চাঁদপুরে ৮৩ জেলে কারাগারে

মা ইলিশ রক্ষায় ৭ দিনে ৯৯টি অভিযান ও ৩১ মোবাইল কোর্ট
আশিক বিন রহিম :
দেশের ৬টি অভয়াশ্রমসহ চাঁদপুরের নৌ-সীমানায় ৪ অক্টোবর থেকে চলছে মা ইলিশ রক্ষা অভিযান। আগামি ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত ২২ দিনব্যাপি চলবে জাতীয় সম্পদ ইলিশ রক্ষার এ অভিযান। ১০ অক্টোবর অভিযানের ৭ম দিন।
এর মধ্যে পদ্মা-মেঘনার জেলা-উপজেলা প্রশাসন, কোস্ট গার্ড, নৌ-পুলিশ জেলা মৎস্য ও উপজেলা মৎস্য যৌথ বা এককভাবে এ পর্যন্ত ৯৯টি অভিযান ও ৩১টি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে।
অভিযান চালিয়ে প্রায় ৭৮লাখ মিটার জাল আটক করা হয়। যার মূল্য অনুমানিক ১৫ লাখ ৬০হাজার ৫৮০ টাকা। এ সময় চাঁদপুর সদর, মতলব উত্তর ও হাইমচরের ৮৩ জন জেলেকে আটকপূর্বক মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।
জেলা মৎস্য অধিদপ্তর সর্বমোট ৪৮টি মামলা করেছে বলে জেলা মৎস্য কর্মকর্তার কার্যালয়ের মনিটরিং সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।
প্রসঙ্গত,পদ্মা-মেঘনায় ইলিশের নিরাপদ প্রজননের লক্ষ্যে ইলিশসহ সব ধরনের মাছ আহরণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। জাতীয় সম্পদ ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে মিঠা পানিতে মা ইলিশকে ডিম ছাড়ার সুযোগ করে দিতেই এ অভিযান শুরু।
ফলে মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল থেকে হাইমচরের চরভৈরবী পর্যন্ত মেঘনা নদীর ৮০ কি.মি এলাকাকে অভয়াশ্রম ঘোষণা করা হয়েছে।
এ সময় ইলিশের আহরণ, ক্রয়-বিক্রয়, মজুদ ও পরিবহণ করা যাবে না। নিষেধাজ্ঞা থাকলেও অভিযানকালীন সময়ে একশ্রেণির অসাধু মৎস্য শিকারীগণ থেমে নেই। তারা গোপনে নদীতে মাছ ধরে তা বিক্রি করে যাচ্ছে।
আর অভিযান সফল করতে কঠোর মনোভাব নিয়ে প্রতিদিনই নদী এবং মৎস্য আড়তে কঠোর অভিযান অব্যাহত রেখেছে টাস্কফোর্স সদস্যরা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *