৮ জনের হাতে তুলে দেওয়া হলো চর্যাপদ সাহিত্য একাডেমি পুরস্কার

নিজস্ব প্রতিবেদক :
দেশের ৮ গুণী ব্যক্তির হাতে তুলে দেওয়া হলো চর্যাপদ সাহিত্য একাডেমি পুরস্কার ২০২১। চাঁদপুর বাসস্ট্যান্ড বৈশাখি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে আনুষ্ঠানিকভাবে এ পুরস্কার তুলে দেয়া হয়। ১৯ নভেম্বর সকাল সাড়ে ১১টায় অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন বাংলা একাডেমির সচিব হাসানাত লোকমান। জনপ্রিয় হাওয়াইয়ান গিটারশিল্পী দিলীপ ঘোষ ও ঐশী ঘোষের মনোমুগ্ধকর গিটার পরিবেশনার মধ্য দিয়ে অন্ষ্ঠুানের শুভ সূচনা হয়।


চর্যাপদ একাডেমির সভাপতি নুরুন্নাহার মুন্নির সভাপতিত্বে, মহাপরিচালক রফিকুজ্জামান রণি ও পরিচালক খোরশেদ আলম বিপ্লবের যৌথ সঞ্চালানায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন শব্দঘরের সম্পাদক, দেশবরেণ্য কথাসাহিত্যিক মোহিত কামাল, সম্মাননীয় অতিথির বক্তব্য দেন চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী। স্বাগত বক্তব্য দেন উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক সজীব মোহাম্মদ আরিফ ও সদস্য সচিব দুখাই মুহাম্মাদ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কবি জামশেদ ওয়াজেদ, চর্যাপদ একাডেমির উপমহাপরিচালক নন্দিতা দাস, পরিচালক শিউলী মজুমদার। শংসাপত্র পাঠ করেন সহ-সভাপতি আয়শা আক্তার রুপা, নির্বাহী পরিচালক আইরিন সুলতানা লিমা, উপ-নির্বাহী পরিচালক ফাতেমা আক্তার শিল্পী, সহযোগী পরিচালক জয়ন্তী ভৌমিক, সাংস্কৃতিক পরিচালক কাকলী চক্রবর্তী ও সদস্য কামরুন্নাহার বিউটি।


কথাসাহিত্যে ফারহানা রহমান, লোক-গবেষণায় তপন বাগচী, প্রবন্ধে মিলু শামস, নাটকে এনায়েত উল্যাহ সৈয়দ শিপুল, সমগ্র সাহিত্যকর্মে রহমান হাবিব, শিশুসাহিত্যে অদ্বৈত মারুত ও সংগীতে স্বরূপ রতন দত্তের হাতে তুলে দেওয়া হয় চর্যাপদ সাহিত্য একাডেমি পুরস্কার ২০২১।
কবিতায় পুরস্কারপ্রাপ্ত কবি শাহেদ কায়েসের মা হাসপাতালে ভর্তি থাকায় স্বশরীরে অনুষ্ঠানে আসতে পারেননি, অনলাইনে যুক্ত হয়েছেন। তার পুরস্কার গ্রহণ করেন কবি গোলাম মোর্শেদ চন্দন। অন্যান্য বছরের মতো এবারও একজনকে প্রদান করা হয় বিশেষ সম্মাননা। খ্যাতিমান বাচিকশিল্পী ড. সুমন হায়াত বিশেষ সম্মাননায় অভিষিক্ত হয়েছেন। সদ্যপ্রয়াত কিংবদন্তি কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হককে উৎসর্গ করা হয় এবারের অনুষ্ঠান।
উদ্বোধক কবি হাসানাত লোকমান বলেন, শিল্প-সাহিত্যের মানুষেরাই সুন্দর এবং মানবিক পৃথিবী গড়ে তুলতে পারে। চর্যাপদ সাহিত্য একাডেমির আয়োজনকে আমি সাধুবাদ জানাই।
প্রধান অতিথি মোহিত কামাল বলেন, বাংলা সাহিত্যের আদি নির্দশন চর্যাপদের নামে প্রতিষ্ঠিত একটি প্রতিষ্ঠান চাঁদপুরে থেকে দেশবিদেশে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে এটা আমাকে মুগ্ধ করেছে। আমি নিজেও চর্যাপদ নিয়ে একটি বই লিখেছি। সে বইটি সবচেয়ে বেশি প্রশংসিত হয়েছে।

অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর লেখক পরিষদের সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন, কবি বাবুল আনোয়ার, কথাসাহিত্যিক বাসার তাসাউফ, শাহমুব জুয়েল, চর্যাপদ একাডেমির সহকারী পরিচালক ফেরারী প্রিন্স, অতিরিক্ত উপপরিচালক আবদুল বারেক খান, আইন পরিচালক উম্মে কুলসুম মুনি, বিজ্ঞান ও আইসিটি পরিচালক রাসেল ইব্রাহীম, প্রচার ও প্রকাশনা পরিচালক নাজমুল ইসলাম, অর্থ অডিটর আমিন উদ্দিন, আর্কাইভ ও নথিব্যবস্থাপনা পরিচালক আল-আমিন সানি ও বাচিকশিল্পী দিপান্বিতা দাস।
উল্লেখ্য, ২০১৯ সাল থেকে চর্যাপদ সাহিত্য একাডেমি স্বচ্ছতার সঙ্গে পুরস্কার প্রদান করে আসছে। এর আগে কবি বীরেন মুখার্জী, কথাশিল্পী হামিদ কায়সার, কবি জামসেদ ওয়াজেদ, প্রাবন্ধিক জাহাঙ্গীর হোসেন, কথাসাহিত্যিক শামস সাঈদ ও কবি স্বপন রক্ষিত এ পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *