চাঁদপুরে প্রতিদিনিই বাড়ছে পেঁয়াজের দাম, বাজার নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে প্রশাসন

এইচ.এম নিজাম :
চাঁদপুরে লাগামহীনভাবে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। খুচরা বাজারগুলোতে প্রতিদিনই কেজিপ্রতি ২০ থেকে ২৫ টাকা করে পেঁয়াজের দাম বেড়েই চলছে। সাধারণ ক্রেতাদের মাঝে পেঁয়াজ নিয়ে আবারো শুরু হয়েছে অস্থিরতা। হঠাৎ করে তিন-চার দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণ হয়েছে।
এদিকে পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে জেলা-উপজেলা প্রশাসন। প্রতিদিনই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছেন। যেখানেই বাড়তি দামে পেঁয়াজ বিক্রির খবর পাচ্ছেন সেখানেই তারা গিয়ে অসাধু ব্যবসায়ীদের জরিমানা করছেন।
ব্যবসায়ীরা জানান, সোমবার চাঁদপুরে পেঁয়াজের দর ছিল কেজিপ্রতি ৪০ থেকে ৪৫ টাকার মধ্যে। মঙ্গলবার ৫০ থেকে ৬৫ টাকার মধ্যে বাজার গড়ায়। বুধবার সারা দিন বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, ৭০ থেকে ৮৫ টাকার মধ্যে পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে সাধারণ ক্রেতাগণকে।
শহরের বাজারগুলোতে ঘুরে দেখা যায়, অধিকাংশ দোকানেই অল্প অল্প পেঁয়াজ দোকানে সাজিয়ে রাখছে। বাকি বস্তাভর্তি পেঁয়াজ দোকান থেকে একটু আড়াল করে রাখা। এ ব্যাপারে এক দোকানদারকে জিজ্ঞেস করলে তারা বলেন, পেঁয়াজের দাম বেশি তাই সবগুলো খোলাভাবে রাখিনা। এদিকে সাধারণ ক্রেতারা বলছেন, দোকানে অল্প করে মাল রেখে বাজারে পেঁয়াজের সংকট বোঝানো হচ্ছে।
বিপনিবাগ বাজারের এক ব্যবসায়ী মোঃ রাসেল এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, মোকাম থেকে পেঁয়াজ আনতে গেলে আমরা যে পরিমাণ আনতে চাই সে পরিমাণই পাচ্ছি। পেঁয়াজের কোন সংকট নেই। কিন্তু তারা আমাদের কাছ থেকে আগের চেয়ে দাম বেশি রাখছে।
শহরের পালবাজার বিপনীবাগসহ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা যায়, ৭০ থেকে ৭৫ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে ভারতীয় বড় পেঁয়াজ। দেশি পেঁয়াজ তুলনামূলক কম থাকলেও বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ৮৫ টাকা করে।
পালবাজার পেঁয়াজ-রসুন ব্যবসায়ী মোঃ ফারুক এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, মোকাম থেকে মাল আনতে গেলে তাদের সাথে কোন দামাদামি করা যায় না। সকল ব্যবসায়ীরা একটা মূল্য নির্ধারিত করলে সেই মূল্যেই আমাদেরকে মাল আনতে হয়। তারা সকল পাইকারি ব্যবসায়ী একত্রিত হয়ে কাজ করে।
এদিকে এক ব্যবসায়ী বলছেন, যখন ঘোষণা হল ইন্ডিয়া আর পেঁয়াজ দিবেনা তখনই পাইকারি ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। বাজারে আসা একজন পেঁয়াজ ক্রেতা মানিক খানের সাথে কথা বললে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, বাজার নিয়ন্ত্রণে কর্তৃপক্ষ কোনো শক্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারে না। বাজারে প্রশাসনের নজরদারি প্রয়োজন। আমরা সাধারন জনগন আর হয়রানি হতে চাই না।
এদিকে পাল বাজারের পেঁয়াজ-রসুন এর দোকানগুলোতে দেখা যায় বস্তাভর্তি মাল সারিবদ্ধ ভাবে রাখা। অনেকেই বলছে আমাদের চাঁদপুরে পেঁয়াজের কোন সংকট নেই শুধুমাত্র সিন্ডিকেটের কারণে পেঁয়াজের দাম বেড়ে চলছে।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *