চাঁদপুর ডায়াবেটিক সমিতি নিয়ন্ত্রণে মরিয়া সিন্ডিকেট গ্রুপ

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুর ডায়াবেটিক সমিতি নিয়ন্ত্রণে মরিয়া হয়ে উঠেছে একটি সিন্ডিকেট গ্রুপ। এই গ্রুপটি দীর্ঘ দিন থেকে চাঁদপুর ডায়াবেটিক সমিতি বিভিন্ন ভাবে কুক্ষিগত করে রেখেছে। আগামীতেও একই পন্থা অবলম্বন করে কমিটি গঠনের পায়তারা করার চেষ্টা করছে। শুধু তাই নয়, গঠনতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ডাকা সাধারন সভার বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার আস্ফালন দেখাচ্ছে। এছাড়া এই সাধারণ সভার আগে সাধারন সভাটি যেন না হয়, সেজন্য অনেক চেষ্টাও করে তারা।

গত ২১ মে ২০২২ শনিবার এ সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভাটি সমাজসেবা অধিদপ্তর কর্তৃক অনুমোদিত গঠনতন্ত্রের আলোকে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে সমিতির আজীবন সদস্যসহ ২ শ সদস্যের ৮৬ জন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত সদস্যদের নিরংকুশ সমর্থন নিয়ে সভায় গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তটি হয় যে,এবার আর সিলেকশন নয়, সরাসরি নির্বাচনের মাধ্যমে আগামী কার্য নির্বাহী পর্ষদ গঠন করা হবে। এজন্য সভাপতি উপস্থিত সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে সম্পুর্ন গনতান্ত্রিক প্রক্রিয়া অনুসরণ করে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় যাওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন এবং সেটি গৃহীত হয়। ঐদিনই জেলা প্রশাসক তার অফিসিয়াল ফেইসবুক আইডিতে অন্যান্য গৃহীত সিদ্ধান্তগুলোর সাথে নির্বাচনের বিষয়টিও তুলে ধরেন। এছাড়া সাধারণ সভাটি সুষ্ঠু ও সুন্দর ভাবে সম্পন্ন হওয়ার খবরটি পরদিন স্থানীয় পত্রিকাগুলোতেও প্রকাশ হয়।

বার্ষিক সাধারণ সভাটি বানচাল করতে ঐ গ্রুপটি বিভিন্ন কুট কৌশল করে ব্যর্থ হয়েছে। আর ঐ ব্যর্থাতার পর এখন বিভিন্ন ধরনের কৌশল অবলম্বন করছে সে চক্রটি। ঐ দিনের সাধারণ সভায় উপস্থিত সদস্যদের একজন এডঃ সেলিম আকবর। তার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, অনেক সুন্দর সভা হয়েছে সেদিন। আমরা উপস্থিত ২/৪ জন ছাড়া সবাই সরাসরি নির্বাচনের পক্ষে মত দেই। এটি মুখে বলা ছাড়াও সভাপতি জেলা প্রশাসক হাত তুলেও এ ব্যাপারে মতামত জানাতে চাইলে আমরা হাত তুলেও দেখাই যে, নির্বাচনের পক্ষে আমরা। এমনকি সেদিনই অনেকে এ রকম নির্বাচন সম্পন্ন করার জন্য সভাপতিকে অনুরোধ জানান। কমিটির আজীবন সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ বলেন, চাঁদপুর ডায়বেটিক সমিতির গনতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সেদিন সাধারন সভা হয়েছে। এখানে পদাতিকার বলে এর সভাপতি জেলা প্রশাসক অন্জনা খান মজলিশ। তিনি আমাদের উপস্থিত সদস্যদের মতামত নিয়ে সভার সকল কার্য সম্পাদন করেছেন। কমিটি গঠনের বিষয়টি সামনে এলে তার ব্যাপারে তো আরো সুন্দর একটা সিদ্ধান্ত তিনি আমাদের সদস্য নিয়ে করেছেন। এই পুরনো সদস্য আরো বলেন, জেলা প্রশাসক সেদিন বিশেষ বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়েছেন। অধিকাংশই চাইছিলো যে, নির্বাচনটা সেদিনই যেন হয়ে যায়। কিন্তু তিনি সভাপতি হিসাবে বলেছেন, অসুস্থতার কারনে সাধারণ সম্পাদক এবং নানা কারনে সহসভাপতি যেহেতু অনুপস্থিত, তাহলে নির্বাচন আজ নয়, তবে আমরা নির্বাচন প্রক্রিয়া সম্পন্নে যা করনীয়, তা করতে পারি যদি আপনাদের উপস্থিত সদস্যদের মতামত আমার সাথে এক হয়। তখন প্রায় সবাই সভাপতির কথাকে সমর্থন করেন। আরেক আজীবন সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম দুলাল পাটওয়ারী বলেন, সেদিনের সাধারণ সভা সমিতির সকল গনতান্ত্রিক রীতিনীতি অনুসরণ করে হয়েছে। একটি মহল থেকে এ সভা না হওয়ার জন্যও কাউকে কাউকে সভায় না আসার জন্যও বাঁধা দেয়া হয়েছে বলেও আমরা সদস্যরা কেউ কেউ জানতে পারছি। কিন্তু যারা এই সেবামূলক প্রতিষ্ঠানের জন্য আন্তরিক তারা এসেছেন। কেউ কেউ অবশ্য অসুস্থতার কারনে আসতে পারেননি। সেটা হওয়াটা স্বাভাবিক। কিন্তু বাঁধা দেয়া কেন? তিনি বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে যে, এটা সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। যার মঙ্গল কামনা করা আমাদের সকলের। আজীবন সদস্য মোঃ আলী জিন্নাহ পাটওয়ারী বলেন, আমি এই ডায়াবেটিক হাসপাতাল ভবন নির্মাণ আগে থেকে এর ডোনার সদস্য, জেলা পরিষদ প্রশাসক ওচমান পাটওয়ারী সদস্য। আমি এর অধিকাংশ সাধারণ সভায় ছিলাম। কিন্তু সেদিনের সাধারণ সভার মতো এতো উপস্থিতি ও গঠনতন্র প্রক্রিয়া মেনে এতো সুন্দর সভা হয়েছে বলে আমার মনে পড়ে না। তিনি বলেন, সভাপতি অনেক আন্তরিক ছিলেন।
সভায় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নির্বাচনের মাধ্যমে পরবর্তী কমিটি গঠনের বিষয়ে সর্বসন্মতিক্রমে সিন্ধান্ত নেন। কিন্তু এটাকে যদি কেউ অগণতান্ত্রিক সভা বলে তারা এ সেবামূলক প্রতিষ্ঠানের ধ্বংশ চান। কিন্তু ঐ রকম ধ্বংশ এটিকে হতে দেয়া হবে না। কে কাকে বারণ করেছেন না আসতে এবং কেন সেগুলো বেরিয়ে আসছে।
এদিকে একটি সূত্র জানিয়েছে, সেদিনের এই সভাকে বিতর্কিত করার জন্য ঐ মহল অপতৎপরতা লিপ্ত রয়েছে। তারা বিভিন্ন ফন্দি ফিকির আঁটছে। এই অবস্থার কিছু প্রমানও মিলে যাচ্ছে।
এ ব্যাপারে সংগঠনের সভাপতি জেলা প্রশাসক অন্জনা খান মজলিশের সাথে কথা হলে তিনি জানান, সাধারন সভা গঠনতন্ত্র অনুসরণ করে হয়েছে। সিদ্ধান্তগুলো, উপস্থিতি সবই ঠিকমত হয়েছে। সিদ্ধান্ত মোতাবেক নির্বচনের মাধ্যমে কমিটি গঠন হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.