চাঁদপুরে ভোটকেন্দ্রের কাছে ছুরিকাঘাতে কিশোর নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুরে পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভোটকেন্দ্রের কাছে ছুরিকাঘাতে এক কিশোর নিহত হয়েছেন। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শহরের গণি স্কুল কেন্দ্রের সামনে এ ঘটনা ঘটে।
নিহত ইয়াসিন মোল্লা (১৭) শহরের কোড়ালিয়া এলাকার হারুনুর রশিদ কালু মোল্লার ছেলে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, চাঁদপুর শহরের গণি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে পৌর নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলাকালে কেন্দ্রের বাইরে সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বে দুইটি গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে এক পক্ষ ধারালো ছুরি দিয়ে ইয়াসিনের গলায় আঘাত করলে তিনি গুরুতর আহত হন। তাৎক্ষণিকভাবে চাঁদপুর সদর হাসপাতাল নেওয়া হয় তাকে। পরবর্তীতে ঢাকায় নেয়ার সময় পথে তার মৃত্যু হয়।
এ বিষয়টি নিশ্চিত করে চাঁদপুর মডেল থানার ওসি জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে গুরুতর আহত অবস্থায় ইয়াসিন নামের এ তরুণকে উদ্ধার করে চাঁদপুর ২৫০ শয্যার সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকায় রেফার্ড করেন। ঢাকায় নেয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়।
চাঁদপুর ২৫০ শয্যার সরকারি জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল জানান, তার গলায় ধরালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ঢাকায় নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
জানা গেছে, শাহাদাত নামের এক যুবক ইয়াছিনের গলায় ছুরিকাঘাত করে। তাদের সাথে সিনিয়র-জুনিয়র নিয়ে আগে থেকেই দ্বন্দ্ব ছিল। ওই দ্বন্দ্বের জের ধরেই ইয়াছিনের গলায় ছুরিকাঘাত করে শাহাদাত। এতে ইয়াছিনের গলার রগ কেটে যায়।
উল্লেখ্য, শনিবার সকাল টায় চাঁদপুর পৌরসভার নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়। বিরতিহীন এই ভোটগ্রহণ চলে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত।
এতে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জিল্লুর রহমান জুয়েল, বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী আক্তার হোসেন মাঝি, ইসলামী আন্দোলনের হাতপাখা মার্কার মামুনুর রশিদ বেলালসহ মোট ৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।
এছাড়া কাউন্সিলর পদে ৫০জন এবং মহিলা কাউন্সিলর পদে আরো ১৪ জনসহ মোট ৬৭জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *