হাজীগঞ্জে ১৫ ডিসেম্বর স্মরণকালের বৃহত্তম বিক্ষোভ মিছিল হবে

শাখাওয়াত হোসেন শামীম :
আসছে ১৫ ডিসেম্বর হাজীগঞ্জে স্মরণকালের বৃহত্তম বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হবে। পাকিস্তানি প্রেতাত্মার দল কর্তৃক জাতির জনকের ভাস্কর্য ভাঙ্গার প্রতিবাদে এই বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হবে। এতে স্মরণকালের সবচে’ বেশি নেতা-কর্মীর সমাগম ঘটানো হবে। যারা আওয়ামী লীগের লোক তারা সেদিন ঘরে বসে থাকতে পারবেন না। এটা জাতির জনকের বিষয়। গত শুক্রবার হাজীগঞ্জের বাকিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী মাইনুদ্দিন।
বাকিলা বাজারস্থ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় গাজী মাইনুদ্দিন আরো বলেন, অনেক বলেন ১৫ ডিসেম্বর হাজীগঞ্জে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিল নাকি আমার,যারা এ জাতীয় প্রোপাগান্ডা ছড়ায় তাদেরকে বলতে চাই, এটা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সিদ্ধান্ত। এটা আমার সিদ্ধান্ত নয়। এই বিক্ষোভে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল উপস্থিত থাকবেন। বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে মিথ্যে কথা বলে কেউ বিভ্রান্তি ছড়াবেন না। এটা জাতির জনকের ভাস্কর্য ভাঙ্গার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ।
বাকিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও বাকিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহফুজুর রহমান ইউসুফ পাটোয়ারীর সভাপ্রধানে গাজী মাঈনুদ্দিন আরো বলেন, পদ্মা সেতু নিয়ে দেশে বহু প্রোপাগান্ডা ছড়ানো হয়েছিলো, কিন্তু পদ্মা সেতুর কাজ থেমে থাকেনি। যারা ভাস্কর্য নিয়ে প্রোপাগান্ডা ছড়ায় তারা পাকিস্তানি প্রেতাত্মা ছাড়া কিছুই না। জিয়াউর রহমানের ভাস্কর্য নিয়ে তারা ফতোয়া দেয় না, অথচ জাতির জনকের ভাস্কর্য নিয়ে ফতোয়া দেয়।
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব হেলাল উদ্দিন মিয়াজি, বাকিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অমল ধর, বাকিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি রফিক উল্যাহ খান কাজল, বাকিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মানিক মেম্বার, ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আবুল বাসার, আওয়ামী লীগ নেতা মাঈনুদ্দিন, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন।
অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক রবিউল আলম অরুন। এ সময় ইউনিয়নের সকল ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকগণসহ কয়েকশ’ নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *