজেনের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায়, কুমিল্লা থেকে প্রায় প্রতিদিনই চাহিদা অনুযায়ী অক্সিজেন আনতে অতিরিক্ত সময় ও অর্থ ব্যয় করতে হচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের । যার কারণে চাঁদপুরেই স্থাপন করা হয়েছে এই লিকুইড অক্সিজেন প্ল্যান্ট।

২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে প্ল্যান্টটি বসানোর কাজে অর্থায়ন করছে ইউনাইটেড ন্যাশন ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেন্স ইমার্জেন্সি ফান্ড (ইউনিসেফ) এবং বাস্তবায়ন করছে সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *