সন্তানদের সামাজিকতার পাঠ শুরু হয় অবিভাবদের কাছ থেকে : অঞ্জনা খান মজলিশ

হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা
অভিজিত রায় :
জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেছেন, আমরা চাই সুন্দর ও সাবলীল পরিবেশে পরবর্তী প্রজন্ম গড়ে উঠোক।পাঠদানের পরিবেশ যেন হয় কোলাহল মুক্ত ও সুন্দর সেদিকে সকলের নজর দিতে হবে। চাঁদপুর হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
রোববার ২ এপ্রিল সকালে স্কুল মাঠে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক আরও বলেন, আমরা অবিভাবক ও শিক্ষকরা যা শিখাবো তাই সন্তান ও শিক্ষার্থীরা শিখবে। সন্তানদের সামাজিকতার পাঠ শুরু হয় অবিভাবদের কাছ থেকে। তাই প্রত্যেক সনান্তদের প্রতি অবিভাবকদের বিশেষ নজর দিতে হবে। যে জিনিসটি কষ্টে লাভ করার তাই
আমি নিজে তিনটি জিনিসের উপর বিশ্বাস কির, এ তিনটি বিষয়ে তোমাদেরকে বড় হতে নিশ্চয় এ তিনটি বিষয় কাজে লাগবে। প্রথমেই সৃর্ষ্টি কর্তার বিশ্বাস, কঠোর পরিশ্রম ও বাবা মায়ের দোয়া এ তিনটি জিনিস যে অর্জন করতে পারবে তার চলার পথ মশ্রিন হয়ে ওঠবে।
আজকে বঙ্গববন্ধুর সোনার বাংলা গড়েতে তোমরাই একদিন ভূমিকা রাখবে তাই নিজেদের সুন্দর ভাবে গড়ে ওঠতে হবে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার মোঃ মিলন মাহমুদ বলেন, আমার যে ক্রীড়া শপথ পাঠ করেছি তা মেনে চলে জীবনে এগিয়ে যেতে হবে। আমরা কোন প্রকার মাদকের সাথে জড়াবো না। এখন কিশোর অপরাধ বেড়ে গেছে। তোমরা এসকল বাজে কাজে জগাবে না। এখনকার ছেলেমেয়েরা অনেক বেশী এডভান্স তাই তোমরা অনেক কিছু দ্রæত বুঝতে পার। তাই ভাল কাজে সময় ব্যায় করে এগিয়ে চলো।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালর ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সুলতানা ফেরদৌস আরা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সহকারি প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) মনজিল হোসেন এবং সিনিয়র শিক্ষক আতিকুর রহমান মজুমদার।
অনুষ্ঠানে দৈনিক চাঁদপুর কন্ঠের প্রধান শিক্ষক কাজী শাহাদাৎ, টেকনিক্যাল স্কুলের প্রধান শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম, হাসান আলী স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষক নরেন্দ্র নারায়ন চক্রবর্তী।
খেলা পরিচালনায় ছিলেন সিনিয়র শিক্ষক মোঃ আতিকুর রহমান মজুমদার, ফলাফল সংরক্ষণে ইকবাল হোসেন আবদুল লতিফ মিয়াজী, আয়েশা আক্তার, শাহাদাৎ হোসেন ও মোঃ জসিম উদ্দিন।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে পাঠ করেস ১০ম শ্রেণির ছাত্র মাহি আলম ও গীতা পাঠ করেন নবম শ্রেণির ছাত্র দেবজিৎ সাহা। ক্রীড়া শপথরপাঠ করেন ছাত্র সাফিল হাসনাত।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.