শিক্ষক নির্যাতনের প্রতিবাদে চাঁদপুরে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক :
বগুড়া জেলার নন্দীগ্রামে কোশাস উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কর্তৃক ভর তেতুলিয়া উচ্চ বিদ্যালেযর প্রধান শিক্ষক সাজ্জাদুল ইসলাম দুদুকে নির্যাতনসহ সারা দেশের শিক্ষক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে চাঁদপুর আক্কাছ আলী রেলওয়ে একাডেমী। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় বাংলাদেশ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান পরিষদের পক্ষে চাঁদপুর আক্কাছ আলী রেলওয়ে একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মো. গোফরান হোসেনের নেতৃত্বে এ কর্মসূচী পালন করা হয়। এসময় শিক্ষকদের সাথে শিক্ষকদের সাথে একত্বতা পোষণ করে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে অংশ নেয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও শিক্ষার্থীরা।
মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে চাঁদপুর আক্কাছ আলী রেলওয়ে একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মো. গোফরান হোসেন বলেন, যে জাতি যত শিক্ষিত, সে জাতি তত উন্নত।সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার জন্য একটি অশুভ চক্র এহেন ঘৃণিত করছে । একটি দেশ ধ্বংস করতে হলে, সবার আগে সেদেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করতে হয়। আজ বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংসের জন্য সরকারের ভিতরে ঘাপটি মেরে থাকা অপশক্তি শিক্ষকদেরকে লাঞ্চিত করছে। সরকারকে অবিলম্বে এই কুলাঙ্গারদের সুষ্ঠু বিচার করে শিক্ষাকে এগিয়ে নিতে হবে এবং দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে। নচেৎ জাতির সামনে ঘোর অন্ধকার অপেক্ষা করছে। শিক্ষার্থীরা শিক্ষকদের সন্তান তুল্য। অতীতের ন্যায় শিক্ষার্থীদের মন্দ কাজে শিক্ষকরা শাসন করতে না পারলে জাতির ভবিষ্যত কি হবে একবার দেখুন। মনে রাখবেন পৃথিবীর সকল ক্ষমতাধর ব্যাক্তিরও একজন শিক্ষক আছে। অতএব শিক্ষকদের যথাযথ মর্যাদা দিন।দেশ বিনির্মানে কার্যকরী ভুমিকা রাখুন।
তিনি আরো বলেন, শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। আর সেই সেই মেরুদন্ডকে ধ্বংস করতে স্বাধীনতাবিরোধীরা উঠেপড়ে লেগেছে। আমরা কেউ আইনের উর্ধ্ব নয়। কেউ যদি কোন অন্যায় করে তাহলে দেশের প্রচলিত আইনে তার বিচার হবে। কিন্তু জনসম্মুখে কাউকে শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত করে এটি মানবাধিকার লঙ্গন করা হয়েছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং এর সুষ্ঠু বিচারের দাবী করছি।
এসময় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য কৃষ্ণ চান্দ্র দাস, সহকারী প্রধান শিক্ষক কাশেম মিয়াজী সেলিম, মহামায়া হানাফিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আবুল কাশেম, সহকারী শিক্ষক শাহাদাত হোসেন, ফেরদৌসী সুলতানা, মুহাম্মদ ইমরান হোসাইন, তানিয়া জেসমিন, মুহাম্মদ ইমরান হোসাইন, তানিয়া জেসমিন, সায়মা আহমেদ চৌধুরী, মো. জাকির হোসেন, দিলীপ দেবনাথ, অফিস সহকারী খুশিসহ ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও শিক্ষার্থীরা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *