চাঁদপুরে রেহান উদ্দিন হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচন, খুনি গ্রেফতার

আশিক বিন রহীম :
চাঁদপুরে বালু ব্যবসায়ী রেহান উদ্দিন মিজি (৫৫) হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচন করেছে পুলিশ। এ হত্যাকাণ্ডের পর প্রযুক্তির ব্যবহার করে লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর থানার নবীগঞ্জ এলাকার ঘাতক খোরশেদ আলমকে (২৭) গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, পূর্বে জুয়া খেলে রেহান উদ্দিনের কাছে ৬৫ হাজার টাকা হেরে যায় খোরশেদ। এ ক্ষোভ থেকেই তাকে হত্যার পরিকল্পনা করে সে। এমন তথ্য জানিয়েছে পুলিশ।


এ বিষয়ে ১ জুলাই বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩ টায় চাঁদপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বিপিএম, পিপিএম (বার) বলেন, ঘটনার দিন রেহান উদ্দিনের স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে বাবার বাড়িতে ছিলো। এ সুযোগে ফাঁকা বাড়িতে তিনি সহযোগী জুয়ারি খোরশেদ আলমকে তাস খেলতে ডেকে আনেন। জুয়া খেলায় হেরে যাওয়ার ক্ষোভেই রেহান উদ্দিনকে ধারালো দা দিয়ে মাথা এবং শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত করে হত্যা করে আসামী খোরশেদ আলম। পরে আমরা অনুসন্ধানের মাধ্যমে ৩০ জুন খোরশেদ আলমকে শহরের প্রফেসর পাড়া থেকে গ্রেফতার করি।
তিনি আরও বলেন, আসামীর দেওয়া তথ্য মতে আমরা খুনে ব্যবহৃত দা এবং মৃত ব্যক্তির রক্তমাখা জামাকাপড় সহ অন্যান্য আলামত সংগ্রহ করেছি। আসামী খোরশেদ আলমের বিরুদ্ধে পূর্বেও ২টি গরু চুরির মামলা রয়েছে। সে মূলত লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার শেফালী পাড়া গ্রামের মৃত মোস্তফা ভূঁইয়ার ছেলে। আসামীকে ১৬৪ ধারায় স্বিকারোক্তিমূলক জবানবন্দী গ্রহণের জন্য আদালতে প্রেরণ করা হয়।
পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ আরও বলেন, আসামী নিজেকে রক্ষায় কৌশল অবলম্বন করে হত্যার শিকার রেহান উদ্দিনের দ্বিতীয় স্ত্রীকে অন্য নাম্বার থেকে ফোন করে বাড়িতে আসতে বলে। যাতো করে ঘটনাটি ভিন্নদিকে প্রবাবিত হয়। এর ফলে আমরা প্রথামিকভাবে বোরহান উদ্দিনের ২য় স্ত্রী, বাড়ির দারোয়ানসহ ৪জনকে সন্দেহজনক ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে আটক করেছি। মূল আসামী আটক হওয়ায় অতিদ্রুত তাদের ছেড়ে দেয়া হবে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) সুদীপ্ত রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আসিফ মহিউদ্দিন, ডিআইও ওয়ান তোতা মিয়া, চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুর রশীদসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।
প্রসঙ্গত, গত ২৩শে জুন বিকালে শহরের নিউ ট্রাকরোড খান বাড়ী সড়কের তামান্না শারমিন ভিলার ৩য় তলার ভাড়াটিয়া বোরহান উদ্দিন মিজি (৫৫) নির্মমভাবে খুন হন। ঘটনার পরপরই পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ দ্রুত হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) সুদীপ্ত রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(সদর সার্কেল) আসিফ মহিউদ্দিন ও চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুর রশীদকে নির্দেশনা প্রদান করেন। পুলিশ ঘটনায় প্রাথমিকভাবে বাড়ির দারোয়ান ও নিহতের ২য় স্ত্রীসহ সন্দেহজনক ৪ জনকে আটক করে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *