বঙ্গবন্ধুর ১০২তম জন্মবার্ষিকীতে জেলা আওয়ামী লীগের আলোচনা ও কেককাটা

দলকে শক্তিশালী করতে হলে ঐক্যের কোন বিকল্প নেই : নাছির উদ্দিন আহমেদ
অভিজিত রায় :
১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে আলোচনা সভা, মিলাদ ও কেককাটা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে সংগঠনের দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, দিনটি জাতীয় শিশু দিবসও সরকারী ছুটির দিন। সারাজাতি অত্যন্ত উৎসাহ উদ্দীপনায় দিবসটি পালন করছে। আমাদের শেখ হাসিনার প্রতি অবিচল আস্থা ও বিশ্বাস থাকতে হবে। দল শক্তিশালী করতে হলে ঐক্যের কোন বিকল্প নাই। আমরা একটা নীতি ও আদর্শে বিশ্বাসী তা হলো বঙ্গবন্ধুর আদর্শ। সারাদেশে আওয়ামীলীগ যে উন্নয়ন কাজ করেছে তা অন্যকোন দল করতে পারে নাই। খালেদা জিয়া চুরির দায়ে জেলে ও তারেক জিয়া খুনের দায়ে বিদেশে।
বিএনপি কিন্ত এখন ইঞ্চিন ছাড়া দল। ইঞ্জিন ছাড়া গাড়ির কি অবস্থা হয় তা তো আপনারা বুঝেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল তিনি তার বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু সকলকে সাথে নিয়ে কাজে বিশ্বাসী ছিলেন। আমাদেরকে সেই আদর্শে আদর্শিত হয়ে কাজ করতে হবে। দলের চেইন অব কমান্ড মেনে চলুন দলের ঐক্য ধরে রাখুন। কর্মের মাধ্যমে বুঝাতে হবে আমরা ঐক্যবদ্ধ। আমাদের অনেক ভুল থাকতে পারে তা সংগঠনের ভিতরে কথা বলে মীমাংসা করতে হবে। ফেইজবুকে সিনিয়র নেতাদের নামে লেখালেখিটা বন্ধ করতে হবে।
জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাভোকেট জহিরুল ইসলামের পরিচালনায় আরও বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, সহ সভাপতি জে আর ওয়াদুদ টিপু, ইঞ্জিনিয়ার আব্দুর রব ভূঁইয়া, আব্দুর রশিদ সর্দার, মঞ্জু আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, অ্যাভোকেট মুজিবুর রহমান ভূঁইয়া, শিক্ষা ও মানব সম্পদ সম্পাদক ও পৌর মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট বিনয় ভূষণ মজুমদার, উপদপ্তর সম্পাদক অ্যাডভোকেট রনজিৎ রায় চৌধুরী, সদস্য অ্যাড. সাইয়েদুল ইসলাম বাবু, অ্যাড. বদিউজ্জামাল কিরন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী আরশাদ মিয়াজি, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আমিনুর রহমান বাবুল, মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপিকা মাসুদা নুর খান, যুবলীগের আহবায়ক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান কালু, যুগ্ম আহবায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুল, আবু পাটওয়ারী, শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহবুবুর রহমান, মহিলা আওয়ামী লীগের পক্ষে পৌরসভার প্যানেল মেয়র ফরিদা ইলিয়াস, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অ্যাড. হেলাল হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস মোর্শেদ জুয়েল, আওয়ামী মৎসজীবী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক দেওয়ান।
বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু রাজনৈতিক জীবনে সুখি সমৃদ্ধ একটি বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন। আমরা যদি এ ধারা অবৗাহত রাখতে চাই তাহলে আবার জননেত্রী শেখ হাসিনাকেন আবার রাষ্ট্র ক্ষমতায় বসানোা। আপনারা যদি ঐকের কথা বলেন তাহলে মুখে এক কথা কাজে অন্যরকম হবে. তাহলে ঐক্য কি করে হবে। এসভায়ও টিপ্পুটি কাটা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.