চাঁদপুরে নিম্ন-আয়ের মানুষের জন্যে জেলা প্রশাসনের ‘সততা স্টোর’

 

আশিক বিন রহিম :
চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে গড়ে তোলা ‘সততা স্টোর’ -এ থরে থরে সাজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় ১৫টি খাদ্যপণ্য। মধ্যবিত্ত, নিম্নমধ্যবিত্ত আর হতদরিদ্র পরিবারের লোকেরা বিশেষ ছাড়মূল্যে সেখান থেকে পণ্য ক্রয় করছেন। এই ক্রয়-বিক্রয়ের সময় সততা স্টোরে থাকছে না কোন দোকানি। ক্রেতা নিজেই পণ্য কিনে টাকা রাখছেন নির্ধারিত বাক্সে। করােনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ও সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউনে নিম্ন আয়ের মানুষের জীবন-যাপন যখন চিন্তাগ্রস্ত ঠিক সেই মুহূর্তে এমন সততা স্টোর তাদের মনে কিছুটা হলেও প্রশান্তি ঢালতে পারে।

গত বছরের ন্যায় এবারও চাঁদপুরে লকডাউন চলাকালে নিত্যপ্রয়ােজনীয় পণ্য সুলভমূল্যে বিক্রি করতে জেলা প্রশাসনের পরিচালনায় সততা স্টোর চালু করা হয়েছে। বুধবার (১৪ এপ্রিল) দুপুরে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে এই সততা স্টোর আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) অঞ্জনা খান মজলিশ । এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মােহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান, জেলা মার্কেটিং অফিসার এন.এম. রেজাউল করিমসহ স্বেচ্ছাসেবক টিমের সদস্যরা।

লকডাউন অবস্থায় এই সততা স্টোর থেকে একজন ক্রেতা নিত্যাপ্রয়ােজনীয় ১৫টি পণ্য ক্রয় করতে পারবেন । জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ সাংবাদিকদেরকে বলেন, আপনারা দেখেছেন সততা স্টোর চালু করা হয়েছে। এর উদ্দেশ্যে হচ্ছে লকডাউন অবস্থায় সাধারণ মানুষ যাতে করে বাজার থেকে কিছুটা কম অর্থাৎ ন্যায্য মূল্যে নিত্য
প্রয়ােজনীয় পন্য ক্রয় করতে পারেন। কারণ বাজারে না গিয়ে জনসমাগম এড়িয়ে এখানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের কেনা-কাটা করতে পারবে।

উল্লেখ্য, করােনা পরিস্থিতির শুরুতে ২০২০ সালে।
একইভাবে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সততা স্টোর চালু করা হয়। কারণ ব্যবসায়ীরা করােনার পরিস্থিতির কারণে বাজারগুলােতে পন্যের মূল্য বৃদ্ধি করায় প্রশাসন এই ব্যবস্থা করেন। সততা স্টোর তখনও সকলের মধ্যে খুবই সাড়া জাগায় এবং প্রশংসিত হয় ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *