বঙ্গবন্ধুর দর্শনকে ধারণ করে দেশে শিক্ষা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রী : ভিসি নাছিম আখতার

নিজস্ব প্রতিবেদক :
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে চাঁদপুর প্রেসক্লাবের আয়োজনে ‘মুজিব দর্শনে উন্নত বাংলাদেশের ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টায় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি। প্রধান আলোচক ছিলেন চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) ড. মো. নাছিম আখতার।
চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশার পরিচালনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাড. জাহিদুল ইসলাম রোমান।
প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্যে চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) ড. মো. নাছিম আক্তার বলেন, দর্শন হলো এমন একটি গুণ যা ভেতর থেকে নিজেকে উজ্জীবিত করে। সুদর্শন, ইতিবাচক দর্শন। এটি যে দেশে যতটা সে দেশ ততটা উন্নত। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আমরা স্বাধীন দেশ পেতাম না। বঙ্গবন্ধুর দর্শন ছিলো ইতিবাচক। বাঙালির মুক্তির জন্যে বঙ্গবন্ধু আজীবন সংগ্রাম করেছেন। জীবনের সাড়ে ১২টি বছর তিনি জেলে কাটিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু যদি চাইতেন তবে তিনি হয়ত মন্ত্রীত্ব পেতেন, বড় শিল্পপতি হতেন কিন্তু হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী হতে পারতেন না। তার পিতা বলেছিলেন রাজনীতি করলেই হবে না, লেখাপড়া করতে হবে। লেখাপড়া ছিলো তার দর্শনের একটা দিক। তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাও সেই দর্শনকে ধারণ করে দেশে শিক্ষা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিচ্ছেন। যাতে সহযোগীতা করছেন আমাদের শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।
তিনি বলেন, উন্নত দেশগুলো প্রযুক্তি শিক্ষার কারনে এগিয়ে যাচ্ছে। অনেক উন্নত দেশে খনিজ সম্পদ নেই, কিন্তু খনিজসম্পদ আমদানি করে সেগুলো সঠিক ব্যবহার করে এগিয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর অর্থনীতির দর্শনও ছিলো। গবেষণামনষ্ক ছিলেন আমাদের বঙ্গবন্ধু। বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞানমনষ্কদের উৎসাহ দিতেন। আমরা যদি বিজ্ঞানমনস্ক জাতি গড়তে চাই তাহলে প্রযুক্তিগত শিক্ষাকে এগিয়ে যেতে হবে। বঙ্গবন্ধুর মাদকবিরোধী দর্শন ছিলো। ইউরোপের অনেক দেশ আফ্রিকাসহ পৃথীর অনেক দেশকে মাদকের ঘোরে রেখে তারা ফয়দা লুটছে। আমাদের দেশেও বার্মাসহ প্রতিবেশি রাষ্ট্রগুলো মাদক ঢুকিয়েছে। তারা আমাদের ঘুমিয়ে রেখে উন্নয়নের অগ্রযাত্রবে দাবিয়ে রাখতে চায়। কিন্তু বঙ্গবন্ধু সবসময় মাদকের বিরুদ্ধে ছিলেন। কারিগরি শিক্ষার উন্নয়ন দর্শন ছিলো বঙ্গবন্ধু। দুর্নীতি সম্পর্কে তিনি সব সময় সোচ্চার ছিলেন।
তিনি আরো বলেন, চাঁদপুরের মানুষ বঙ্গবন্ধুর দর্শনে চলছে। চাঁদপুর জেলায় ১৫টির অধিক পত্রিকা প্রকাশিত হচ্ছে। এতে প্রমান করে, এখানকার মানুষ বেশি করে জ্ঞানের চর্চা করে। আমি বিশ্বাস করি, বঙ্গবন্ধুর নীতি-আদর্শ যদি মেনে চলে তবে আমাদের কেউ আটকায়ে রাখতে পারবে না। এই জাতি যদি মাদককে পরিহার করে তাদের কেউ আটকায়ে রাখতে পারবে না। আমাদের মানীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি অনেক দিন রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকলে বাংলাদেশ উন্নতির শিখরে পৌঁছাবে। একটি দেশ যদি উন্নয়নের শিখরে পৌঁছায় তবে তারা নিজেরাই নিজেদের ভালমন্দ বুঝতে পারবে।
সম্মানিত অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী ইউনুছ বিশ্বাস, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. সৈয়দা বদরুন্নাহার, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, চাঁদপুরের পিপি অ্যাড. রনজিত রায়, পুরানবাজার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ রতন কুমার মজুমদার, বাবুরহাট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোশারেফ হোসেন, আল -আমিন স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ কর্নেল (অব.) ড. মো. শাহাদাত হোসেন, হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুলতানা ফেরদৌস আরা, মাতৃপীঠ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রাণ কৃষ্ণ দেবনাথ, কবি ও ছড়াকার ডা. পীযূষ কান্তি বড়ুয়া।
চাঁদপুর প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাবেক সভাপতি যথাক্রমে অ্যাড. ইকবাল-বিন-বাশার, কাজী শাহাদাত, অধ্যক্ষ জালাল চৌধুরী, বি এম হান্নান ও শরীফ চৌধুরী, সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিলন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সোহেল রুশদী, মির্জা জাকির, লক্ষ্মন চন্দ্র সূত্রধর, এইচএম আহসান উল্লাহ, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আল-ইমরান শোভন, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শান্ত, ইব্রাহিম রনি, সাপ্তাহিক চাঁদপুর সকালের প্রকাশক ও সম্পাদক অধ্যাপক মোশারফ হোসেন, সিনিয়র সাংবাদিক পার্থনাথ চক্রবর্তী, চাঁদপুর জেলা ফটোজার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি এম এ লতিফ, চাঁদপুর জেলা ফটোজার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি একে আজাদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক তালহা জুবায়ের, মতলব উত্তর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি বোরহান উদ্দিন ডালিম প্রমুখ।

 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে চাঁদপুর প্রেসক্লাবের আয়োজনে ‘মুজিব দর্শনে উন্নত বাংলাদেশের ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. মো. নাছিম আখতার, জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ, পৌরমেয়র মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল, স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, পুরাণবাজার ডিগ্রি কলেজ অধ্যক্ষ রতন কুমার মজুমদার, প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী ও সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.