চাঁদপুরে চুরি যাওয়া ১২শ’ বস্তা চাল নারায়ণগঞ্জে যুবলীগ নেতার গুদাম থেকে উদ্ধার

চাঁদপুর প্রতিদিন ডেস্ক :
চাঁদপুর থেকে চুরি হওয়া ১২শ’ বস্তা চাল নারায়ণগঞ্জের বন্দরে যুবলীগ নেতা জাবেদ হোসেন ভুইয়ার গুদাম থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। ২৯ এপ্রিল রাতে অভিযান চালিয়ে বন্দরের মদনপুর এলাকার কেওঢালা এলাকার একটি পোশাক কারখানার গুদাম থেকে চাল উদ্ধার করে উপজেলা প্রশাসন। বন্দরের ধামগড় পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ পরিদর্শক ইশতিয়াক আশরাফ রাসেল একথা জানায়।

পুলিশ জানায়, ২৮ এপ্রিল ভোরে চাঁদপুরের পুরানবাজারে নদীর ঘাট থেকে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের ২ হাজার ১০০ বস্তা চাল নিয়ে একটি কার্গো উধাও হয়। এ ঘটনায় থানায় মামলাও হয়। ২৯ এপ্রিল রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বন্দরের মনদপুরের কেওঢালা এলাকার হায়দরি নিট কম্পোজিটের গোডাউনে অভিযান চালান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শুক্লা সরকার। গুদামটি স্থানীয় যুবলীগ নেতা জাবেদ হোসেন ভূইয়া। সেখান থেকে ১২শ’ বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়। জাবেদ মদনপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক।
এ বিষয়ে ইউএনও শুক্লা সরকার বলেন, গোপন সূত্রের মাধ্যমে খবর পেয়ে গুদামে অভিযান চালাই। সব মিলিয়ে ১২শ’ বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়েছে। চাল মজুতের বিপরীতে কোনও বৈধ কাগজ দেখাতে না পারায় চালগুলো জব্দ করা হয়েছে। গুদামটি সিলগালা করা হয়েছে।
নারায়ণগঞ্জে চাল উদ্ধারের সংবাদ গণমাধ্যমে প্রচারিত হলে চাঁদপুরে চাল ব্যবসায়ীরা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। পরে যাচাই করতে কাগজপত্র নিয়ে চাঁদপুর সদর থানার ইন্সপেক্টর মোরশেদ আলমকে নিয়ে নারায়ণগঞ্জের বন্দরে উপস্থিত হন তারা। যাচাই-বাছাই শেষে চাঁদপুরের চুরি হওয়া চালই এখানে উদ্ধার হয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ধামগড় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইশতিয়াক আশরাফ জানান, চাঁদপুরে চুরি হওয়া চালের চালানের তথ্যের সঙ্গে এই চালের মিল রয়েছে। চুরি হওয়া চালই নারায়ণগঞ্জে উদ্ধার হয়েছে। এ ঘটনায় যেহেতু চাঁদপুরে একটি মামলা রয়েছে সে অনুযায়ী নতুন করে মামলা হবে কিনা সে বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি।
এ ব্যাপারে যুবলীগ নেতা জাবেদ হোসেন জানান, চাঁদপুরের রাশেদ আহমেদ নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে চালগুলো কিনেছিলেন। কম দামে চাল পাওয়ার কারণে তিনি কিনে মজুত করেছিলেন।
এ ব্যাপারে চাঁদপুর সদর থানার ইন্সপেক্টর ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোরশেদ আলম জানান, চাল চুরির ঘটনায় চাঁদপুর সদর থানা রাশেদ আহমেদ নামের এক ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা হয়েছে। চুরির আইন অনুযায়ী চোরাইপণ্য যার কাছে পাওয়া যাবে সেও আসামি। সেই হিসেবে মদনপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের হেফাজতে চাল উদ্ধার হয়েছে মামলায় সেও অন্তর্ভুক্ত হবে। এছাড়া তদন্তে আরও যদি কারও নাম বেরিয়ে আসে তাকেও আসামি করা হবে।
-তথ্য সূত্র বাংলা ট্রিবিউন

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.