৪৯ দিন পর ঢাকা-চাঁদপুর লঞ্চ চলাচল : স্বস্তিতে লঞ্চ মালিক-শ্রমিক যাত্রীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক :
মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দীর্ঘ ৪৯ দিন বন্ধ থাকার পর অবশেষে ঢাকা-চাঁদপুর লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে। এতে স্বস্তি ফিরেছে লঞ্চের মালিক, কর্মরত শ্রমিক ও সাধারণ যাত্রী সাধারণের মাঝে। ফলে ২৪ মে লঞ্চ চলাচলের প্রথম দিনেই যাত্রিদের ভিড় ছিলো চোখে পড়ার মতো। এদিন সকাল ছয়টায় এম ভি রফ রফ-৭ চাঁদপুর লঞ্চঘাট থেকে ঢাকা সদর ঘাটের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। লঞ্চ চলাচলে দীর্ঘদিনের ভোগান্তির দূর হয় খুশি সাধারণ যাত্রীরা। চাঁদপুর লঞ্চ ঘাটে এই বিপুল সংখক যাত্রীর স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে কাজ করছে বিআইডবিøউটিএ, নৌ পুলিশ ও জেলা প্রশাসন কর্মকর্তারা।
এর আগে গত ৬ এপ্রিল থেকে সরকার ঘোষিত লকডাউনের মাধ্যমে দেশের সকল দূরপাল্লার গণপরিবহন, লঞ্চ অভ্যন্তরীণ বিমান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এতে করে দীর্ঘদিন মালিক ও শ্রমিক পক্ষ লঞ্চ ও গণপরিবহন চালুর দাবি জানায়। অবশেষে গতকাল সরকার এসব যানবাহন চলাচলের অনুমতি দেয়। এতেই প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে চাঁদপুরে লঞ্চঘাটে।
সরেজমিনে সোমবার (২৪ মে) সকালে চাঁদপুর লঞ্চঘাট ঘুরে দেখা যায়, স্বাস্থ্যবিধি মেনে লঞ্চে যাত্রী উঠানো হচ্ছে। এছাড়া প্রবেশমুখে প্রতিটি লঞ্চের একজন করে শ্রমিক দাঁড়িয়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও যাত্রীদের মাক্স নিশ্চিত করার লক্ষ্যে অবস্থান করছেন। এছাড়াও হ্যান্ড মাইক এর মাধ্যমে যাত্রীদের সচেতন করার জন্য প্রচারণা কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হয়েছে।
ঢাকাগামী যাত্রী বারেক গাজী, মোহাম্মদ জসিম উদ্দিনসহ বেশকয়েকজন জানান, অবশেষে সরকার লঞ্চ-বাস চলাচল চালু করায় আমাদের ভোগান্তি অনেক কমেছে। এর আগে গত ঈদে পরিবারের সাথে ঈদ উদযাপন করার জন্য আসতে প্রচন্ড ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। আমাদের কয়েক ধাপে ভেঙে এবং ২০০ টাকার জায়গায় প্রায় ২ হাজার টাকার মতো খরচ হয়েছে। সবশেষে সরকার এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ায় অনেক খুশি যাত্রীরা বলে জানান তারা।
এদিকে লঞ্চ চলাচল চালু হওয়ায় খুশি লঞ্চে কর্মরত শ্রমিক-কর্মচারীরা। তারা জানায়, বন্ধ থাকার কারণে তারা ঘরে শুয়ে বসে দিন কাটিয়েছে অবশেষে চালু হওয়ায় তাদের কর্মচাঞ্চল্য ফিরে পাওয়ার সাথে সাথে আয় রুজির পুনরায় ব্যবস্থা হল।
লঞ্চ সুপারভাইজার আজগর আলী সরকার জানান, যাত্রীদের নিরাপত্তা মাক্স পরিধান এবং সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে দজ কর্তৃপক্ষ সজাগ দৃষ্টিতে আছে।
চাঁদপুর বিআইডবিøউটিএ এর উপ-পরিচালক কায়সারুল ইসলাম জানান, সরকারি নির্দেশনা মেনে লঞ্চের ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী এবং নির্ধারিত ভাড়ায় লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে। এছাড়াও যাত্রীদের নিরাপত্তা হ্যান্ড স্যানিটাইজার মাক্স পরিধান সহ সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে বিআইডবিøউটিএ নৌ পুলিশ এবং জেলা প্রশাসন কাজ করছে।
উল্লেখ্য, এদিন লঞ্চে যাত্রীদের ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ডেক ১৬০, ১ম শ্রেণি ও বিজনেস ক্লাস ৪০০, সিংগেল কেবিন ৫০০ ও ডাবল কেবিন ১০০০। এছাড়া চাঁদপুর লঞ্চঘাট থেকে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও বিভিন্ন অঞ্চলের মোট ৩৫ টি লঞ্চ চলাচল করে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *