চাঁদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের দুই পরীক্ষার্থী নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুরে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা দিতে এসে সড়ক দুর্ঘটনায় সিএনজি যাত্রী ফাতেমা আলম (২৩) ও আব্দুল্লাহ (২৫) নামে দুই পরীক্ষার্থী নিহত হয়েছে। এই ঘটনায় আহত হয়েছে আরো ৩ জন।

২০ মে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় চাঁদপুর সদর উপজেলার ঘোষের হাট চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের এ ঘটনা ঘটে। বিপরীত দিক থেকে আসা সিমেন্টবাহী পিকাপের সাথে সিএনজি চালিত স্কুটারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে সিএনজির যাত্রী ফাতেমা আলম ঘটনাস্থলে মারা যায়। আর হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায় মারাত্বক আহত অপর যাত্রী আব্দুল্লাহ্।

নিহত আব্দুল্লাহ হাজীগঞ্জ উপজেলার সৈয়দপুর নোয়াপাড়া পাটোয়ারি বাড়ির হোসেন পাটোয়ারী একমাত্র পুত্র। নিহত অপর যাত্রী ফাতেমা আলম হাজিগঞ্জ বলাখাল বাজারের মো. ইয়াসিনের মেয়ে। এই ঘটনায় আমেনা বেগম (২৫) এবং তার পিতা আহত হয়েছে। আহতরা চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে বলে হাসপাতালের জরুরি বিভাগ সূত্রে জানা যায়।

দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী হাবিবুর রহমান পলাশ জানান, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ গ্রহনে চাঁদপুর যাওয়ার পথে সিএনজি চালিত স্কুটারটির সাথে কুমিল্লামুখী সিমেন্টবাহী টিকাপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে নারী যাত্রী ঘটনাস্থলে মারা যান। এছাড়া গুরুতর আসংখ্যাজনক পুরুষ যাত্রীকে হাতপাতে নেয়া হয়।
বেলায়েত গাজী নামের এক স্থানীয় বলেন, ‘হাজীগঞ্জ থেকে ছেড়ে যাওয়া চাঁদপুরগামী সিএনজিচালিত অটোরিকশা এবং হাজীগঞ্জগামী পিকআপভ্যানটি আজ সকালে ৯টার দিকে ঘোষেরহাট এলাকায় পৌঁছালে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে ফাতেমা আলম নিহত হন। এ সময় অটোরিকশায় থাকা আহত আরও তিন জনকে উদ্ধার করে চাঁদপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে আবদুল্লাহ নামের আরেকজন মারা যান। নিহত দুজন প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার জন্য হাজীগঞ্জ থেকে অটোরিকশায় করে চাঁদপুর আলআমিন স্কুল অ্যান্ড কলেজে যাচ্ছিলেন।’

চাঁদপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আনিসুর রহমান বলেন, ‘দুর্ঘটনায় আহত আবদুল্লাহ নামের এক যুবককে হাসপাতালে আনার পর তাঁর মৃত্যু হয়। এ ছাড়া দুর্ঘটনায় আহত দুজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।’

চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রশিদ বলেন, দুজনের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাঁদের পরিবারের লোকজনদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে। দুর্ঘটনার পর অটোরিকশা ও পিকআপভ্যানের চালক পালিয়ে যান বলে জানান ওসি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.