জেলা বিএনপির সভাপতি শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চাঁদপুর জেলা বিএনপির সদ্য নির্বাচিত সভাপতি শেখ ফরিদ আহমেদ মানিককে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। রবিবার (১০ এপ্রিল) আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে জেলা ও দায়রা জজ এস জিয়াউর রহমান তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ৭ অক্টোবর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে ও রেললাইন উপড়ে ফেলে বিএনপির নেতাকর্মীরা। এ সময় বাধা দিলে বিক্ষোভকারীরা পুলিশের ওপর হামলা করে। পরে পুলিশ বাদী হয়ে শেখ ফরিদ আহমেদ মানিককে প্রধান আসামি করে একটি মামলা করে।
এ বিষয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী রনজিৎ রায় চৌধুরী বলেন, ২০১৮ সালের ৭ অক্টোবর বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে বিক্ষোভ চলাকালে শহরের বকুল তলা রোডে রেললাইন উপরে ফেলে নাশকতার চেষ্টা করে। পরে পুলিশ বাঁধা দিলে পুলিশের উপর জেলা বিএনপির বর্তমান সভাপতি মানিক সাহেবের নেতৃত্বে বিক্ষোভকারী ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। সে মামমলায় আজকে আদালতে জামিন চাইলে বিজ্ঞ জজ জামিন শুনানি নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
বিএনপি সূত্র জানায়, এই মামলায় বিএনপির প্রায় ৪০ জন নেতাকর্মী জামিনে থাকলেও কারাগারে পাঠানো হয়েছে শেখ ফরিদ আহমেদ মানিককে।
জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সলিম উল্যাহ সেলিম বলেন, ২০১৮ সালে শহরের কালিবাড়ি এলাকায় রেললাইন উপড়ে ফেলার অভিযোগ এনে আমাদের বিরুদ্ধে ভুয়া ও মিথ্যা মামলা করা হয়। মামলার এজাহারে মানিক ভাইয়ের নাম নেই। তার বিরুদ্ধে কোনও সুনির্দিষ্ট অভিযোগও নেই। তারপরও শুধু রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে পরে চার্জশিটে তার নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, গত ৫ এপ্রিল চার্জশিট গ্রহণের পর তাকে আসামি হিসেবে ওয়ারেন্ট দিয়েছে। সেই ওয়ারেন্টের কারণে তিনি জেলা ও দায়রা জজ আদালতে জামিনের দরখাস্ত করে হাজির হন। কিন্তু আদালত তাকে জামিন না দিয়ে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এই মামলার এক নম্বর আসামি আমি। সবাই জামিনে আছে। মানিক ভাইকে কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় আমরা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.