চাঁদপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা

 

  • আশিক বিন রহিম :
    সময়টা এখন মৌসুমী ফসল ইরি-বোরো ধান ঘরে তোলার। কিন্তু মহামারি করোনায় বিপর্যস্ত জনজীবন। এর ফলে ধান কাটার শ্রমিক খুঁজে পাচ্ছে না কৃষক। এ অবস্থায় সারা দেশের ন্যায় চাঁদপুরেও কৃষকের পাশে দাঁড়িয়েছে ছাত্রলীগ। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্দেশনা এবং ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদকের কন্যা শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপির অনুপ্রেরণায় চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কৃষকের জমি থেকে ধান কেটে বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছে দিচ্ছেন।
    ২৪ এপ্রিল শুক্রবার চাঁদপুর পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের রঘুনাথপুর এলাকার কৃষক বাবুল বেপারী জমির ধান কেটে দেন একদল ছাত্রলীগ নেতাকর্মী। প্রায় ২০ জনের একটি টিম সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ওই কৃষকের ৩০ শতাংশ জমির ধান কেটে বাড়িতে পৌঁছে দেন। এর আগেও গত ২০ এপ্রিল একই এলাকার জুটমিলের পূর্ব পাশে হাবিবুর রহমান কালু নামের এক কৃষকের ৪৪ শতাংশ জমির ধান কেটে দেয় দেয় তারা। ধান কাটায় অংশ নেন পৌর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি খালেদুল ইসলাম রুবেল, ৫নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি রাকিবুল হাসান পারভেজ, সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান, শাহিদ হোসেন, যুগ্ম-সম্পাদক আরিয়ান আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক সাব্বির মিজি, দপ্তর সম্পাদক রাকিব, সহ দপ্তর সম্পাদক আহমেদ হাসিব, সম্পাদক সাইফুল, সদস্য, শরীফসহ আরো অনেকে।
    এ বিষয়ে চাঁদপুর পৌর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি খালেদুল ইসলাম রুবেল জানান, মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর অনুপ্রেরণা এবং চাঁদপুর জেলা ও পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশে আমরা আমাদের নিজ এলাকার কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছি।
    তিনি আরো জানান, আমরা পৌর এলাকায় যে কোন কৃষকের ধান কেটে দেবার জন্যে প্রস্তুত রয়েছি। কোন কৃষক ভাই যদি মনে করেন, ধান কাটতে আমাদের সহযোগিতা লাগবে, তাহলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করলেই হবে। আমরা তার ধান কেটে বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছে দিবো।
    এদিকে ছাত্রলীগের এই মহতী উদ্যোগকে সর্বমহলে বেশ প্রশংসিত হয়েছে। তাদের স্বাগত জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন এবং সচেতন মহল।
    উল্লেখ্য, গত কয়েকদিন ধরেই জেলার বিভিন্ন উপজেলাতেও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা কৃষকের ধান কেটে দেয়ার খবর মিলেছে। এতে করে কৃষকের যেমনি উপকার হচ্ছে তেমনি ছাত্রলীগেরও ভাবমুর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে।
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.