জনস্বার্থ বিরোধী কোনো কাজ সংঘটিত হলে অবশ্যই ভুল ধরিয়ে দিবেন : সাংবাদিকদের পৌরমেয়র

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুর পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল গতকাল রোববার প্রথম অফিস করেন। সকাল থেকে তিনি তাঁর নিজ কক্ষে বসে বিদায়ী মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদের সাথে নানা আনুষ্ঠানিকতা শেষ করেন। এরপর দুপুর নাগাদ উপস্থিত সাংবাদিকদের সাথে এক অনানুষ্ঠানিক বৈঠক করেন করেন নবাগত মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল। এ সময় চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ ইউসুফ গাজী ও সহ-সভাপতি ডাঃ জেআর ওয়াদুদ টিপু, সদস্য ও সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী, চাঁদপুর পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান বাবুল, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুল, সদস্য আব্দুল গণি গাজীসহ অন্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
অনানুষ্ঠানিক আলোচনার শুরুতেই চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এএইচএম আহসান উল্লাহ নবনির্বাচিত মেয়রকে প্রেসক্লাবে আমন্ত্রণ জানান। এরপর উপস্থিত সাংবাদিকরা শহরে বিরাজমান নানা সমস্যা নিয়ে কথা বলেন এবং অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানে উদ্যোগ নেয়ার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। এছাড়া পৌরবাসীর দৃষ্টি কাড়ে এমন অন্তত দৃশ্যমান একটি কাজ এক বছরের মধ্যে দেখানোর পরামর্শ দেন সাংবাদিকরা।
নানা আলোচনা শেষে মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল বলেন, পেছনে কী হয়েছে না হয়েছে, কতটুকু সফলতা বা ব্যর্থতা; দয়া করে এসব কথা আর নয়। এখন আমার দায়িত্ব হচ্ছে নির্বাচনের সময় জনগণের সামনে আমি যে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছি তা বাস্তবায়ন করা। আর এটি বাস্তবায়ন করতে হলে সকলের সহযোগিতা লাগবে। আমার পরিষদের প্রত্যেক কাউন্সিলর এবং পৌরসভার প্রত্যেক কর্মকর্তা-কর্মচারীর এই ইশতেহার বাস্তবায়ন করতে ভূমিকা পালন করতে হবে বলে আমি মনে করি। কারণ, এই শহরটি আমার একার নয়। সকলেই এই শহরে বাস করেন। এই শহরটিকে ভালো রাখা, নান্দনিকতার ছোঁয়ায় গড়ে তোলা প্রতিটি নাগরিকের দায়িত্ব। তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা হচ্ছেন সমাজের দর্পণ। সমাজের নানা অসঙ্গতি আপনাদের মাধ্যমেই আমরা দেখতে পাই। আমার দ্বারা যদি জনস্বার্থ বিরোধী কোনো কাজ সংঘটিত হয়, সেখানে অবশ্যই আপনারা আমার ভুল ধরিয়ে দিবেন। আর জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট কাজে আপনাদের সহযোগিতা চাই। আমি দৃঢ়তার সাথে বলবো, যত বড় শক্তিই হোক, একটি জায়গায় আমি আপোস করবো না। সেটা হচ্ছে, বৃহৎ জনগোষ্ঠীর স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে। এ জায়গায় কোনো অপশক্তি যদি বাধা হয়ে দাঁড়ায় সেখানে আমার যুদ্ধ চলবে। আর ক্ষেত্রে আমি সাংবাদিকদের সহযোগিতা চাইব। তিনি আরো বলেন, আমার বেশ কিছু পরিকল্পনা রয়েছে। সেটি স্বল্প মেয়াদী, মধ্যম মেয়াদী ও দীর্ঘমেয়াদী হতে পারে। এসব পরিকল্পনা গ্রহণ করে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো এবং আপনাদের মাধ্যমে জনগণকে জানান দেবো।
জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ ইউসুফ গাজী এবং ডাঃ জেআর ওয়াদুদ টিপু তাঁদের বক্তব্যে বলেন, নবনির্বাচিত মেয়র জনগণের কাছে নির্বাচনের সময় যে সব অঙ্গীকার করেছেন ইশতেহারের মাধ্যমে, তা বাস্তবায়ন করতে সকলের সহযোগিতা অবশ্যই লাগবে। সে জন্যে বিদায়ী মেয়র নাছির ভাই এবং সাবেক পৌর চেয়ারম্যান ইউসুফ ভাইয়ের নানা পরামর্শ অবশ্যই বর্তমান মেয়রের প্রতি থাকবে বলে আমাদের প্রত্যাশা। আর এ এলাকার এমপি শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনির সকল সহযোগিতা অবশ্যই থাকবে। কারণ, এই শহরটি তাঁর নির্বাচনী এলাকারই অংশ। শুধু অংশই নয়, পুরো জেলার প্রধানতম শহর চাঁদপুর শহরটি ডাঃ দীপু মনির নির্বাচনী এলাকার কেন্দ্রবিন্দু। তাই শহরটিকে সৌন্দর্য করে তুলতে ডাঃ দীপু মনির সকল ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।
সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিলন, সাধারণ সম্পাদক এএইচএম আহসান উল্লাহ, সাবেক সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা, যুগ্ম সম্পাদক ও টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আল ইমরান শোভন এবং ফটোজার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি একে আজাদ। উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শহীদ পাটোয়ারী। আরো বক্তব্য রাখেন নাট্য ব্যক্তিত্ব জিয়াউল আহসান টিটো।
এই অনির্ধারিত আলোচনা সভায় মোঃ ইউসুফ গাজী এবং ডাঃ জেআর ওয়াদুদ টিপুকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান নবনির্বাচিত মেয়র অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.