হাজীগঞ্জে ফুটপাতে হকাররা : বাধ্য হয়েই মূল সড়কে পথচারীরা, দুর্ঘটনার আশঙ্কা

শাখাওয়াত হোসেন শামীম :
চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে সড়কে হকার সমস্যার সমাধান যেন কোনভাবেই হচ্ছে না। পুলিশ প্রশাসন ও পৌরসভার পক্ষ থেকে বার বার হকার উচ্ছেদে নানা পদক্ষেপ নেওয়া হলেও হকাররা ফুটপাত দখল করেই আছেন। এতে ভোগান্তি পোহাচ্ছেন পথচারীরা।

রবিবার (২২ মে ) বিকালে পর সরেজমিনে শহরের বড় মসজিদ গেইট এলাকা ঘুরে নিত্যদিনকার চিত্রই দেখা গেছে।

সড়কের পাশে পথচারীদের চলাচলের জন্য বরাদ্ধ ফুটপাত পুরোটাই দখল করে দোকানের পসরা সাজিয়ে বসে আছেন হকাররা।

অস্থায়ী এসব দোকান বসিয়ে ফুটপাতে একেবারেই পথচারী চলাচলের পথ বন্ধ করে রেখেছেন তারা। ফলে বাধ্য হয়েই পথচারীরা সড়কে নেমে চলাচল করছেন।

সড়কে যানবাহন চলাচল করলেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ সড়কে চলাচল করতে হচ্ছে পথচারীদের। এ অবস্থা এখন নিয়মিতই হয় বলে জানান পথচারীরা।

হকারদের জন্য হাজীগঞ্জ পৌর হকার্স মার্কেট করা হয়েছে তাদেরকে ঐ মার্কেটে বসতে বলে ফুটপাত ছেড়ে দিতে বহুবার অনুরোধ করা হলেও তারা শোনেননি।

অসংখ্যবার হাজীগঞ্জ পৌরসভা ও থানা পুলিশের পক্ষ থেকে হকারদের উচ্ছেদ করা হয়।

এছাড়া অনেকবার তাদের ফুটপাতে বসতে নিষেধ করে মাইকিংও করা হয়েছে। কয়েকবার তাদের মালামালসহ দোকান উচ্ছেদ করে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাতেও কাজ হয়নি।

পথচারী মফিজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, এভাবে ফুটপাত দখল কোনো সভ্য সমাজে দেখা যায় না। আমরা পরিবার পরিজন বাচ্চাদের নিয়ে সড়ক দিয়ে হেঁটে যাচ্ছি আর তারা আমাদের চলাচলের ফুটপাতে দোকান সাজিয়ে বসে আছে। সড়কে চলাচলের কারণে অনেক সময় সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হতে হয় আমাদের।

সড়ক দিয়ে চলাচল করতে থাকা ষাটোর্ধ্ব সাজেদা বেগম বলেন, আমি এই বয়সে সড়ক দিয়ে কষ্ট করে যাচ্ছি। অথচ এত সুন্দর করে হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র লিপন পথচারীদের চলাচলের জন্য তৈরি করা ফুটপাত এখন হকারদের দখলে, তাদের জন্য ফুটপাতে চলাচল করা যায় না। এ সমস্যার সমাধান দ্রুত করা উচিত।

ফুটপাতের দোকানি সোহাগ হোসেন জানান, আমাদের বিকল্প কোনো স্থান না দিয়েই উচ্ছেদের চেষ্টা করা হচ্ছে। আমাদের তো পরিবার আছে, রোজগার করতে হয়। ব্যবসা বন্ধ করে দিলে খাবো কী, চলবো কিভাবে। আমরা ভালো নেই, অনেক প্রতিকূলতায় আমরা টিকে আছি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দায়িত্বরত এক ট্রাফিক পুলিশ সদস্য বলেন, ‘ফুটপাত দখল হলে পথচারীরা মূল সড়ক দিয়ে চলে। ফলে স্বাভাবিকভাবে যানবাহন চলতে পারে না। ফলে রাস্তায় চাপ বাড়ে যানজট সৃষ্টি হয়।’ তিনি বলেন, ফুটপাত দখলমুক্ত করার দায়িত্ব হাজীগঞ্জ পৌরসভার , এটা তাদের দেখার বিষয়। এখানে তাদের কিছু করার নেই।

এই বিষয়ে হাজীগঞ্জ পৌরসভার বাজার পরিদর্শক সাফিউল বাসার রুজমন জানান, হকারদের পুনর্বাসনের জন্য হাজীগঞ্জ পৌরসভা পৌর হকার্স মার্কেট নির্মাণ করা হয়েছে। তাদের দোকান বরাদ্দ দিলেও তারা দোকানপাট বিক্রি করে পুনরায় ফুটপাতে এসে ব্যবসা করছে। হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আঃসঃমঃ মাহবুব উল আলম লিপন মহোদয়ের নির্দেশে আমরা ফুটপাত দখলমুক্ত করতে ধারাবাহিকভাবে অভিযান অব্যাহত রেখেছি। ইতোমধ্যেই যারা ফুটপাত দখল করছেন তাদের নোটিশ দেয়া হয়েছে সেই মোতাবেক দখল মুক্ত করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.