লাচ্ছা সেমাই

নোংরা অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে তৈরি হচ্ছে লাচ্ছা সেমাই

শরীফুল ইসলাম:
মহামারী করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকার সারাদেশের ন্যায় চাঁদপুরে লকডাউন ঘোষণা করেছেন এবং সকল ধরনের কর্মযজ্ঞ বন্ধ ঘোষণা করেন। চাঁদপুরের সরকারি নিষেধাজ্ঞা সকল মিল ফ্যাক্টরী ও কর্মজীবী খেটে খাওয়া মানুষ মেনে চললেও শহরের পুরানবাজার নিতাইগঞ্জ রোডের মিম বেকারিতে চলছে নোংরা অপরিচিতভাবে লাচ্ছা সেমাই তৈরির কাজ।

কুমিল্লা ও বালিয়া থেকে ১০জন কারিগর এনে গোপনে এই মিম বেকারির মালিক নুর আলম তার বেকারিতে লাচ্ছা সেমাই তৈরির কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।
শুক্রবার দুপুরে নিতাইগঞ্জ মিম বেকারিতে গিয়ে দেখা যায়, লাকড়ি ও গাছের গুড়ি এনে দুটি বড় বড় চুলায় আগুন জ্বালিয়ে নোংরা ও অপরিচ্ছন্ন ভাবে লাচ্ছা সেমাই তৈরির কাজ করছেন।এতে করে অপরিচ্ছন্ন ও নোংরা পরিবেশে সেমাই তৈরি হওয়ায় যে কোন ধরনের রোগ ও ভাইরাস উৎপত্তি হওয়ার আশংকা রয়েছে।।

চাঁদপুর জেলায় কোন বেকারিতে এখন পর্যন্ত সেমাই তৈরি কাজ না করলেও মিম বেকারির মালিক দুঃসাহসিকতার পরিচয় দিয়ে স্থানীয় কিছু চক্রকে ম্যানেজ করে অপরিচ্ছন্ন ও নোংরা পরিবেশে সেমাই তৈরি কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। কুমিল্লা থেকে আনা ১০জন কারিগর মধ্যে করোনা ভাইরাস ছড়ানোর আশংকা করছেন স্থানীয়রা। সচেতন মহলের একটাই দাবি, সংশ্লিষ্ট প্রশাসন যাতে অতি দ্রুত এই মিম বেকারিতে অভিযান চালিয়ে তাদের কর্মযজ্ঞ বন্ধ করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.