কচুয়া উপজেলা চেয়ারম্যান শিশিরের বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশিরের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা করেছে হাইকোর্ট বিভাগ। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) হাইকোর্টে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশিরের পক্ষে রিট আবেদন করলে হাইকোর্টের বিচারপতি মজিবুর রহমান ও কামরুল ইসলাম হোসেন মোল্লার দ্বৈত বেঞ্চ শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।
শাহজাহান শিশিরের আইনজীবী এম.কে রহমান এ রায়ের তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, এর ফলে শাহজাহান শিশিরের উপজেলা চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালনে আর কোনো আইনগত বাধা রইল না।
কচুয়া উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশিরের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করায় কচুয়ায় নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসব ও আনন্দ বিরাজ করছে।
এর আগে কচুয়া শহীদ স্মৃতি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে কোটি টাকা ব্যয়ে ৬তলা বিশিষ্ট ভবন নির্মাণে অনিয়মের সূত্র ধরে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের চাঁদপুরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী নুরে আলমকে মারধরের অভিযোগে একটি মামলা করা হয়। পরে গত ২৩ জুলাই স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় থেকে চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশিরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয় এবং তার স্থলে প্যানেল চেয়ারম্যান সুলতানা খানমকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়। পরে প্রকৌশলীর মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন প্রার্থনা করলে আদালত তা নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠান। ৩ মাস ১২ দিন কারাভোগের পর ওই বছরের ৭ ডিসেম্বর তিনি হাইকোর্ট থেকে জামিনপ্রাপ্ত হয়ে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি লাভ করেন।
এদিকে গত ১ সেপ্টেম্বর মহানগর দায়রা জজ ঢাকা আদালতে হাজির হয়ে ধানমন্ডি থানায় দায়েরকৃত ডিজিটাল নিরাপত্তা (আইসিটি) মামলায় স্থায়ী জামিন প্রার্থনা করলে জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন আদালত। বর্তমানে তিনি ঢাকার কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন।
এদিকে আইসিটি মামলা থেকেও বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে শাহজাহান শিশির জামিন পাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে বলেও তার আইনজীবী মো. ইব্রাহিম খলিল মজুমদার এ প্রতিনিধিকে জানিয়েছন।

কচুয়া পৌর কাউন্সিলর ও উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি কামাল হোসেন অন্তর বলেন, এ রায়ের মাধ্যমে সত্যের জয় হয়েছে। আমরা উচ্চ আদালতের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।

 

২৩-৯-২১

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *