চাঁদপুরের সম্ভাবনাময় পর্যটন খাতকে কাজে লাগাতে বেসরকারি উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসতে হবে : অঞ্জনা খান মজলিশ

বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা
আশিক বিন রহিম :
চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ‘অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধিতে পর্যটন’ এ প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে ২৭ সেপ্টেম্বর সোমবার সকাল ১১টায় চাঁদপুর জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ইমতিয়াজ হোসেন। চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট এনামুল হাসানের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন, পুরানবাজার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ রতন কুমার মজুমদার, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী, সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা, সাবেক সভাপতি কাজী শাহাদাত, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজ, লেখক পীযূষ কান্তি বড়ুয়া, মুহাম্মদ ফরিদ হাসান প্রমূখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, কোভিড মহামারীতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে পর্যটন খাত। চাঁদপুরে পর্যটন খাতে অপার সম্ভাবনাময় রয়েছে। যারা নদীমাতৃক চাঁদপুরের সৌন্দর্য উপভোগ করতে চায় তাদেরকে ঘুরার ব্যবস্থা করে দিতে ট্যুর অপারেটরদের এগিয়ে আসতে হবে। পাশ্ববর্তী দেশে মোড়ে মোড়ে ট্যুর অপারেটর অফিস থাকে। তিনি বলেন, ট্যুরিস্টরা টাকার বিনিময়ে একটু ভালো সেবা চায়। সেইরকম আমাদের দেশেও সে ব্যবস্থা করতে হবে। বিশেষ করে চাঁদপুর নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে।
তিনি বলেন, ট্যুরিরিজম বা পর্যটনের ক্ষেত্রে চাঁদপুর মোলহেড একমাত্র ঠিকানা নয়। তবে ত্রিনদী মিলনস্থল বলে এটি পর্যটকদের মন কাড়ে বেশি। চাঁদপুরের অনেক ভালো ভালো স্থান রয়েছে দেখার মতো। অনেক লোক আসে এইখানে ঘুরার জন্যে কিন্তু ঘুরতে এসে বসার জন্যে স্থান নেই বা শিশুরা খেলার জন্যে কোন বিনোদনের জিনিস নেই। তাই আমরা উদ্যোগ নিয়েছি, মোলহেডকে সংস্কার করার হয়েছে । আরো কিছু কাজ চলমান আছে। জেলা প্রশাসক বলেন, আমি চাই এ জেলায় পর্যটনের বিকাশ হোক। যার যে অবস্থান থেকে তুলে ধরতে হবে। তাহলে এ জেলায় পর্যটনের বিকাশ ঘটবে। সবাইকে নিয়ে চাঁদপুরকে এগিয়ে নিতে চাই।
তিনি আরো বলেন, সরকার নির্ভরতা আমাদের কমাতে হবে। প্রচার প্রচারনা ও ব্যবসা ব্যবস্থা বেসরকারিভাবে উদ্যোগ নিয়ে করতে হবে। আর পর্যটন শিল্পের প্রসারতায় এই উদ্যোগ নিতে হবে। জেলা প্রশাসক বলেন, জেলা প্রশাসন থেকে বলা হয়েছে, মোলহেড থেকে পানিতে নামা যাবে না। নিষেধ রয়েছে।এর কারন, এভাবে পানিতে নামা
অনেক বিপদজনক।বড়স্টেশন মোলহেড নিয়ে আমাদের অনেক পরিকল্পনা রয়েছে। আমাদের এসব পরিকর্পনা বাস্তবায়নে রেলওয়েরও সহযোগিতা লাগবে। পৌরসভার লাগবে, আমরা তো আছিই। তিনি বলেন, আমাদের সকল বিভাগ, অধিদপ্তর সবই সরকারের। তাই যা কিছু করতে হয় সব সমন্বয়ের মাধ্যমে করতে হবে। আমরা চাই বড় ষ্টেশন মোলহেডে পর্যটকদের আকর্ষণে যা কিছু হোক ভালো কিছু হোক। মানুষেরা এখন ঘরে থাকতে চায় না, মানুষ এখন ঘুরতে চায়। যা কিছু করার সবাই মিলে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *