ফরিদগঞ্জে সাড়ে ১৭ হাজার ইয়াবাসহ তিন মাদক ব্যবসায়ী আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুর জেলার সবচেয়ে বড় ইয়াবার চালান উদ্ধার হয়েছে ফরিদগঞ্জে। সোমবার দুপুরে উপজেলার ৭নং পাইকপাড়া উত্তর ইউনিয়নের শাচিয়াখালী এলাকা থেকে সাড়ে ১৭ হাজার পিস ইয়াবা, নগদ ৭০ হাজার টাকাসহ তিন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করতে সমর্থ হয় ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রকিবের নেতৃত্বে ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ। সোমবার বিকালে ফরিদগঞ্জ থানায় চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হাজীগঞ্জ ও ফরিদগঞ্জ সার্কেল) আফজাল হোসেন প্রেস ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানান।

প্রেসব্রিফিংয়ে বলা হয়, সোমবার দুপুরে থানা পুলিশ গোপন সূত্রে সংবাদ পায় ইয়াবার একটি বড় চালান ফরিদগঞ্জে এসেছে। সেই প্রেক্ষিতে অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রকিবের নেতৃত্বে এসআই জালাল, এএসআই শিকদার হাসিবুর রহমানসহ সঙ্গীয় ৭নং পাইকপাড়া উত্তর ইউনিয়নের শাচিয়াখালী গ্রামের খালপাড়স্থ মামুন পাটওয়ারীর বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে সাড়ে ১৭ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে। যার মূল্য প্রায় ৫২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। এসময় ওই বাড়ির মালিক মামুন পাটওয়ারী(৪২), চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার সুখছড়ি গ্রামের রাসেল (৩৬)ও একই গ্রামের রেজাউল করিম (২২)কে আটক করে। এছাড়া তাদের কাছ থেকে ইয়াবা ছাড়া নগদ ৭০ হাজার টাকা এবং একটি মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফজাল হোসেন আরো জানান, আটককৃত মামুনের বিরুদ্ধে কুমিল্লার কোতয়ালী থানায় মাদক আইনে মামলা (১৯/৭৯৬) এবং রাসেলের বিরুদ্ধে ফেনী সদর থানায় মাদক আইনে মামলা (২২/৭৮৮) রয়েছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়েরের পর তাদের রিমান্ডের আবেদন করা হবে।

ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রকিব জানান, আটককৃতরা চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তাদের বিরুদ্ধে কুমিল্লা ও ফেনীসহ বিভিন্ন স্থানে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। আটককৃতরা দীর্ঘদিন কঙ্বাজার থেকে ইয়াবা নিয়ে এসে ঢাকাসহ আশপাশের কয়েকটি জেলায় সরবরাহ করতো। এছাড়া মামুনের ভাই রাজু ইতিপুর্বে ২হাজার ১শত পিস ইয়াবাসহ আটক হয়ে বর্তমানে জেলে রয়েছে।

এদিকে একটি সূত্র জানায়, শাচিয়াখালী গ্রামের আব্দুল হাই পাটওয়ারীর ছেলে মামুনরা চার ভাইয়ের মধ্যে তিন ভাই মাদকের সাথে জড়িত। মামুন কিছুদিনের মধ্যেই শাচিয়াখালী গ্রামে কোটি টাকা ব্যয়ে বিশাল ভবন তৈরি করে। ওই বাড়ির চারিদিকে সিসি ক্যামেরা রয়েছে। মামুনের এক ভাই রাজু মাদক সংশ্লিষ্টতায় জেলে রয়েছে। আরেক ভাই রাসেল কয়েক বছর পূর্বে তার স্ত্রীসহ মাদক নিয়ে এলাকাবাসীর হাতে আটকের পর গাঢাকা দিয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *