নববধূকে নির্যাতন, উদ্ধার করলো মতলবের পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক :
বিয়ের এক মাসের মাথায় নব বধু মোসা: সাদিয়া আক্তার (২০) কে দক্ষিণ ডিঙ্গাভাঙ্গা গ্রাম থেকে উদ্ধার করেছে মতলব দক্ষিণ থানা পুলিশ। গত ৩০ জুন নব বধু সাদিয়া আক্তারের চাচা মো: মনির হোসেন তপাদার বাদী হয়ে মতলব দক্ষিণ থানায় একটি অভিযোগ করলে থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়ার নির্দেশে এএসআই রফিকুল ইসলাম উপজেলার দক্ষিণ ডিঙ্গাভাঙ্গা গ্রাম থেকে নব বধুকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। চাচা মো: মনির হোসেন তপাদার জানান, আমার ভাতিজি সাদিয়া আক্তারকে ইসলামী শরা শরীয়ত মোতাবেক ডিঙ্গাভাঙ্গা গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে প্রবাসী মাহাবুব হোসেনের কাছে বিবাহ দেই। বিবাহের পর থেকে সাদিয়া আক্তারকে বিভিন্নভাবে নির্যাতন ও মারধোর করে। বিষয়টি সমাধান ও সুষ্ঠু বিচারের আশায় উপাদী দক্ষিণ ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের জয়নাল আবেদিন তপাদার (মেয়ের বাবা) বাদী হয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের বরাবরে লিখিতভাবে অভিযোগ করেন। এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ২৭ জুন উভয় পক্ষকে নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে একটি শালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সমস্যা সমাধানের জন্য এলাকার পঞ্চায়েতদেরকে দায়িত্ব প্রদান করা হয়। ছেলে পক্ষের মাতব্বর সাবেক চেয়ারম্যান মো: লিয়াকত হোসেন প্রধান ও সাবেক চেয়ারম্যান কবির হোসেন খান দায়িত্ব নিয়ে মেয়ের বাবাকে বলেন বড় করে বিয়ের অনুষ্ঠান করার জন্য। কিন্তু পরবর্তীতে অনুষ্ঠান করলেও বরপক্ষের কেউ উপস্থিত হয়নি। বর মো: মাহাবুব হোসেন এ প্রতিনিধিকে জানান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান মো: লিয়াকত হোসেন প্রধান ও সাবেক চেয়ারম্যান কবির হোসেন খান অনুষ্ঠানের কথা বলে আমাদের কাছ থেকে প্রথমে ২০ হাজার ও পরে ২৫ হাজার মোট ৪৫ হাজার টাকা নিয়েছে। কিন্তু এ সম্পর্কে উপাদী দক্ষিণ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো: গোলাম মোস্তফা কিছুই জানেন না। বর মাহাবুব হোসেন ও তাঁর স্বজন ইমরান হোসেন মানিক জানান অনুষ্ঠানের কথা বলে আমাদের কাছ থেকে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান লিয়াকত হোসেন প্রধান ও সাবেক চেয়ারম্যান কবির হোসেন দুইভাগে ৪৫ হাজার টাকা নিয়েছে সমস্যাটি সমাধান করবে বলে। কিন্তু কোন সমস্যাই সমাধান করেননি তারা। এ নিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা ও উভয় পক্ষের মাঝে জল্পনা-কল্পনা চলছে। নব বধুকে উদ্ধারের পর ১ জুলাই উপাদী উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো: শহিদ উল্লাহ প্রধানের কার্যালয়ে উভয় পক্ষকে নিয়ে আরেকটি শালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় বলে জানা গেছে।
নববধু সাদিয়া আক্তার জানান, বিয়ে হয়েছে অল্প কয়েকদিন। তার পর থেকেই আমার উপর অত্যাচার ও নির্যাতন। আমি প্রশাসনের কাছে সুবিচার চাই। উপাদী দক্ষিণ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো: গোলাম মোস্তফা এ প্রতিনিধিকে জ[ানান, নব বধু সাদিয়া আক্তারকে আমার কাছ থেকে উপাদী উত্তর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান লিয়াকত হোসেন প্রধান ও সাবেক চেয়ারম্যান কবির হোসেন খাঁন জিম্মায় নিয়ে মেয়ের বাবা জয়নাল আবেদিনকে বড় করে বিয়ের অনুষ্ঠান করার জন্য বলেন। সে অনুষ্ঠানে সাবেক চেয়ারম্যান লিয়াকত হোসেন প্রধান ও সাবেক চেয়ারম্যান কবির হোসেন খাঁন ও বরসহ ছেলের পক্ষ কেউ উপস্থিত হয়নি।
মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া জানান, নব বধুর চাচার অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাকে দক্ষিণ ডিঙ্গাভাঙ্গা গ্রাম থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। পরে সুষ্ঠু সমাধানের জন্য উপাদী উত্তর ও উপাদী দক্ষিণ ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদ্বয়ের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *