শাহরাস্তিতে হত্যার চেষ্টা মামলায় তহশিলদারসহ ৫ জনের কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক :
যুবলীগ নেতাকে হত্যার চেষ্টা করে পা ভেঙ্গে দেওয়া মামলায় ইউনিয়ন ভূমি অফিসের তহশিদারসহ ২ জনের সাড়ে ৫ বছর ও ৩ জনের ৬ মাসের সাজা দিয়ে আদালত কারাগারে পাঠিয়েছে। চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তি উপজেলার চিতোষী পুর্ব ইউনিয়ন এলাকার রায়েরবাগে এই ঘটনা ঘটে। গত রোববার চাঁদপুর বিজ্ঞ চীফজুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মুহাম্মদ সামছুল ইসলাম এই রায় দেন।
মামলায় ৭ জনকে আসামী করা হয়, ৭ জনের মধ্য ২ জনকে ৫ বছর ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ড এবং ৫শত টাকা অর্থ দন্ড জরিমানা অনাদায়ে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং ৩ জনকে ৬ মাস এবং ২ জনকে খালাস দেওয়া হয়। ৫ বছর ৬ মাস কারাদন্ড প্রাপ্তরা হলেন, সূচীপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের রাগৈ ভুমি অফিসের তহশিলদার নরহ গ্রামের মৃত জেলহাজের রহমানের পুত্র শফিকুল ইসলাম(৫০), রায়েরবাগ গ্রামের মৃত আমির আলীর পুত্র মে. সুমন (৩২)। ৬ মাস ও অর্থদন্ড প্রাপ্তরা হলেন, নরহ গ্রামের শফিকুল ইসলামের পুত্র হাবিব (২২) ও একই গ্রামের মৃত আব্দুর রহিমের পুত্র জাহাঙ্গির আলম (৩৮), । মামলা হতে অব্যহতি প্রাপ্তরা হলেন, রায়েরবাগ গ্রামের মোবারক হোসেনের পুত্র খালেদ মোশারফ (৩৫), কসবা গ্রামের বাহার উদ্দিনের পুত্র মো. শাহীন (২৪)।
এজাহার সুত্রে জানাযায়, গত ১৭ এপ্রিল/২০১৮খ্রী: তারিখে রাত আনুমানিক ১১টার সময় যুবলীগ নেতা মো. আছির আহম্মদ (৪৬) চিতোষী বাজার হতে মোটর সাইকেল যোগে রওয়ানা হয়ে রায়েরবাগ শাহশরীফ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে পৌঁছলে পুর্ব পরিকল্পিতভাবে ওঁৎ পেতে থাকা তহশিলদার শফিকুল ইসলাম, আবুল বাশারসহ ৬/৭জন সঙ্গবদ্ধ হয়ে বাহনের গতিরোধ করে অর্তকীত হামলা চালিয়ে মটরসাইকেল ভাংচুর করে রাস্তার পাশে পেলে দেয় এবং ওই সময় আছিরের পা ভেঙ্গে দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। তার ডাকচিৎকার শুনে আশে-পাশের লোকজন ঘটনাস্থল এসে তাকে উদ্ধার করে এবং স্বজনদের খবর দেয়। স্বজনরা আশংঙ্কাজনক অবস্থায় আছিরকে প্রথম চাঁদপুর ও পরে ঢাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। এই ব্যাপারে আছিরের ছোট ভাই বাদি হয়ে ৭ জনকে বিবাদি করে শাহরাস্তি থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন। মামলা নং-১২, তাং-১৯-৪-১৮খ্রী:। এজাহার ভুক্ত বিবাদিরা হলেন, আবুল বাশার(২৪), সফিকুল ইসলাম (৫০), মো. শাহীন (২৪), মো. সুমন (৩২), খালেদ মোশারফ (৩৫), হাবিব (২২), জাহাঙ্গীর আলম (৩৮)। শাহরাস্তি থানা পুলিশ তদন্ত শেষে মামলার সাচসীট বিজ্ঞ আদালতে পাঠান। মামলাটি জি.আর. মামলা নং-৫১/২০১৮ রুপ নেয়। রাষ্ট্র পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন বিজ্ঞ এ.পি.পি মো. শহিদ উল্যাহ পাটওয়ারী এবং বিবাদির পক্ষে বিজ্ঞ কৌশলী ছিলেন মো. শাখাওয়াত শেখ।
অপর দিকে সাজাপ্রাপ্ত আসামী পক্ষ চাঁদপুর জেলা দায়রা জজ আদালতে আপিল করে জামিন প্রার্থনা করে। বিজ্ঞ আদালত সাড়ে ৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত ২ জনের জামিন নামঞ্জুর করে অপর ৩ সাজাপ্রাপ্ত আসামির জামিন মঞ্জুর করেন। অপর দিকে বাদি পক্ষ খালাস প্রাপ্ত খালেদ মোশারফ ও মো. শাহিনের বিরুদ্ধে আপিল মামলা রজু করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.