চাঁদপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্যাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
অদম্য সাহস আর দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলা স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ আজ বিশ্ব মানচিত্রের আদুরে রাষ্ট্র। মহান স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছরে বাংলাদেশ। এই খুশির দিনে সমগ্র দেশ মেতে উঠে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর উৎসবে। ২৬ মার্চ শুক্রবার সারা দেশের ন্যায় সেই খুশির বাতাস দোলা দিয়েছে ইলিশের বাড়ি চাঁদপুরও। বর্ণাঢ্য আয়োজন আর যথাযোগ্য মর্যাদায় চাঁদপুরের সর্বত্র পালিত হয়েছে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। এ উপলক্ষ গোটা জেলার প্রতিটি উপজেলা, শহর, গ্রাম, পাড়া-মহল্লায় ছিলো উৎসবের আমেজ। সরকারি-বেসরকারিভা এবং বিভিন্ন রাজনীতিক দলের আয়েজনে দিনটিকে ঘিরে নানা কর্মসূচি পালন করা হয়।
শুক্রবার ভোরে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে অঙ্গীকার পাদদেশ সংলগ্ন রেললাইনে একত্রিশবার তোপধ্বনির মাধ্যমে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের শুভ সূচনা হয়। এরপর মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে শহরের অঙ্গীকার পাদদেশে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
সেখানে সর্বপ্রথম পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশের নেতৃত্বে জেলা প্রশাসন। এরপর পর্যায়ক্রমে পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ এর নেতৃত্বে জেলা পুলিশ, শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপির পক্ষে স্থানীয় নেতৃবৃন্দ, জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষে সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদসহ রাজনৈতিক, সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠন পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।
একই সময় সকল সরকারি, বেসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান ও ভবনসমূহে যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয় এবং আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সকাল ৮টায় জেলা প্রশাসক কর্তৃক চাঁদপুর স্টেডিয়ামে স্বাধীনতা দিবসের কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কুরআন তিওয়াত ও গীত পাঠ করা হয়। এরপর পর্যায়ক্রমে জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, শান্তির প্রতিক পায়রা উড়ানো হয়। পরে জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ ও পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি, বিএনসিসি, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, কারারক্ষী, রোভার স্কাউটস, স্কাউটস্, গার্লস গাইড ও কমিউনিটি পুলিশসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য শিশু-কিশোর সংগঠনের সালাম গ্রহণ ও কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন।
এর পরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিশু-কিশোর সংগঠনসমূহ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে চমৎকার ডিসপ্লে প্রদর্শন করেন। নির্ধারিত বিচারকদের মাধ্যমে ডিসপ্লে প্রদর্শণে অংশগ্রহনকারীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
এছাড়াও কুচকাওয়াজ পর্বের পরে জেলার শতাধিক মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ। বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম বরকন্দাজ, বিএলএফ কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা হানিফ পাটওয়ারী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মহসীণন পাঠান, নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন্নাহার চৌধুরী, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী ও ব্যাংকার মুজিবুর রহমান প্রমূখ। বক্তব্য শেষে মুক্তিযোদ্ধাদেরকে সম্মানী প্রদান করা হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *