চাঁদপুরের ১০ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ৫৯ জন

ইব্রাহীম রনি :
দ্বিতীয় ধাপে চাঁদপুর সদর উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন হবে। এ নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকা তৈরি করছে জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ। এ লক্ষ্যে প্রতিটি ইউনিয়নে বর্ধিত সভার মাধ্যমে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের নাম প্রস্তাব ও সমর্থন করার মধ্য দিয়ে তৈরি হয়েছে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকা। ৪ অক্টোবর ও ৫ অক্টোবর দু’ দিনে সদর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে বর্ধিত সভায় ইউপি চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী পাওয়া গেছে ৫৯ জন। এর বেশিরভাগই বর্তমান ও সাবেক আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতা। তবে দু’ একটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত নয়- এমন ব্যক্তিও নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন। তবে দল থেকে বলা হয়েছে, বিগত দিনের ত্যাগী নেতাদেরই মনোনয়ন দেয়া হবে।
সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী বলেন, গত দু’ দিনে আমরা ১০টি ইউনিয়নে বর্ধিত সভা করেছি। মনোনয়ন প্রত্যাশীদের নাম প্রস্তাব ও সমর্থন করা হয়েছে। আমরা তাদের তালিকা তৈরি করেছি। তালিকায় নামের সিরিয়াল দেয়া হবে দলীয় পদের সিনিয়রিটির ভিত্তিতে। আমরা তালিকা জেলা আওয়ামী লীগের কাছে জমা দিলে। এরপর জেলা আওয়ামী লীগ তা মন্তব্যসহ কেন্দ্রে পাঠাবে।
এদিকে ১০টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভার মাধ্যমে পাওয়া গেল ৫৯ জন মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম। এর মধ্যে চাঁদপুর সদর উপজেলার ৭নং তরপুরচন্ডী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের একক চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে বর্তমান চেয়ারম্যান ইমাম হাসান রাসেল গাজীর নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। ৫ অক্টোবর মঙ্গলবার সকালে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় তৃণমূলের নেতারা সর্বসম্মতিক্রমে একক ভাবে তার নাম প্রস্তাব করেন। এর ফলে এই ইউনিয়ন থেকে আওয়ামী লীগের একক চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রায় চুড়ান্ত।

আশিকাটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাইছেন ৫ জন। তারা হলেন : বর্তমান চেয়ারম্যান বিল্লাল হোসেন পাটোয়ারী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রাজ্জাক ভূইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক শ্রী নয়ন চন্দ্র দাস, যুবলীগ আহ্বায়ক সেলিম মাল, যুগ্ম আহ্বায়ক মামুন মাল।
৬নং মৈশাদী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে চান ৬ জন। তারা হলেন : জেলা পরিষদ সদস্য ও সাবেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নূরুল ইসলাম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি স্বপন গাজী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বোরহান বেপারি, ইউনিয়ন যুবলীগ আহ্বায়ক আজাদ খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন বিদ্যুৎ,  স্থানীয় বাবলু খান।
শাহমাহমুদপুরে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে চান ৬ জন। তারা হলেন : সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাসুদুর রহমান নান্টু, গত নির্বাচনে নৌকার মনোনীত প্রার্থী কামাল হোসেন খান লালু, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আখতারুজ্জামান পাটওয়ারী, সাধারণ সম্পাদক কামাল হাজী, সহ-সভাপতি মাহফুজ খন্দকার ও ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক ফারুক হোসেন বেপারী।
রামপুরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে চান ৫ জন। তারা হলেন : বর্তমান চেয়ারম্যান আল মামুন পাটওয়ারী, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবিএম রেজওয়ান, সদর উপজেলা যুবলীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার ইকবাল হোসেন পলাশ, সাবেক ছাত্রনেতা মাহফুজুল কবির রাজু চৌধুরী, সাবেক যুবলীগ নেতা ফরিদ উদ্দিন পলাশ।
বিষ্ণুপুরে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন ৪ জন। বর্তমান চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিন খান শামীম, সাবেক চেয়ারম্যান ও থানা আওয়ামী লীগের সম্পাদকীয় পদে থাকা হুমায়ুন কবির চুন্নু, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জিয়া বেপারী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সিনিয়র সভাপতি হাবিবুর রহমান বিটু।
১৩নং হানারচর ইউনিয়নে সভায় চেয়ারম্যান পদে ৮ জন প্রার্থীর নাম উঠে আসে। মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন : বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আব্দুস সাত্তার রাড়ি, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান (হাবু) ছৈয়াল, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাছির মাঝি, থানা আওয়ামী লীগের সদস্য আবুল কালাম (কালু) চৌকিদার, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান সহসভাপতি মকবুল মিজি, ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক শাহাদাত হাওলদার, সাবেক যুবলীগ নেতা মোজাম্মেল হোসেন টিটু ও স্থানীয় আজাদ মোল্লা।
বাগাদী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে চান ৯ জন। তারা হলেন : বর্তমান চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আলহাজ্ব বেলায়েত হোসেন গাজী বিল্লাল, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম, থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোরশেদ আলম মিয়া, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মোঃ ফারুক আহমেদ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল লিটন, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ তাহেরুল ইসলাম খান সোহাগ, থানা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য বেলায়েত হোসেন বাবুল, ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক নেতা মানিক মিয়া, যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক গিয়াস উদ্দিন নান্নু।
৯নং বালিয়া ইউনিয়ন ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে চান ১০ জন। তারা হলেন : ইউনিয়নের বতর্মান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি তাজুল ইসলাম মিয়াজী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিক উল্ল্যা পাটওয়ারী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি জাকির বহাদ্দার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক তালুকদার, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন গাজী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জামাল ঢালী, সদস্য সেলিম পাটওয়ারী, কামরুল ইসলাম, ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক দেলওয়ার হোসেন, জেলা যুবলীগের সদস্য গাজী আব্দুল গনি।
১২নং চান্দ্রা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের নৌকা পেতে চান ৫ জন। তারা হলেন : বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি খান জাহান আলী কালু পাটওয়ারী, সাধারন সম্পাদক জসিম মিজি, সহ সভাপতি আবু ইউসুফ শেখ, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাছির গাজী, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আতাউর রহমান রাজু পাটওয়ারী।
উল্লেখ্য, চাঁদপুর সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ১০টি ইউপির নির্বাচন হবে আগামী ১১ নভেম্বর। এর আগে নির্বাচন কমিশনের কমিশন বৈঠক শেষে সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন। এ ধাপে সদরের রাজরাজেশ্বর, ইব্রাহীমপুর, কল্যাণপুর ইউনিয়নে নির্বাচন হচ্ছে না। ইতোমধ্যে নির্বাচন হয়েছে লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের।
ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ১৭ অক্টোবর, মনোনয়নপত্র বাছাই ২০ অক্টোবর, বাছাইয়ের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল ২১ থেকে ২৩ অক্টোবর, আপিল নিষ্পত্তি ২৪ ও ২৫ অক্টোবর, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২৬ অক্টোবর, প্রতীক বরাদ্দ ২৭ অক্টোবর এবং ভোট গ্রহণ ১১ নভেম্বর।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *