পাকিস্তানে করোনা নজরদারি করবে আইএসআই

মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে তাদের ওপর নজরদারি করবে দেশটির শক্তিশালী গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার সার্ভিস ইন্টেলিজেন্স বা আইএসআই। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এই তথ্য প্রকাশ করেছেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান আজ শুক্রবার সরাসরি সম্প্রচারিত এক ভাষণে বলেন, ‌‘আইএসআই এর মাধ্যমে আমাদের নজরদারি করার বেশ ভালো একটি পদ্ধতি রয়েছে। মূলত এই সংস্থা সন্ত্রাসীদের শনাক্ত করার কাজ করলেও এখন আমরা এটাকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধের কাজে লাগাবো।’

পাকিস্তানে স্থানীয়ভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বাড়তে শুরু করেছে। দেখা যাচ্চে, অনেকে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরও নিজেদের আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি গোপন করছেন। ফলে কমিউনিটির মধ্যে ভাইরাসটির বিস্তার বাড়ছে। এটা ঠেকাতের এমন পদক্ষেপ বলে দাবি সরকারের।

তবে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালসহ অন্যান্য মানবাধিকার সংস্থা আইএসআই এর বিরুদ্ধে মানবাধিকারকর্মীদের নজরদারি ছাড়াও নিরাপত্তা পরিস্থিতির জন্য রাষ্ট্রীয়ভাবে বিরোধী হিসেবে অভিহিত ব্যক্তিদের অপহরণ করার অভিযোগ করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে।

পাক প্রধানমন্ত্রীর এমন ঘোষণার পর অনেকে দাবি তুলেছেন, পুলিশসহ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী অন্যান্য বাহিনীর মাধ্যমেই এই নজরদারি চালানো সম্ভব। এখানে গোয়েন্দা সংস্থা যুক্ত করার কোনো কারণ দেখা যাচ্ছে না। এছাড়া খোদ পাকিস্তানে কঠোরভাবে ভিন্নমত দমনের অভিযোগে আছে আইএসআই এর বিরুদ্ধে।

প্রসঙ্গত, পাকিস্তানে করোনায় মৃতের সংখ্যা এখন ২৪২; আক্রান্ত ১১ হাজার ৫১৩। সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত পাঞ্জাব প্রদেশে; ৪ হাজার ৮৫১। সিন্ধ ৩ হাজার ৯৪৫, খাইবার পাখতুনখাওয়া ১ হাজার ৫৪১, বেলুচিস্তানে ৬০৭, গিলগিত বালতিস্তানে ৩০০, আজাদ জম্মু-কাশ্মীরে ৫৫ এবং ইসলামাবাদে আক্রান্তের সংখ্যা ২১৪ জন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.