চাঁদপুরে করোনা উপসর্গে ১১ মৃত্যু, আক্রান্ত ৩৩৫

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুর ২৫০ শয্যার সরকারি জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে গত ২৪ ঘন্টায় ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার দুপুর ২টা থেকে মঙ্গলবার দুপুর ২টা পর্যন্ত এসব মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। তারা সবাই করোনার উপসর্গে ভুগছিলেন। সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ও করোনা বিষয়ক ফোকালপার্সন ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল এ তথ্য জানান।
২৪ ঘন্টায় মৃতরা হলেন : চাঁদপুর সদরের বহরিয়ার রঘুনাথপুর এলাকার আঃ লতিফ (৬৫), ফরিদগঞ্জের রূপসার ঘোড়াশাল এলাকার আয়েশা বেগম (৭০), চাঁদপুর সদরের দক্ষিণ বাগাদীর শাহিদা (৭০), বালিয়ার ফরক্কাবাদ এলাকার হোসনেয়ারা (৫৫), চাঁদপুর শহরের নতুনবাজারের মেথা রোডের কালিপদ কর্মকার (৫৮), শাহরাস্তির আশ্রাফপুরের হোসেনপুর এলাকার সুফিয়া (৮৫), মতলব দক্ষিণের মাছুয়াখাল এলাকার শরিফ ঢালী (৬৫), হাজীগঞ্জের বাকিলার শ্রীপুর এলাকার আঃ মজিদ (৯০), মতলব উত্তরের মান্দারতলী এলাকার আঃ সোবহান (৯০), মতলব দক্ষিণের খাদেরগাও ইউনিয়নের লামচরী এলাকার মনি রাণী (৫৫), মতলবের আশ্বিনপুর এলাকার মাকসুদা (৩৬)।
এদিকে চাঁদপুরে আরও ৩৩৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। ২ আগস্ট সোমবার ৮৬১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৩৩৫ জনের রিপোর্ট পজেটিভ আসে। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে আরও দুই জনের।
স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, সোমবার আক্রান্তদের মধ্যে চাঁদপুর সদর উপজেলায় ১০০ জন, ফরিদগঞ্জে ৩৯ জন, হাজীগঞ্জে ৪২ জন, মতলব উত্তরে ১০ জন, মতলব দক্ষিণ ২২, কচুয়ায় ১৯ জন, হাইমচরে ৩৭ জন শাহরাস্তিতে ৬৬ জন।
এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১০ হাজার ৫৫৩ জন। বর্তমানে জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ১৭৩ জন। ২ আগস্ট পর্যন্ত আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৭ হাজার ৩৯ জন। এ তথ্য জানিয়েছেন সিভিল সার্জন ডা. মো. সাখাওয়াত উল্লাহ।
২ আগস্ট পর্যন্ত জেলায় আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৪৫৪৪ জন, হাইমচরে ৫৪৬ জন, মতলব উত্তরে ৫৫৭ জন, মতলব দক্ষিণে ৮৮২ জন, ফরিদগঞ্জে ১২১৭ জন, হাজীগঞ্জে ১০৬১ জন, কচুয়ায় ৪৪৬ জন, শাহরাস্তিতে ১৩০০ জন।
মৃত ১৭৩ জনের মধ্যে সদর উপজেলায় ৬৪ জন, ফরিদগঞ্জে ২৭ জন, হাজীগঞ্জে ২৫ জন, শাহরাস্তিতে ২২ জন, কচুয়ায় ৮ জন, মতলব উত্তরে ১৩ জন, মতলব দক্ষিণে ১০ জন, হাইমচরে ৪ জন।
জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, এ পর্যন্ত জেলায় পরীক্ষা করা হয়েছে ৪৪ হাজার ৪৭১ জনের। এর মধ্যে পজেটিভ ১০ হাজার ৫৩৪ জন আর নেগেটিভ ৩৩ হাজার ৯৩৭ জনের রিপোর্ট। করোনা আক্রান্তদের মধ্যে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩৩৪১ জন। এদের মধ্যে ১০৩ জন হাসপাতালের আইসোলেশনে এবং ৩২৩৮ জন হোম আইসোলেশনে রয়েছেন।
সিভিল সার্জন ডা. মো. সাখাওয়াত উল্যাহ বলেন, করোনা সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে সরকারি নির্দেশনা মেনে চলতে হবে। সবাইকে মাস্ক পড়তে হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। অহেতুক বাইরে ঘুরাঘুরি করা যাবে না। তিনি বলেন, টিকা নিতে হবে। টিকা নিলে আক্রান্ত হওয়ার ঝুকি কম থাকে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *