চাঁদপুরে নৌকাবাসী পেল ভাসমান ওয়াশ সেন্টার

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুরে নৌকায় বসবাসকারী সম্প্রদায়ের সহনশীলতা” শীর্ষক প্রকল্পের আয়োতায় অক্সফ্যাম এবং সিএনআরএস দাতা সংস্থা কোরিয়া ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (কোইকা)-র সহায়তায় পরীক্ষামূলকভাবে চারটি সমন্বিত ‘ভাসমান ওয়াস সেন্টার (এফডব্লিউসি)’ নির্মাণ এবং হস্থান্তর করা হয়েছে। ২১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় চাঁদপুর প্রেসক্লাব ভবনের দ্বিতীয় তলায় এই আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়।
প্রতিটি ভাসমান ওয়াশ সেন্টারে রয়েছে নৌকাবাসী নারী-পুরুষের জন্য আলাদা আলাদা টয়লেট, রান্না এবং খাবারের জন্য বিশুদ্ধ পানি। ওয়াশ সেন্টারগুলো চাইলেই এক স্থান থেকে অন্য স্থানে নেয়া যাবে। এগুলোর পরিচর্যার অর্থ যোগানে একটি হাইজিন সেন্টার করা হয়েছে। যাতে নৌকাবাসী কর্মহীন নারীরা স্যানিটারি পেড এবং মাস্ক তৈরী করবেন।


ভাসমান ওয়াশ সেন্টার হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ইমতিয়াজ হোসেন।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ একটি নদীমাতৃক দেশ। আমাদের দেশের জনগোষ্ঠীর বৃহৎ একটি অংশ নদীর উপর নির্ভরশীল। আর নৌকাবাসী জনগোষ্ঠীরা জীবন ও জীবিকার পুরোটা নদীর উপর। কারণ তারা নদীতে বসবাস করেন। তারা স্বাস্থ্যসেবার বিষয়ে যেমন অসচেতন, তেমনই সেবাগ্রহণ থেকেও অনেকাংশই বঞ্চিত থাকে। আজকে কোইকা’র অর্থায়নে এবং অক্সফাম ও সিএনআরএস এর সহোযোগিতায় চাঁদপুরে নৌকাবাসী জনগোষ্ঠীর মাঝে ভাসমান ওয়াশ সেন্টার হস্তান্তর করা হচ্ছে। পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য এটি একটি মহতি উদ্যোগ।
তিনি আরো বলেন, সরকার পিছিয়ে পরা জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। আমি মনে করি, সরকারের পাশাপাশি যারা সমাজের বিত্তশালী আছেন তারা যদি এগিয়ে আসেন, তবে এই পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী আরো বেশি সুন্দর জীবন-যাপনের সুযোগ পাবে। পাশাপাশি সরকারের লক্ষ্য এবং প্রচেষ্টা আরো দ্রুত সাফল্য পাবে। চাঁদপুরের পাশাপাশি দেশের অন্যান্য জেলাগুলোতেও যদি নৌকাবাসীদের এমন ভাসমান ওয়াশ সেন্টার করা হয় তবে, এই জনগোষ্ঠী উপকৃত হবে।
অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী বক্তব্যে অক্সফ্যাম-এর কান্ট্রি ডিরেক্টর আসীস দামলে, এই প্রকল্পের সাথে সংযুক্ত সকলকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, ভৌগলিক অবস্থানের কারনে নৌকাবাসী সম্প্রদায় বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। প্রকল্প থেকে নির্মিত ভাসমান ওয়াস সেন্টারগুলি অক্সফামের ওয়াস কৌশলের মূল উদ্দেশ্য যেমন জলের নিরাপত্তাহীনতা, সম্পদায়ের স্থিতিস্থাপকতা তৈরি করা এবং সম্প্রদায়ের জন্য, বিশেষ করে নারী ও শিশুদের জন্য মৌলিক অধিকার এবং সুরক্ষা নিশ্চিত করা সাথে সম্পর্কিত।“
প্রকল্পের উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য তুলে ধরেন কোইকা’র কো-অর্ডিনেটর জীনবো চুঁই, অক্সফাম এর জলবায়ু অধিকার টিমের হেড অব পোগ্রাম সাসকিয়া গ্রার্জেন।
সকলকে স্বাগত জানান, দাতা সংস্থা কোরিয়া ইন্টারন্যাশলান কর্পোরেশন এজেন্সি (কোইকা) কান্ট্রি ডিরেক্টর ইউং অহ দো, অক্সফাম বাংলাদেশ এর কান্ট্রি ডিরেক্টর আশিষ দামলে, সেন্টার ফর ন্যাচারাল রিসোর্স স্টাডিজ (সিএনআরএস) এর সিনিয়র পোগ্রাম অফিসার মুখলেসুর রহমান চৌধুরী।
কোইকা কান্ট্রি ডিরেক্টর ইয়ং আহ-দো স্বাগত বক্তব্যে বলেন “চাঁদপুরে প্রায় ৯০ ভাগ নৌকাবাসী জনগন নিরাপদ পয়নিষ্কাশন সুবিধা এবং সুপেয় পানির সুবিধা থেকে বঞ্চিত। ফলে বিপুল সংখ্যক নৌকার বাসিন্দারা প্রতিনিয়ত পানিবাহিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। এই সমস্যাগুলোকে সমাধানের লক্ষ্যে কোইকা কাজ করে যাচ্ছে।”
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আসিফ মহিউদ্দিন, চাঁদপুর পৌরসভার কাউন্সিলর সোহেল রানা।
অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন, অক্সফাম বাংলাদেশ এর প্লানিং স্পেশালিষ্ট দ্রুবরাজ দে, নৌকাবাসী জনগোষ্ঠীর মধ্যে বক্তব্য রাখেন, দুলাল মিয়া, জেসমিন বেগম প্রমুখ।
নৌকাবাসী জনগোষ্ঠীদের প্রতিনিধিদের হাতে ভাসমান ওয়াশ সেন্টারের প্রতীকি হস্তান্তর পর্বের সঞ্চালনায় ছিলেন সিএনআরএস এর ফিল্ড অফিসার আয়েশা সিদ্দিকা।
এর আগে গত ৭ ডিসেম্বর কর্মশালার মাধ্যমে ভাসমান ওয়াশ সেন্টার ব্যবহার, রক্ষণাবেক্ষণ এবং এটি ব্যবহারকারী নৌকাবাসীদের অবহিত করা হয়। সবশেষে প্রায় ৫ শতাধিক নৌকাবাসীর প্রত্যক্ষ ভোটে ১১জন নারীকে নির্বাচন করা হয়। এ দলটির নাম দেয়া হয়েছে “নারী ওয়াশ দল”।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.