শাহরাস্তিতে মডেল মসজিদের স্থান পরিদর্শনে অতিরিক্ত সচিব

জাকির হোসাইন খান :
শাহরাস্তিতে মডেল মসজিদের স্থান নির্ধারণ এর জটিলতা নিরসনে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় অতিরিক্ত সচিব উন্নয়ন মু. আ: আউয়াল বিবাদমান স্থান পরিদর্শন করেছেন। গতকাল শনিবার বেলা ১১টায় পৌরসভার নিজমেহার ৮ নং ওয়ার্ডের সদরে এ ভূমি দুইটি পরিদর্শন করেন।
বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তি উপজেলায় জন্য নির্ধারিত মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপনের জন্য দীর্ঘদিন পূর্বে ভূমি নির্ধারণের প্রস্তাব আসে। ওই সময় তৎকালীন প্রশাসন কয়েকটি প্রস্তাবনা পাঠায়। পরে নানা জটিলতা ওই ভূমি গুলিতে মডেল মসজিদ নির্মাণ করা যায়নি। এরপর ৮ নং ওয়ার্ডের বদিউজ্জামান ও আব্দুল হাই মাস্টারের ভূমির প্রস্তাবনা মন্ত্রণালয় দপ্তরে পাঠানো হয়। এরপর প্রথমে ওই ভূমিটি নাল জমি হিসাবে অধিগ্রহণের আলোচনা হলেও একপর্যায়ে জমির মালিক গন ওই ভূমিকে ভিটেবাড়ি হিসেবে অধিগ্রহণের প্রস্তাব করেন। এতে তৈরি হয় নানা জটিলতা। পরে এই বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ওই মন্ত্রণালয় সরকারের দেড় কোটি টাকা বেশি লাগছে বলে অভিযোগ পাঠায় কেবা কারা। পরে বিষয়টি ঝুলে যায়। এরপর মডেল মসজিদ নির্মাণে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সম্প্রতি ওই স্থানের পাশে নাল জমি হিসাবে শাহরাস্তি ব্রিকসের পরিত্যক্ত জমিনে একটি প্রস্তাবনা পাঠানো হয়। ওই ভূমিতে কিছুদিন পূর্বে জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিস সরেজমিনে পরিদর্শন করেন। বর্তমানে এই দুটি ভূমিকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় অতিরিক্ত সচিব মোঃ আব্দুল আউয়াল পরিদর্শনে আসেন । ওই সময় সঙ্গে ছিলেন ওই মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (উন্নয়ন) মোঃ সাখাওয়াত হোসেন,চাঁদপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খাঁন মজলিস। পরে বিষয়টি নিয়ে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা হলরুমে ইউএনও শিরিন আক্তারের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, তিনি বলেন এই মসজিদগুলি নির্মাণ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঐতিহাসিকভাবে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। আপনার আন্তরিক ভাবে সহযোগিতা করলে আপনাদের মসজিদ নির্মাণ করা হবে।
জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খাঁন মজলিস সংক্ষিপ্ত বক্তব্য বলেন আমি এ জেলায় যোগদান করে মসজিদের ভূমি অধিগ্রহণের নানা অনিয়মের কথা শুনতে পাই। যেটি একটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান নির্মাণে প্রযোজ্য নয়। কারণ মসজিদ আল্লাহর ঘর। বর্তমানে আপনারা সহযোগিতা করলে আমরা সরকারি নিয়ম-নীতি মেনে মসজিদের স্থান নির্ধারণ করব।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (উন্নয়ন) মোঃ সাখাওয়াত হোসেন, চাঁদপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খাঁন মজলিস, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব ) মোঃ জামাল হোসেন, উপজেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) চেয়ারম্যান কামরুন্নাহার কাজল, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট উম্মে হাবিবা মীরা, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উজ্জল হোসেন, উপজেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক ও পৌর মেয়র আলহাজ্ব আব্দুল লতিফ, শাহরাস্তি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবদুল মান্নান, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ ইরান, উপজেলা আ’লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জেড এম আনোয়ার, রায়শ্রী উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম পাটোয়ারী লিটন,টামটা উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান ওমর ফারুক দর্জি , আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর মো আদেল, দশটি ইউপি চেয়ারম্যান, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সরকারি কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *