চলছে অনার্সের ভর্তি কার্যক্রম : কলেজে এসে খুশি শিক্ষার্থীরা

ইব্রাহীম রনি :
করোনা ভাইরাসের কারণে দীর্ঘ ১৭ মাস বন্ধ থাকার পর আগামী ১২ সেপ্টেম্বর খুলছে স্কুল-কলেজ। তবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিনস্ত সকল কলেজে অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের ভর্তি কার্যক্রম শুরু হওয়ায় কলেজমুখী হতে শুরু করেছে শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা বলছে, দীর্ঘ দিন পর কলেজ আঙিনায় আসতে পেরে খুশি তারা। আর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে কলেজের অফিসিয়াল কার্যক্রম।


৬ সেপ্টেম্বর সোমবার সকালে জেলার সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ চাঁদপুর সরকারি কলেজ ঘুরে দেখা গেলো, জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে ছাত্রছাত্রীরা আসছেন কলেজে। মুখে মাস্ক আর হাতে অনার্সে ভর্তির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র। তারা ভর্তিচ্ছু ডিপার্টমেন্টের শ্রেণিকক্ষে বসেই সেরে নিচ্ছেন ভর্তির যাবতীয় কার্যক্রম। এতে তাদের সহযোগিতা করছেন কলেজ সংশ্লিষ্টরা। কেউ কেউ আবার ভর্তির কাজ সেরে দূরত্ব বজায় রেখে সহপাঠী ও বন্ধুদের সাথে বসে গল্পে মেতেছেন।


চাঁদপুর সরকারি কলেজের সমাজকর্ম বিভাগে ভর্তির সুযোগ পাওয়া মাইমুনা আক্তার বলেন, আমি যে সাবজেক্টকে প্রথম চয়েজ দিয়েছিলাম সেটিই পেয়েছি। তাই আজ এসেছি ভর্তি হতে। দীর্ঘ দিন পর কলেজে এসে খুব ভালো লাগছে।
সমাজকর্ম বিভাগের জাহিদ, জুয়েল বলেন, আমরা অন্য কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেছি। এ কলেজের ডিপার্টমেন্টে এসেছি আজই প্রথম। অনেক সহপাঠীদের দেখছি। তাই আমাদের অনুভুতিটা অন্যরকম।
ইতিহাস বিভাগে ভর্তি হতে আসা নাছিমা বলেন, ভর্তির কাগজপত্র ঠিক করতে কলেজে এসেছি। কয়েকজন সহপাঠীর সঙ্গেও দেখা হলো। সব মিলে দীর্ঘ দিন পর কলেজে এসে আনন্দ লাগছে।


চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজে অনার্সে ভতি হতে আসা নাহিদা সুলতানা বলেন, ভর্তি শুরু হওয়ায় কলেজে এসেছি। এইচএসসির সার্টিফিকেট আগে তুলতে পারিনি। তাই এখন কলেজে এসে সার্টিফিকেট, টেস্টমুনিয়াল সংগ্রহ করেছি। ভর্তির জন্য সব কাগজপত্র জমা দিবো।
চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর অসিত বরণ দাস বলেন, আমাদের কলেজে ১৭টি ডিপার্টমেন্টে আসন সংখ্যা ২ হাজার ৫৬৫টি। এসব আসনে ভতিচ্ছু শিক্ষার্থীদের ভর্তি কার্যক্রম চলছে। ভর্তি হতে শিক্ষার্থীদের কলেজে আসার প্রয়োজন নেই। তবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় বলেছে- তাদের কাগজপত্র ভেরিফাই করতে। সেজন্যই শিক্ষার্থীদের কলেজে আসতে হচ্ছে। আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনেই ভর্তি কার্যক্রম চালাচ্ছি।
চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মাসুদুর রহমান বলেন, আমাদের এখানে সমাজকল্যাণ, বাংলা, ইতিহাসসহ ৪টি বিষয়ে অনার্স রয়েছে। এ বিষয়গুলোতে সর্বমোট ৪৭৫ আসনে ভর্তি হবে শিক্ষার্থীরা।
তিনি বলেন, রোববার থেকেই ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এ কার্যক্রম লেট ফি ছাড়া চলবে আগামী ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। কলেজে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীদের যাবতীয় কাগজপত্র জমা দিতে হয়। সেমিনার ফি দিতে হয়। এসব কারণে ছাত্রছাত্রীদের কলেজে আসতে হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *