চাঁদপুর নৌ-সীমানায় অপরিকল্পিত ড্রেজিং করতে দেয়া হবে না : নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক :
নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, চাঁদপুর নৌ-সীমানায় পদ্মা-মেঘনা নদীতে অপরিকল্পিতভাবে একই স্থানে ড্রেজিং করা হয়েছে। তা আর করতে দেয়া হবে না। এখানকার স্থানীয় প্রশাসন অপরিকল্পিতভাবে ড্রেজিং করা বন্ধ করে দিয়েছে। আগামীতে যেখানে প্রয়োজন, সেখানে নিয়ম মেনে ড্রেজিং করা হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা আছে, তিনি বলেছেন প্রতি বছর একই জায়গায় বালু মহাল হবে না। নীতিমালা অনুসরণ করে ড্রেজিং করতে হবে। এর ব্যত্যয় ঘটলে ফোর্স এপ্লাই করা হবে। এ ব্যাপারে কোন কথা শোনা যাবে না। কোন রাজনৈতিক দলের কেউ যতই শক্তিধর হোক কারো কোন কথা শোনা যাবে না।
তিনি বলেন, সরকারি প্রশাসনযন্ত্র চলবে দেশমাতৃকার জন্য, কোন ব্যক্তির জন্য নয়। আমি খালিদ মাহমুদ চৌধুরী যদি কোন অবৈধ নির্দেশনা দেই সেটি গ্রহণ করার দায়িত্ব মাঠ পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তাদের নয়। নীতিমালা এবং আইন মেনে চলতে হবে। বাংলাদেশে কোন আইন ছিল না। দেশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর যে হত্যার বিচার না করার জন্য জিয়াউর রহমান আইন পর্যন্ত তৈরি করেছিল। সে আইনের কারণে মানুষের মধ্যে আইন না মানার একটা প্রবণতা আছে। হত্যা করে যদি পার পাওয়া যায় তাহলে বাকি অপরাধ আর কি- এমন একটা প্রবণতা ছিল। আদালত থেকে রায় কিনে নেয়া হতো- এটাই ছিল বাংলাদেশ। বিচারপতিকে অস্ত্র ঠেকিয়ে এজলাস থেকে তুলে নেয়া হয়েছে। ভুয়া বিচারপতি নিয়োগ করা হয়েছিল। তবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের সবচে বড় অপরাধী যারা মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় যারা অপরাধ করেছে তাদের বিচার করে রায় কার্যকর করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদের বিচার ও রায় কার্যকর করা হয়েছে। ২০১৪ সাল থেকে বাংলাদেশে সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা আছে।
শনিবার (২৮ মে) দুপুরে চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে নৌ নিরাপত্তা সপ্তাহ সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি আরও বলেন, নৌপথের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাই আমাদের লক্ষ্য। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময় তাঁর বক্তব্যে বলে থাকেন নদীমাতৃক বাংলাদেশ। তিনি সব সময় নৌ পথের উন্নয়নে দৃষ্টি রাখেন। তার নেতৃত্বে ও নির্দেশনায় আমরা কাজগুলো বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নৌ পরিবহন অধিদপ্তরের মহা পরিচালক কমডোর এ জেড এম জালাল উদ্দিন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল।
বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে নৌযান মালিক ও শ্রমিক প্রতিনিধি, বাংলাদেশ কার্গো ভেসেল ওনার্স এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যানসহ অন্যান্য নৌযান সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে নৌ নিরাপত্তা সপ্তাহ উপলক্ষ্যে সুবর্ণতরী নামে একটি সুবিনিয়র উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.