মতলব উত্তরে সড়কের মাঝখানে বিদ্যুতের খুঁটি

কামরুজ্জামান হারুন :
প্রতিদিন সারাদেশে সড়কে দুর্ঘটনা ঘটেই চলেছে। এতে কেউ মারা যাচ্ছেন আবার কেউ গুরুতর আহত হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করছেন। এসব দুর্ঘটনা এড়াতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নিচ্ছেন নানা পদক্ষেপ। এরই মধ্যে চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলা ছেংগারচর পৌরসভার একটি সড়কে দেখা গেছে অন্য চিত্র।
গত দুই-তিন মাস ধরে আদুরভিটি বোর্ড স্কুল থেকে দেওয়ানজি কান্দি পর্যন্ত সড়কের মাঝখানে বিদ্যুতের খুঁটি রেখেই সড়ক উন্নয়ন কাজ করছেন পৌর কর্তৃপক্ষ।
সাধারণ মানুষের সুবিধার জন্য এক কিলোমিটার এই সড়কটি প্রশস্ত করা হলেও সড়কের মাঝখানে থাকা হাই ভোল্টেজ বিদুৎতের খুঁটি প্রতিনিয়ত মনে করিয়ে দেয় সড়ক দুর্ঘটনার কথা।
সরেজমিনে সেই সড়কটিতে দেখা গেছে, বোর্ড স্কুল থেকে দেওয়ানজি কান্দি পর্যন্ত রাস্তা প্রশস্ত করার ফলে ১১ হাজার ভোল্টেজ সম্পন্ন বিদ্যুৎ সংযোগের বৈদ্যুতিক খুঁটি রাস্তার মাঝখানে পড়েছে। সড়কটি পৌরসভার প্রধান সড়ক হওয়ায় প্রতিনিয়ত যানবাহনের চাপ রয়েছে। সড়কের মাঝখানে খুঁটি থাকায় যানজটও তৈরি হচ্ছে মাঝে মধ্যে। এ কারণে দুর্ঘটনাও ঘটছে বলে জানা গেছে স্থানীয়দের কাছে।
আরও দেখা গেছে, সড়কটির নির্মাণ কাজের বক্স-কাটিং শেষে ইটের খোয়া ফেলে সেগুলো রোলার দিয়ে সমান করার (ডব্লিউভিএম) কাজ শেষ করা হয়েছে। কিন্তু সড়কে ১১ হাজার ভোল্টের তার বহনকারী বিদ্যুতের খুঁটি রয়েই গেছে।
চাঁদপুর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি-২ এর মতলব উত্তর জোনাল অফিস সূত্রে জানা গেছে, এ বৈদ্যুতিক খুঁটিটি পানি উন্নয়ন বোর্ডের সেচ কাজের জন্য কালিপুর পাম্প হাউজের বিদ্যুতের কাজে ব্যবহৃত হয়। এটা পল্লী বিদ্যুতের ব্যাপান নয়।
ব্যটারিচালিত অটোরিকশাচালক শাহআলম (৩৫) বলেন, আগে রাস্তা ছোট ছিল। তখন বিদ্যুতের খুঁটি রাস্তার পাশেই ছিল চলাচলে তেমন কোনো অসুবিধা হয়নি কিন্তু এখন রাস্তা বড় করায় বিদ্যুতের খুঁটি একেবারে রাস্তার মাঝখানে চলে এসেছে। বিদ্যুতের খুঁটিগুলো তাড়াতাড়ি সরানো প্রয়োজন। না হলে যেকোনো সময় বড় দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে।
ট্রাক চালক সফিক (৫৫) বলেন, সড়কের কাজ শুরু হওয়ায় আমরা খুশি। তবে বিদ্যুতের পিলার এখনই সরানো উচিত। সব কাজের আগে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা প্রয়োজন। এই সড়কে যা হচ্ছে তা হলো পরিকল্পনাবিহীন কাজ। কাজ শেষে একদিকে কর্তৃপক্ষ দায় এড়িয়ে যাবে, অন্যদিকে নানা অজুহাত তৈরি করবে বিদ্যুৎ বিভাগ। ফলে খুঁটি রয়েই যাবে। এতে দুর্ঘটনার মাধ্যমে প্রাণহানির আশঙ্কা যেমন থাকবে তেমনি সড়ক প্রশস্তকরণের কোনো সুফল আসবে না।
ছেংগারচর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান কাইয়ুম চৌধুরী বলেন, সড়কের প্রায় অর্ধেক জুড়ে বিদ্যুতের খুঁটি রয়েছে। খুঁটি রেখেই সড়ক প্রশস্তকরণ কাজ চলছে। ফলে যানবাহন চলাচল বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। খুঁটি দ্রুত অপসারণ করা প্রয়োজন।
এ বিষয়ে ছেংগারচর পৌরসভার সচিব আবু সুফিয়ান খান বলেন, সড়কের কাজ চলমান। বিদ্যুতের খুঁটি সড়ক থেকে সরিয়ে ফেলার জন্য আবেদন করা হয়েছে। খুঁটি অপসারণের প্রক্রিয়ার্ধীন রয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *