ভরা মৌসুমে ইলিশের দাম চড়া, আমদানি কম

নিজস্ব প্রতিবেদক :
জুন থেকে নভেম্বর মাস পর্যন্ত এ ৫ মাসকে ধরা হয় ইলিশ মাছের ভরা মৌসুম। এ সময়ে বাজারে ভরপুর থাকে ইলিশের আমদানি। তাই অন্যান্য সময়ের তুলনায় দামও থাকে কম। দাম হাতের নাগালে এলে ভোক্তারা ইলিশ কিনে থাকেন একটু বেশিই। কিন্তু এ বছর চিত্র ভিন্ন। এখনো দাম বেশি হওয়ায় ‘ইলিশের বাড়ি’ খ্যাত চাঁদপুরের বাজারে এসে হতাশ ক্রেতারা।
ঢাকা থেকে চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছের আড়তে ইলিশ কিনতে আসা রফিকুল ইসলাম বলেন, চাঁদপুরের ইলিশ অনেক সুস্বাদু। তাই এখান থেকে তাজা ইলিশ নিতে এসেছিলাম। কিন্তু এখানে মাছের দাম অনেক বেশি মনে হচ্ছে।
কুমিল্লা থেকে আসা হাসান মাহমুদ বলেন, হাতিয়া, ভোলা, বরিশালসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে চাঁদপুরে ইলিশ আসে। তাই আমরা কয়েক বন্ধু মিলে আজ ইলিশ মাছ কিনতে এসেছি। ভেবেছিলাম সস্তায় মাছ কিনতে পারবো। কিন্তু দাম বেশি। তারপরও কিছু মাছ নিয়েছি।
চাঁদপুর বড়স্টেশন মৎস্য বণিক সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. সবে বরাত সরকার বলেন, স্থানীয় নদী অঞ্চলে ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে সামান্য পরিমাণ। তবে দক্ষিণাঞ্চল থেকে আসা ইলিশের আমদানি গত সপ্তাহে একটু ভালো ছিল। কিন্তু সোমবার আবার মাছের আমদানি কমে গেছে। এ দিন সর্বসাকূল্যে প্রায় ৪শ’ মন ইলিশ বাজারে এসেছে।
তিনি জানান, ছোট সাইজের ইলিশ প্রতি কেজি ৫০০-৫৫০ টাকা, ৭শ’ থেকে ৮শ’ গ্রাম ওজনের ইলিশ ১ হাজার টাকা এবং এক কেজির বেশি ওজনের প্রতি কেজি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ২শ টাকা দরে। গত দু’ সপ্তাহে ইলিশের আমদানি উঠানামা করলেও দামে তেমন কোন প্রভাব পড়েনি।
এ আড়তদার বলেন, গত সপ্তাহে ইলিশের দাম যেমন ছিল এখন তেমনই আছে। আগামী সপ্তাহের শুরুতেই ইলিশের আমদানি আরও বাড়বে বলেও আশা করেন তিনি।
চাঁদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. গোলাম মেহেদী হাসান দাবি করেন, বাজারে ইলিশের পর্যাপ্ত আমদানি রয়েছে। প্রতিদিন এক থেকে দেড় হাজার মন ইলিশের আমদানি হচ্ছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.