চাঁদপুরে বঙ্গবন্ধু বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন ফরিদগঞ্জ, চাঁদপুর পৌরসভা

আশিক বিন রহিম :
উৎসবমূখর ও আনন্দঘন আয়োজনে সম্পন্ন হলো জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জাতীয় (অনুর্ধ্ব- ১৭ বালক ও বালিকা ) গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট। গতকাল ৪ জুন শুক্রবার বিকেলে চাঁদপুর স্টেডিয়াম মাঠে মনোমুগ্ধকর দুটি ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। দুটি খেলায় আক্রমন-পাল্টা আক্রমণ আর টান টান উত্তেজনা উপভোগ করে মাঠভর্তি হাজারো ক্রীড়ামোদি দর্শক।
জেলা ভিত্তিক এ টুর্নামেন্টের ফাইনালে চাঁদপুর সদর উপজেলার বালক দলকে ১০ গোলে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হয় ফরিদগঞ্জ উপজেলা ফুটবল দল। ফরিদগঞ্জ উপজেলা দলের পক্ষে একমাত্র গোলটি করেন ৭ নাম্বার জার্সি পরিহিত খেলোয়ার মোস্তফা কালাম।
দ্বিতীয় খেলায় (বালিকা) টাইব্রেকারে চাঁদপুর পৌরসভা বালিকা দল ৫-৪ গোলে চাঁদপুর সদর উপজেলা দলকে পরাজিত করে। এর আগে তাদের গোলশূন্য খেলাটি টাইব্রেকারে গড়ায়। সেরা খেলোয়াড় হিসেবে পুরস্কার অর্জন করে বালক তলের মোস্তফা কামাল এবং বালিকা দলের মিম আক্তার।
সমাপনি ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি অঞ্জনা খান মজলিশ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বিপিএম, পিপিএম (বার), জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডা. জে আর ওয়াদুদ টিপু।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামানের পরিচালনায় সমাপনি ও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর পৌরসভার মেয়ে মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল, চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. জাহিদুল ইসলাম রোমান, চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শানজিদা সাহনাজ, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী, সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহীর হোসেন পাটোয়ারি, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবু, জেলা ক্রীড়া অফিসার মোঃ তারিকুল ইসলামের প্রমুখ।
অতিথির বক্তব্যে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি অঞ্জনা খান মজলিশ
বলেন, বাংলাদেশে খেলাধুলায় নারী-পুরুষ সমানতালে এগিয়ে যাচ্ছে। ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েরাও ফুটবল ও ক্রিকেটে ভালো করছে। এটি আমাদের জন্যে অনেক বড় পাওয়া।
তিনি বলেন, খেলাধুলা সবার জন্যে প্রয়োজন। খেলাধুলা থেকে দূরে থাকায় আমাদের সন্তানরা মেবাইল আসক্তি, মাদকসহ সামাজিক অপরাধের সাথে যুক্ত হচ্ছে। আমরা তাদের যদি খেলার সুযোগ দেই তবে তাদের খারাপ পথ থেকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব। এ ক্ষেত্রে সমাজের বিত্তশালীদের এগিয়ে আসতে হবে। পাড়া-মহল্লায় ক্লাবগুলোতে খেলাামুখি করতে হবে।
জেলা প্রশাসক আরো বলেন, আজকের বালক-বালিকার দুটি খেলায় মনোমুগ্ধকর ছিলো। তারা প্রত্যেকে ভালো খেলেছে। তবে জয়পরাজয় বলে একটা কথা আছে। যে কোন খেলায় কাউকে না কাউকে জয়পরাজয় বরণ করতে হয়। তবে এই জয়পরাজয় তাদের মাঝে প্রতিযোগিতামূলক মনোভাব সৃষ্টি করে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধু মাতার নামে এই খেলাটি অত্যন্ত শৃঙ্খলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এজন্য আমি আয়োজকদের পাশাপাশি সকল অংশগ্রহণকারী দল এবং সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানাই। এই করোনার মহামারি থেকে সুরক্ষায় আমাদের সচেতন থাকতে হবে, মাস্ক পরতে হবে।
সবশেষে বিজয়ী, রানারআপ এবং সেরা খেলোয়ারদের হাতে ট্রফি তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *