হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজকে ১৯ শতাংশ ভূমি দান

শাখাওয়াত হোসেন শামীম :
গতকাল (আজ)২৬ সেপ্টেম্বর রোববার হাজীগঞ্জ রেজিস্ট্রি কার্যালয়ে ভূমি দানকৃত দলিলমূলে রেজিস্ট্রি সম্পাদনের মধ্য দিয়ে নতুন করে ১৯.৩৩ শতাংশ ভূমির মালিকানা লাভ করলো হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ।
পৌরসভাধীন রান্ধুনীমূড়া গ্রামের মরহুম আলহাজ্ব জব্বর আলী ওরফে আব্দুল জব্বরের ছেলে হাজীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো. আব্দুল মান্নান ৯.৬৭ শতাংশ এবং মরহুম আলহাজ্ব আব্দুল মতিনের ছেলে মো. সারফারাজ নেওয়াজ খাঁন তার বাবা ও পরিবারের পক্ষে ৯.৬৬ শতাংশ ভূমি হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজকে নি:শর্তভাবে দান করে দেন।
কলেজের পক্ষে অধ্যক্ষ মো. মাসুদ আহাম্মদের নামে এই ভূমি রেজিস্ট্রি করা হয়।
এর আগে কলেজ প্রতিষ্ঠায় জন্য রান্ধুনীমুড়ার মজুমদার পরিবারের সদস্যরা উপজেলার সকলের সহযোগীতা ৫২ বছর আগে ১৯৬৯ সালের ২২ জুলাই ৫ একর জমি প্রদান করে দলিল করেন।
কলেজ প্রতিষ্ঠার জন্যে যারা জমি দিয়েছিলেন তারা হলেন : আলহাজ্ব সেকান্দর মিঞা মজুমদার, এসকান্দর মিঞা মজুমদার, আবদুল মতিন মজুমদার, সামছুল হক মজুমদার, নূরুল ইসলাম মজুমদার, আবুল খায়ের মজুমদার, আবুল কাশেম মজুমদার, তাফাজ্জাল হোসেন মজুমদার, দেলোয়ার হোসেন মজুমদার, আলী হোসেন মজুমদার ও জাকির হোসেন মজুমদার।
এই নিয়ে প্রায় ৭ একর সম্পত্তির কলেজের মালিকানাসহ ভোগ দখলে রয়েছে।
জানা গেছে, প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ উল্লেখিত ১৯.৩৩ শতাংশ ভূশি ভোগ দখল করে আসছে। তৎকালীন সময়ে আলহাজ্ব জব্বর আলী ওরফে আব্দুল জব্বর কলেজকে এই সম্পত্তি দান করেন। কিন্তু পরবর্তী সময়ে এবং আব্দুল জব্বার মৃত্যুবরণ করায় কলেজের নামে রেজিস্ট্রি সম্পাদন করা হয়নি। দীর্ঘ ৫২ বছর পর বিষয়টি জানতে পেরে বর্তমান অধ্যক্ষ মো. মাসুদ আহাম্মদ কলেজের নামের উল্লেখিত ভূমি রেজিস্ট্রি করার উদ্যোগ নেন।
এরপর কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও জেলা প্রশাসনের নির্দেশনাক্রমে মরহুম আলহাজ্ব জব্বর আলী ওরফে আব্দুল জব্বরের ওয়ারশিগণের সাথে যোগাযোগ করেন অধ্যক্ষ মো. মাসুদ আহাম্মদ এবং তার নেতৃত্বে উল্লেখিত ভূমির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জটিলতা সমাধান করে অবশেষে রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) রেজিস্ট্রি কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়।
রেজিস্টি সম্পাদন শেষে এ দিন কলেজ শিক্ষক মিলনাতয়নে দাতা সদস্য আলহাজ্ব আব্দুল মান্নান ও মো. সারফারাজ নেওয়াজ খাঁনকে ফুলেল শুভেচ্ছা, অভিনন্দন পত্র, সম্মামনা ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করেন কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও কলেজের প্রতিষ্ঠাকালিন ভূমিদাতা সদস্য ( প্রতিষ্ঠাতা সদস্য) কলেজের সাথে জড়িত প্রয়াত সকল সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত ও জীবিতদের মঙ্গল ও উত্তোরত্তোর সাফল্য কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করেন, সহকারী অধ্যাপক আনম মফিজুর রহমান।
রেজিস্ট্রি কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন, কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন রতন, সালাউদ্দিন ফারুক মামুন, মো. শাহজামাল, গোলাম ফারুক মুরাদ, এস.এম আক্তার হোসেন, সহকারী অধ্যাপক নাজমা আক্তার ও তৌহিদা আকতার। এছাড়াও সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন, উপাধ্যক্ষ মো. আনোয়ার উল্যাহ্, সহকারী অধ্যাপক মো. সেলিম, মোজাম্মেল হোসেন, শরীফুল ইসলাম ভুঁইয়া, কলেজ শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক মো. মাকছুদুর রহমান ও আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।
এ ছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন হাজীগঞ্জ পৌর আওয়ামীলীগের কার্যকরী সদস্য আলমাছ রায়হান (রানা)সহ এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *