সৃষ্টিশীল কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে অপশক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান : ডা. জে আর ওয়াদুদ টিপু

চাঁদপুর ড্রামার ৩ যুগপূর্তি উপলক্ষে নাট্যোৎসবের সমাপন
: এইচ.এম নিজাম :
বাংলাদেশ গ্র“প থিয়েটার ফেডারেশনভুক্ত নাট্য সংগঠন চাঁদপুর ড্রামার তিন যুগপূর্তি উপলক্ষে চার দিনব্যাপী নাট্যোৎসবের সমাপনী দিন আলোচনা সভা ও নাটক মঞ্চস্থ হয়েছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যায় জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে চাঁদপুর ড্রামার সভাপতি তপন সরকারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মানিক পোদ্দারের সঞ্চালনায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ জে আর ওয়াদুদ টিপু।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের প্রাক্তণ সদস্য চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিজয় মেলার মহাসচিব হারুন আল রশিদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট চাঁদপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এডিশনাল পিপি অ্যাডঃ বদিউজ্জামান কিরন, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী, জর্জকোটের পিপি অ্যাডঃ রনজিত রায় চৌধুরী, এপিপি অ্যাডঃ সাইফুদ্দিন বাবু, চাঁদপুর পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সোহেল রানা, ব্যবসায়ী পরেশ মালাকার।
ডাঃ জে আর ওয়াদুদ টিপু বলেন, যারা স্বাধীনতাকে মেনে নিতে পারেনি তারা যুব সমাজকে বিপদগামী করে দিচ্ছে। তিনি নাট্য ও সাংস্কৃতিক জগতের কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা আপনাদের সৃষ্টিশীল কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে বর্তমান অপশক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান। আর আমরা রাজনীতিকরা মাঠে আছি। আর তখনই এরা মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবে না। এদেশে যুগ যুগ ধরেই সাংস্কৃতিক কর্মীরা এদেশের ঐতিহ্য, কৃষ্টি, স্বাধীনতার চেতনাকে রক্ষা করেছে, আজও করছে। তিনি বলেন, আমি একজন চিকিৎসক হিসেবেও সেবা করছি এবং পাশাপাশি রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে সমাজের সেবা করতে ভালবাসি। তাছাড়া আমি তো আপনাদের সাথে আছি থাকবো। আপনারা নাটকের মাধ্যমে সঠিক ইতিহাস তুলে ধরবেন এ প্রত্যাশা করি।
অন্যান্য বক্তারা বলেন, দেশে করোনা মহামারির মাঝে চাঁদপুর ড্রামা ৩ যুগপূর্তি করছে। এ মঞ্চটি ২০০৮ সালে এমন ছিলো না, এখানে টিনের ঘর ছিল। ডাঃ দীপু মনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার পর এ মঞ্চটি করা হয়। আমরা এখন এখানে নাটক, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও রাজনৈতিক সভা সমাবেশ করছি। এ সবই উন্নয়ন হয়েছে ডাঃ দীপু মনির মাধ্যমে। চাঁদপুরের শিল্প সংস্কৃতির এ উন্নয়ন সারা বাংলাদেশে ছড়িয়ে আছে। বিজয়ের মাসে জাতির পিতার ভাস্কর্য ভাংচুর করা হলো তার জন্য বিএনপি কোনো প্রতিবাদ করেনি। আজকে আমরা চাঁদপুর ড্রামার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর নাট্যোৎসবে প্রাণ খুলে কথা বলতে পারিনা। আমাদের বুকে আজ রক্তক্ষরণ হচ্ছে। আমরা প্রতিবাদ করেছি। জামাত-শিবির, মৌলবাদী চক্রের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে সাংস্কৃতিক কর্মীরা।
সিরাজুল ইসলাম সিরাজ রচিত ও পরিমল দাস নুপুরের নির্দেশনায় রূপবান নাটক মঞ্চস্হ হয়। নাটকে অভিনয় করেন পরিমল দাস নুপুর, তানিয়া, শৈলী দাস, অভিজিত, জিদান, মানিক পোদ্দার, মজিবুর রহমান দুলাল, আফসানা আক্তার তন্নি আনোয়ার হোসেন, পলাশ মুজদার, কৃষ্ণ গোপাল সরকার, আনোয়ার হোসেন, দুলাল দাস, গোবিন্দ মণ্ডল, ইমতিয়াজ উদ্দীন মাসুদ, অজিত সরকার, খোরশেদ আলম খোকন, সুকুমার দাস, শংকর রায়, জয়িতা দাস, পিপল,নবীর , অ্যাডঃ শ্যাম সুন্দর রায়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *