মতলবে কোনো ভাঙা রাস্তা থাকবে না : পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক :
ঢাকাস্থ ‘মতলব সুধী সমাজ’ কর্তৃক মতলবের কৃতি সন্তান, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলমকে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির অডিটোরিয়ামে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুর -২ আসনের সংসদ সদস্য নুরুল আমিন রুহুল এমপি, মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ কুদ্দুস, মতলব দক্ষিণ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিএইচএম কবির আহমেদ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান লায়ন বেনজীর আহমেদ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. শামসুল আলম বলেন, আমি ব্যক্তিগত ভাবে অন্তর্মুখী, নিভৃতচারী একজন মানুষ। প্রতিমন্ত্রী বক্তৃতাকালে আরোও বলেন, আমি অত্যন্ত সৌভাগ্যবান। কৃষি অর্থনীতিবিদ হিসেবে সাধারণ অর্থনীতি বিভাগে কাজ করেছি। আমিই প্রথম। আমি সৌভাগ্যবান।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমি তিনটি পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা সঙ্গে যুক্ত ছিলাম। সেগুলো নিয়ে কেউ বিরূপ মন্তব্য করেনি।
মতলব সুধী সমাজের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি আরোও বলেন, মতলবের জন্য কোন দাবি-দাওয়া দিতে হবে না। আমি মতলবের সন্তান, আমি গ্রামের সন্তান। আমি জানি। আমি মন্ত্রী থাকাকালীন মতলবে কোনো ভাঙ্গা রাস্তা থাকবে না। তিনি বক্তৃতায় আরোও বলেন, শিক্ষকতা করেছি। চোখ দেখেই বুঝতে পারি। কার কি চাওয়া।
প্রতিমন্ত্রী ড. আলম অনুষ্ঠানে আরও বলেন, মাদকের ভয়াল থাবা থেকে যুবসমাজকে রক্ষার জন্য মাদকের বিরুদ্ধে সকলকে সোচ্চার হতে হবে।
সাধারণ মানুষ তথা জনগণের টাকায় সব হয় এই প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী মহোদয় বলেন, সবকিছু হয় জনগণের টাকা, ট্যাক্সের টাকায়, প্রকল্প ব্যবসা বন্ধ করতে হবে। চাঁদাবাজি ঠেকাতে হবে।
প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্বের প্রতি ইঙ্গিত করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বুদ্ধিমত্তা, দূরদর্শিতা ও প্রত্যুৎপন্নমতিতায় শেখ হাসিনার সমতুল্য কোন রাজনীতিবিদ বাংলাদেশে নেই। এমনকি দক্ষিণ এশিয়াতেও কেউ নেই বলে আমার মনে হয়।
প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে প্রতিমন্ত্রী বলেন, জনগণের জন্য যেটা কল্যাণকর হবে, নেত্রীর নির্দেশে, তাঁর চাহিদা অনুযায়ী আমি কাজ করে যাবো।
ড. আলম আরোও বলেন, কারা কি করছে সেটা তাদের ব্যাপার। যতটুকু পারি দেশের জন্য কাজ করবো। সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।
সভাপতির বক্তব্য লায়ন বেনজীর আহমদ বলেন, দেশের প্রতি, সমাজের প্রতি, এলাকার প্রতি দায়বদ্ধতা সকলেরই। দেশের জন্য কিছু করতে হবে।
বেনজির আহমেদ আরোও বলেন, অনুন্নত দেশেকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত করতে যার অবদান তিনি আমাদের মধ্যমনি। বাংলাদেশকে এগিয়ে যাওয়ার রূপকার ড. শামসুল আলম।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অ্যাডঃ নুরুল আমিন রুহুল এমপি বলেন, রতনে রতন চেনে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সত্যিকার অর্থেই একজন রতন, তাইতো একজন রতনকেই বেছে নিয়েছেন।
বক্তব্যের শেষে মাননীয় প্রতিমন্ত্রী আয়োজক,আগত সুধী, অনেকদূর থেকে যারা কষ্ট করে এসেছেন তাদের প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *