পুরাণবাজারে শামিম হত্যায় গ্রেফতার ৬, এলাকা পরিদর্শনে ওসি

আশিক বিন রহিম :
চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজারে মাদক ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু’গ্র“পের সংঘর্ষে নিরীহ পথচারী শামিম গাজী (২৬) হত্যার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাসিম উদ্দিন। ৫ জুলাই রোববার দুপুরে তিনি পুরাণবাজারের মেয়র রোড়, মেরকাটিজ রোড়সহ সংঘটিত ঘটনাস্থলগুলো পরিদর্শন করেন। এসময় তিনি এই ঘটনায় নিহত পথচারি শামিম হত্যার সাথে জড়িত আসামীদের বিষয়ে এলাকাবাসীর কাছ থেকে তথ্য-উপাত্থ সংগ্রহ করেন তিনি। এসময় পুরাণবাজার ফাঁড়ি পুলিশের ইনচার্জ মো. মাসুদ হোসেনসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
ওসি মো. নাসিম উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়, অপরাধী যেই হোক তাকে শাস্তি পেতে হবে। মাদক ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে নিরীহ পথচারী শামীম হত্যার ঘটনায় একজন অপরাধীও ছাড় পাবে না। তবে এই ঘটনায় কোনো নিরীহ মানুষ যাতে হয়রানির শিকার না হয় সে ব্যাপারে আমরা সতর্ক রয়েছি।
তিনি আরো জানান, এখন থেকে একজন অপরাধী কিংবা মাদককারবারি যাতে এই এলাকায় প্রবেশ করতে না পারে সেদিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সজাগ দৃষ্টি রয়েছে। পাশাপাশি সচেতন এলাকাবাসীকেও সজাগ থাকতে হবে। এলাকার শান্তি বজায় রাখতে এলাকা মানুষকেই সবার আগে এগিয়ে আসতে হবে।
এদিকে মাদক ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে নিরীহ পথচারী শামীম গাজী হত্যা মামলায় ৬ আসামীকে আটক করেছে পুলিশ। ৩০ জুন থেকে ৪ জুলাই অভিযান চালিয়ে পুরাণবাজারের বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এর মধ্যে মামলার এজাহারভুক্ত ৬নং আসামী ইয়াছিন মিজি (২৮) ও ৮নং আসামী হুমায়ুন ফরাজী (৩০)সহ অজ্ঞাত আসামী খোকন গাজী (৩০), শরীফ ছৈয়াল (২২), সোহাগ পাটওয়ারী (২৫) ও সুমন ফকির (২৭)কে আটক করা হয়।
এর আগে ১ জুলাই রাতে শামীমের পিতা মোঃ তাজুল ইসলাম গাজী বাদী হয়ে যুবলীগ নেতা জহির খানকে প্রধান এবং আরেক যুবলীগ নেতা রাসেল পাটওয়ারী ২নং আসামী করে ৯ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা ২৫০ জনকে আসামী করে চাঁদপুর মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং-৪। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই বিপ্লব নাহা আসামীদের আটকে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছেন।
উল্লেখ্য, চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজার মেরকাটিজ রোডে ২৯ জুন রাত সাড়ে ৮টায় মাদক বিক্রির ঘটনায় দ্রু’গ্র“পের সংঘর্ষে পথচারী শামীম গাজী (১৮) নামে এক যুবক নিহত হয়ছে। সংঘর্ষ চলাকালীন সময়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ১০ রাউন্ড সর্টগানের গুলি ছুড়ে। এসময় প্রতিপক্ষের ইটের আঘাতে নিহত শামীমের মাথায় ও ঘাড়ে আঘাত লাগে। বাড়িতে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে শামিম অতিরিক্ত বমি করলে তাকে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। কর্তব্যরত চিকিৎসক অবস্থার অবনতি দেখলে শামীমকে ঢাকা মেডিকেলে প্রেরন করে। গত মঙ্গলবার সকাল ৬টায় সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলে মৃত্যুবরণ করে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *